সর্বশেষ আপডেট : ৫৮ মিনিট ৪০ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২ অগাস্ট ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

সিলেটের ব্যাংকগুলোতে মানুষের উপচেপড়া ভিড়

আজ সোমবার। কঠোর লকডাউনের পঞ্চ’ম দিন। সিলেটে শুরু হয়েছে ব্যাংকের কার্যক্রম। এতে নগরীর বিভিন্ন এলাকার ব্যাংকগুলোতে মানুষের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে। এতে স্বাস্থ্যবিধি লংঘন হওয়ার আশংকা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

ব্যাংক কর্মক’র্তারা বলছেন, ব্যাংকগুলোতে টাকা জমা দেওয়ার চেয়ে উঠাচ্ছেন বেশিরভাগ গ্রাহক।

সোমবার সকালে সরেজমিনে সিলেটের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, ব্যাংকের কার্যক্রম সীমিত পরিসরে শুরু হবে সকাল ১০টায়। কিন্তু সেবা গ্রহাকরা সকাল ৮টা থেকে লাইন করে দাঁড়িয়ে আছেন।

জিন্দাবাজারস্থ একটি ব্যাংকের লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা এক ব্যবসায়ী জানান, ব্যাংক থেকে টাকা তোলার জন্য সকাল ৭টায় বাসা থেকে বের হয়ে ব্যাংকে এসে পৌঁছাই ৮টার দিকে। এসে দেখি আমা’র সামনে আরও ১৭জন দাঁড়িয়ে আছেন।

লামাবাজার এলাকায় একটি ব্যাংকের লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা এক গৃহীনি জানান, শুনেছি আরও ৭দিনের লকডাউন দেয়া হবে। সেজন্য বাসায় ফেরার পথে কিছু বাজার করে নেবো।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের অ’ত্যাবশ্যকী’য় বিভাগগুলো যথাসম্ভব সীমিত লোকবলের মাধ্যমে খোলা রাখতে হবে। ব্যাংকের প্রিন্সিপাল বা প্রধান শাখা এবং সব বৈদেশিক বাণিজ্য শাখা সীমিত সংখ্যক অ’ত্যাবশ্যকী’য় লোকবলের মাধ্যমে খোলা রাখতে হবে। রাষ্ট্র মালিকানাধীন ব্যাংকসমূহের ক্ষেত্রে ব্যাংক ব্যবস্থাপনার বিবেচনায় প্রতিটি জে’লা সদরে ও উপজে’লায় একটি করে শাখা খোলা রাখতে হবে। অন্যান্য সব ব্যাংকের ক্ষেত্রে প্রতিটি জে’লা সদরে ১টি শাখা খোলা রাখতে হবে। এবং জে’লা সদরের বাইরে ব্যাংকে ব্যবস্থাপনার বিবেচনায় অনধিক ২টি শাখা খোলা রাখা হবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: