সর্বশেষ আপডেট : ৮ মিনিট ২১ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১ অগাস্ট ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

সাটার অর্ধেক নামানো, পথচারী দেখলেই হাঁক- ‘কুন্তা লাগবোনি’

সড়কের পাশেই দোকান। দোকানের সাটার অর্ধেক নামানো। পু’লিশ-ম্যাজিস্ট্রেট দরখলে বাকি অর্ধেকও বন্ধ হয়ে যায়। দোকানের সামনে দাঁড়ানো এক কিশোর। সড়ক দিয়ে পথচারীদের যাতায়ত করতে দেখলেই সে জিজ্ঞেস করছে- ‘কুন্তা লাগবোনি? আইউক্কা (কিছু লাগবে? চলে আসেন)।’

মঙ্গলবার দুপুরে নগরের কালিঘাট মহাজনপট্টি এলাকায় গিয়ে দেখা যায় এমন দৃশ্য।

কিশোরের ডাকে সাড়া দিয়ে অনেকেই অর্ধেক নামানো সাটারের নিচ দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করছেন। এভাবে মা’থা নিচু করে আসা-যাওয়া চলছে; হচ্ছে কেনাবেচা।

সর্বাত্মক লকডাউনের মধ্যে জরুরি সেবা ও নিত্যপ্রয়োজনের দোকান ছাড়া বাকি সব বন্ধ রাখতে বলেছে সরকার। এই বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে রেব-পু’লিশের পাশাপাশি সে’নাবাহিনী ও বিজিবির টহল চলছে। পাশাপাশি জে’লা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রতিদিন ভ্রাম্যমাণ আ’দালত পরিচালনা করছেন। এর মধ্যেই লুকোচু’রি করে চলছে কেনা-বেচা।

নগরীর প্রধান পাইকারি ব্যবসার কেন্দ্রস্থল কালিঘাট এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, অধিকাংশ দোকানে একটি শাটার অর্ধেক তুলে ব্যবসা চলছে। প্রতিটি দোকানের সামনে একটি কর্মচারী ক্রেতার অ’পেক্ষায় রয়েছে। সামনে দিয়ে কেউ গেলেই তারা হাঁক ছাড়ছেন- ‘কুন্তা লাগবোনি, আইউক্কা’। পার্শ্ববর্তী কালিঘাটে দোকানপাটের চিত্রও প্রায় একই।

এভাবে ব্যবসা প্রসঙ্গে মহাজনপট্টি ও কালিঘাট এলাকার একাধিক ব্যবসায়ী দাবি করেন, মানুষের প্রয়োজন মেটাতে দোকান খুলেছেন তারা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ব্যবসায়ী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে করো’নার জন্য দোকানপাট বন্ধ রাখতে হয়েছে। এতে দফায় দফায় লোকসান হচ্ছে। তাই বাধ্য হয়ে দোকান খুলেছেন।

নগরীর প্রধান বিপনি বিতান ও মা’র্কেটগুলো বন্ধ থাকলেও এভাবে অর্ধেক শাটার তুলে অনেক জায়গায়ই কেনা-বেচা হচ্ছে। পাড়া-মহল্লায় গভীর রাত পর্যন্ত দোকানের একটি শাটার অর্ধেক বা পুরো খুলে ব্যবসা চলছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর টহলে এলেই ঝটপট শাটার নামিয়ে ভেতরে বাতি নিভিয়ে ফেলেন দোকানি।

এদিকে চলমান লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর পর মঙ্গলবার সিলেটের রাস্তাঘাটে যানবাহনের সংখ্যা আরও বেড়েছে। সকাল থেকে নগরীর বন্দরবাজার এলাকায় যানবাহনের ভিড় দেখা গেছে। এমনকি রিকশা, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, প্রাইভেট’কারে কিছু সময়ের জন্য রাস্তায় যানজট দেখা গেছে। সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে না।

নগরীর প্রধান প্রধান সড়কের চলাচলের সময় বেশিরভাগ মানুষ মাস্ক পরলেও পাড়া-মহল্লায় ভিন্ন চিত্র। পাড়া-মহল্লায় অযথা রাস্তা ও দোকানপাটে আড্ডাবাজির পাশাপাশি মাস্ক পরার প্রবণতাও কম দেখা যাচ্ছে। মহানগর পু’লিশের মুখপাত্র অ’তিরিক্ত উপ-কমিশনার বিএম আশরাফ উল্লাহ তাহের বলেন, পু’লিশ পুরোপুরি তৎপর রয়েছে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় জে’লা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আ’দালত লকডাউন বাস্তবায়নে ২০২ মা’মলার বিপরীতে ২ লাখ ২০ হাজার ৯০০ টাকা জ’রিমানা করেছেন। অন্যদিকে মহানগর পু’লিশ ১৬৩ টি যানবাহন আ’ট’ক, ১২০টি মা’মলা ও ৬২ হাজার ২০০ টাকা জ’রিমানা করেছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 35
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    35
    Shares

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: