সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

দেবরের প্রে’মে পড়ে স্বামীকে খু’ন, ৫ বছর পর আরেক প্রে’মিকের জন্য দেবরকেও হ’ত্যা

পাঁচ বছর আগে দেবরের সঙ্গে প্রে’মের স’ম্পর্ক তৈরি হওয়ার পর তার সঙ্গে মিলে স্বামীকে হ’ত্যা করেন। এরপর নিজ বাড়ির মেঝেতেই স্বামীর মৃ’তদেহ পুঁতে রাখেন ওই নারী। তখন থেকেই দেবরের সঙ্গে সংসার করছিলেন তিনি। তবে সম্প্রতি নিজের সেই প্রে’মিককেও হ’ত্যা করেছেন ওই নারী। খবর ইন্ডিয়া টুডের।

ওই প্রে’মিকের হ’ত্যা মা’মলায় সম্প্রতি ওই নারীকে গ্রে’প্তার করে পু’লিশ। পু’লিশের জিজ্ঞাসাবাদে এমন স্বামী হ’ত্যার এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসে। এমন লোমহর্ষক ঘটনা ঘটেছে ভা’রতের মধ্যপ্রদেশের ভোপালে।

জানা গেছে, কয়েকদিন আগে ভোপাল থেকে এক ব্যক্তির পচাগলা মৃ’তদেহ উ’দ্ধার করে পু’লিশ। ত’দন্তে জানা যায়, ওই ম’রদেহটি দামাখেরার বস্তি এলাকার বাসিন্দা মোহনের। দেহটি কুকুর এবং শূকর ছিঁড়ে খাওয়ায় মৃ’তের পরিচয় উ’দ্ধার করতে বেগ পেতে হয়েছিল ত’দন্তকারীদের।

ত’দন্তে পু’লিশ জানতে পারে মৃ’ত ব্যক্তি নিজের ভাবী ও তার ছে’লে-মে’য়ের সঙ্গে ওই বস্তিতে থাকতো। এরপরই ওই নারীকে ডেকে পাঠায় পু’লিশ। পু’লিশের শুরু থেকেই স’ন্দেহ ছিল যে মোহনের মৃ’ত্যুর ঘটনায় তার ভাবীর হাত রয়েছে। পরে পু’লিশি জেরার মুখে দায় স্বীকার করেন ওই নারী।

পাঁচ বছর আগে মোহনের সঙ্গে তার প্রে’মঘটিত স’ম্পর্ক তৈরি হয়। ওই নারীও দীর্ঘদিন ধরে তার বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদ চাইছিল। কিন্তু দুইজনের প্রে’মের কথা জেনে ফেলার পরও স্বামী ডিভোর্স দেননি। ওই নারী জানান,এরপর থেকেই তাকে মা’রধর করতে শুরু করেন স্বামী।

আর তখন মোহনের সঙ্গে মিলে ঠান্ডা মা’থায় স্বামীকে খু’ন করেন ওই নারী। এরপর তার দেহ বাড়ির মেঝেতেই পুঁতে দেয়। পুরো বিষয়টি তার ১১ ও ১২ বছরের দুই সন্তান দেখে ফেলে। তাদেরও মে’রে ফেলার হু’মকি দিয়ে চুপ করিয়ে রাখে মা। এরপর থেকেই মোহনের সঙ্গে থাকতে শুরু করে ওই নারী।

তাহলে প্রে’মিককে কেন খু’ন করলো ওই নারী? পু’লিশ জানায়, সম্প্রতি নিজের ভাড়াটে রাজেশ বিসোরিয়ার সঙ্গে প্রে’মের স’ম্পর্ক তৈরি হয়েছিল ৪০ বছরের বেশি বয়সী ওই নারীর। এটা জেনে যায় মোহন। এ নিয়ে মোহনের সঙ্গে প্রায়ই ঝগড়া হচ্ছিল তার। ঝাগড়ার এক পর্যায়ে রাজেশের সাহায্যে মোহনকে খু’ন করে তার দেহ কালিয়াসত নদীতে ভাসিয়ে দেয় দুজন।

পুরো ঘটনার সময় নিজের নাবালক ছে’লে-মেয়ের সাহায্যও নিয়েছিল ওই নারী। ভয়ে তারা ওই কাজে সাহায্য করতে বাধ্য হয়েছিল। ইতোমধ্যেই পুরো ঘটনার দায় স্বীকার করেছে ওই নারী। তাকে এবং তার বর্তমান প্রে’মিক রাজেশকে গ্রে’প্তার করেছে পু’লিশ। তাদের বি’রুদ্ধে হ’ত্যা ও আলামত নষ্টের অ’ভিযোগে মা’মলা দায়ের করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Comments are closed.

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: