সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

ভালোবাসার টানে মিশরীয় তরুনী বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে বাংলাদেশে দিনাজপুরের বীরগঞ্জের শমসের আলীর বাড়িতে এসে ঘর-সংসার করছেন মিশরের নুরহান (২০)।

শমসের আলী বীরগঞ্জ উপজেলার শতগ্রাম ইউনিয়নের অর্জনুহার গ্রামের কৃষক বাদশা মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, জীবিকার সন্ধানে ২০০৮ সালে মিশরে পাড়ি জমান শমসের আলী। মিশরের কায়রোতে গড়ে তুলেন তার নিজস্ব গার্মেন্টস ব্যবসার প্রতিষ্ঠান। ২০১৮ সালে পরিচয় হয় মিশরের তরুণী নুরহানের সঙ্গে। প্রথমে বন্ধুত্ব, পরে প্রেম। প্রেম থেকে দুই মাসের মাথায় পরিবারের সম্মতিতে তাদের বিয়ে। বর্তমান তাদের সংসারে ৩ বছরের মেয়ে (রুকাইয়া) ও ১১ মাসের (ইয়াসিন) একটি ছেলে রয়েছে।

দীর্ঘ ১৫ বছর পর গত ১০ জুলাই শমসের আলী ফিরে আসেন বাংলাদেশে। সঙ্গে নিয়ে আসেন স্ত্রী নুরহান ও তাদের দুই ছেলে-মেয়েকে।

দেশ ভাষা সংস্কৃতি ভিন্ন এবং আলাদা আবহাওয়া- সব কিছুতে নিজেকে খাপ খাইয়ে নিয়েছেন মিশর থেকে আসা এই গৃহবধূ। তাদের আসার খবরে এক নজর দেখার জন্য ভিড় করছে আশপাশে গ্রামের লোকজন।

কয়েকজন গ্রামবাসী জানালেন, শমসের ভাই বিদেশি বউ নিয়ে এসেছেন। আমরা তাকে দেখার জন্য আসছি। বউটি দেখতে অনেক সুন্দর। ব্যবহার, আচার-আচরণও খুবই ভালো। তবে আমাদের ভাষা সে বোঝে না এবং আমরাও তার ভাষা বুঝিনা।

শমসের আলী বলেন, ১৫ বছর পর স্ত্রী সন্তান নিয়ে দেশে আসছি। ৪ বছর আগে নুরহানকে বিয়ে করেছি। সংসার জীবনে অনেক ভালো আছি। সে আমার পরিবারের সাথে মিশে গেছে। তার নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার ইচ্ছে নেই। তবে যেতে হবে কেননা সেখানে আমরা নিজস্ব ব্যবসা আছে।

নুরহান বলেন, বাংলাদেশকে অনেক ভাল লেগেছে। এখানকার মাটি মানুষ, গাছ-পালা, সবুজ মাঠ আর খোলা আকাশ খুবই সুন্দর। আমি এখানে রয়েই যাবো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: