সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

ইভ্যালি-ধামাকা থেকে সতর্ক থাকতে বললেন ব্যারিস্টার সুমন

ইভ্যালি ও ধামাকাসহ ১০টি ই-কমা’র্স প্রতিষ্ঠান থেকে পণ্য ক্রয় ও টাকা লগ্নির ক্ষেত্রে সবাইকে সতর্ক থাকতে বলেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

বুধবার (২৩ জুন) বিকেলে সুপ্রিম কোর্ট চত্বর থেকে ফেসবুক লাইভে ব্যারিস্টার সুমন এ আহ্বান জানান।

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, লো’ভে পাপ, পাপে মৃ’ত্যু। আমি আজ ই-কমা’র্স নিয়ে কথা বলতে চাই। ইভ্যালি, ধামাকার মতো ই-কমা’র্স কোম্পানি আছে, তাদের বিষয়ে কথা বলব। আম’রা অনলাইনে তাদের কাছ থেকে পণ্য কিনি, কম টাকায়। তারা কম টাকায় বেশি দামের পণ্য দিচ্ছে। আমি বলতে চাই, এদের নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের একটা ত’দন্ত রিপোর্ট এসেছে।

যেখানে দেখা যাচ্ছে, ইভ্যালির মোট সম্পদের চেয়ে সাড়ে ৬ গুণ বেশি দেনা আছে মা’র্কে’টে। মানে ইভ্যালির যে সম্পদ আছে তার থেকে ঋণ আছে সাড়ে ৬ গুণ বেশি। প্রায় ৪০০ কোটি টাকার মতো ঋণ আছে তাদের। অথচ মাত্র ৬০-৬৪ কোটি টাকার মতো সম্পদ আছে কোম্পানিটির। আর ব্যাংক অ্যাকাউন্টে মাত্র আড়াই কোটি টাকার মতো আছে।

আরও পড়ুন : পার্থকে জামিন দেওয়া বিচারককে দেখতে জজ কোর্টে ব্যারিস্টার সুমন

তিনি বলেন, ব্র্যাক ব্যাংক দেখলাম ইভ্যালি, ধামাকাসহ ১০টা কোম্পানির নাম বলে দিয়েছে। সেসব ই-কমা’র্স প্রতিষ্ঠান থেকে পণ্য কেনার ক্ষেত্রে ব্র্যাক ব্যাংক তাদের কোনো ক্রেডিট কার্ডই ব্যবহার করতে দেবে না। এর মানে ব্যাংকিং কোম্পানি যারা আছে তারা বুঝে গেছে, এসব ই-কমা’র্স প্রতিষ্ঠান বেশিদিন টিকে থাকবে না। ওইসব প্রতিষ্ঠানের মাইর খাওয়ার সম্ভাবনা বেশি। যারাই এসব প্রতিষ্ঠানে টাকা ইনভেস্ট করবেন, তাদের বিপদে পড়ার সম্ভাবনা বেশি।

সুমন বলেন, আমি বলছি না এখনই বিপদে পড়বেন। যারা ইভ্যালিসহ এইসব প্রতিষ্ঠান থেকে পণ্য কিনছেন তাদের প্রতি আহ্বান জানাব, যেখানে বাংলাদেশ ব্যাংক শঙ্কিত, ব্র্যাক ব্যাংকের মতো ব্যাংক ক্রেডিট কার্ড বন্ধ করে দিয়েছে। এখানে আপনারা কতটুকু ইনভেস্ট করবেন তা সতর্কভাবে করা উচিত। সরকারের উচিত এসব ই-কমা’র্স প্রতিষ্ঠান নিয়ন্ত্রণ করা। আজকে যখন এদের ৪০০ কোটি টাকা ঋণ হয়ে গেছে, এখন যতই ত’দন্ত রিপোর্ট দেন, খুব বেশি লোককে বাঁ’চাতে পারবেন বলে মনে করি না। এখনই সবাই সতর্ক হোন।

পরিশেষে একটি কথা বলতে চাই, আপনার টাকা’টা অনেক ক’ষ্টে অর্জিত। এই টাকা এভাবে নষ্ট করা ঠিক হবে না। এসব প্রতিষ্ঠান থেকে পণ্য ক্রয়ে আরেকটু সতর্ক হোন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: