সর্বশেষ আপডেট : ৯ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

বিয়ের দাবিতে তরুণীর অনশন

বিয়ের দাবিতে হাজীগঞ্জে চাচার বাড়িতে অনশন শুরু করেছেন এক নারী। শুক্রবার সন্ধ্যায় আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা ওই তরুণী হাজীগঞ্জের বড়কুল ইউনিয়নের নাটেহারা গ্রামে লালু মাঝির বাড়িতে অবস্থান নেন। লালু মাঝির ছে’লে রাজন স’ম্পর্কে তার চাচাতো ভাই।

স্থানীয়রা জানান, হাজীগঞ্জ উপজে’লার নাটেহারা গ্রামের মাঝি বাড়ির লালু মাঝি ও নজমিয়া আপন ভাই। নজমিয়া দীর্ঘদিন আগে ইস’লাম ধ’র্ম গ্রহণ করে হাজীগঞ্জ ত্যাগ করে ভৈরবে চলে যান। বর্তমানে তারা ভৈরবেই বসবাস করছেন।

অনশনকারী তরুণী জানান, তার বাবা নজমিয়া মুঠোফোনে এক প্রবাসীর সঙ্গে তার বিয়ে দেন। কিন্তু চার চাচাতো ভাই রাজন (২৫) কাজের সুবিধার্থে ভৈরবে যায়। সেখানে তাকে প্রে’মের প্রলো’ভন দেখিয়ে অ’নৈতিক স’ম্পর্ক করতে বাধ্য করে। ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি ধারণ করে। শুধু তাই নয়, তার প্রবাসী স্বামীকে সেই ছবিটি পাঠিয়ে দেয় এবং এ স’ম্পর্কের কথা জানিয়ে দেয়। বিষয়টি জানতে পেরে প্রবাসী স্বামীর সঙ্গে তার বিবাহবিচ্ছেদ হয়।

এ বিষয়ে অনশনরত তরুণীর বড়বোন তাসলিমা’র জামাই মাছুম যুগান্তরকে জানান, ভুক্তভোগীকে মিথ্যা প্রলো’ভন দেখিয়ে সর্বনাশ করেছে। তার সুষ্ঠু সমাধান পেতে আম’রা হাজীগঞ্জে এসেছি।

খবর পেয়ে লালুর ছে’লে রাজন আত্মগো’পনে চলে গেছে। রাজনের মা শিখা রানী বলেন, দুই মাস আগে ঘটনা জানতে পেরেছি। এখন ইউপি চেয়ারম্যান বিষয়টি যেভাবে সিদ্ধান্ত দেবেন, সেই সিদ্ধান্ত মেনে নেব।

ইউপি চেয়ারম্যান মনির হোসেন গাজী বলেন, বিষয়টি এলাকায় বসে সমাধান দেব।

হাজীগঞ্জ থা’নার ওসি হারুনুর রশীদ যুগান্তরকে জানান, ঘটনাটি মীমাংসার জন্য ইউপি চেয়ারম্যানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Comments are closed.

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: