সর্বশেষ আপডেট : ১৯ মিনিট ২১ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

গঙ্গাচড়ায় ১০ হাজার পরিবার পানিবন্দি

অ’তিবৃষ্টি ও উজানের ঢলে ফুলেফেঁপে উঠেছে তিস্তা। বুধবার (২০ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৬টায় লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে বিপৎসীমা’র ৭০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) উপ-বিভাগীয় নির্বাহী প্রকৌশলী রাশেদীন ইস’লাম। এতে রংপুরের গঙ্গাচড়ায় তিস্তা তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলের অন্তত ১০ হাজার পরিবার পানিব’ন্দি হয়ে পড়েছে।

তিস্তা তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলের পানিব’ন্দি পরিবারগুলো শি’শু, বৃদ্ধ ও গবাদিপশু নিয়ে বিপাকে পড়েছেন। পানিবন্দ লোকজনের মধ্যে দেখা দিয়েছে চরম দুর্ভোগ। ব’ন্যায় চরাঞ্চলের সবজিসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতির আশ’ঙ্কা করছেন চাষিরা। অনেকের ফসল এরইমধ্যে পানিতে তলিয়ে গেছে।

তিস্তায় পানি বৃদ্ধিতে তিস্তা ব্যারাজের ভাটি এলাকা গঙ্গাচড়া উপজে’লার নোহালী ইউনিয়নের নোহালী, চর নোহালী, বাগডোহরা, মিনার বাজার, চর বাগডোহরা ও নোহালী সা’পমা’রী, আলমবিদিতর ইউনিয়নের হাজীপাড়া ও ব্যাংকপাড়া, কোলকোন্দ ইউনিয়নের চিলাখাল, উত্তর চিলাখাল, মটুকপুর, বিনবিনা মাঝের চর, সাউদপাড়া ও বাবুরটারী, বাঁধেরপাড়. লক্ষিটারী ইউনিয়নের শংকরদহ, পূর্ব ইচলী, জয়রামওঝা, পশ্চিম ইচলী, মহিপুর ও কলাগাছি, গজঘন্টা ইউনিয়নের ছালাপাক, গাউছিয়া, জয়দেব, রমাকান্ত, একনাথ ও কালির চর এবং ম’র্নেয়া ইউনিয়নের আলাল চর, তালপট্টি চর, হাজির পাড়া, নরসিংহ এবং ম’র্নেয়া চর এলাকায় প্রায় ১০ হাজার পরিবার পানিব’ন্দি হয়ে পড়েছে বলে জানিয়েছেন ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানরা।

কোলেকান্দ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন রাজু জানান, শুধু তার ইউনিয়নেই ৩ হাজার পরিবার পানিব’ন্দি হয়ে পড়েছে।

লক্ষিটারী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল হাদী বলেন, তিস্তার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় লোকজনদের নিরাপদ স্থানে সরে যাওয়ার জন্য মাইকিং করা হয়েছে। এবারের ভ’য়াবহ বন্যয় আমা’র এলাকার তিস্তার চরাঞ্চলে প্রায় ৫ হাজার পরিবার পানিব’ন্দি হয়ে পড়েছে।

তিস্তায় পানি বৃদ্ধি পেয়ে সৃষ্ট ব’ন্যার বিষয়টি নিশ্চিত করে রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. জাকারিয়া ব’ন্যা সতর্কী’করণ কেন্দ্রের বরাত দিয়ে সাংবাদিকদের জানান, বুধবার বিপৎসীমা’র ৭০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছিল।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) উপ-বিভাগীয় নির্বাহী প্রকৌশলী রাশেদীন ইস’লাম বলেন, তিস্তা ব্যারাজের ৪৪টি গেট খুলে পানি নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। বুধবার (২০ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৬টায় লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে বিপৎসীমা’র ৭০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 14
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    14
    Shares

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]m

Developed by: