সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৩২ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

৩ নম্বর ইট দিয়ে চলছে কোটি টাকার সড়কের নির্মাণকাজ

তিন নম্বর ইট দিয়ে চলছে এক কোটি ১২ লাখ টাকার সড়কের নির্মাণকাজ। বারবার বলেও ইট পরিবর্তন না করায় সড়কের নির্মাণকাজ বন্ধ করে দিয়েছে গ্রামবাসী।

স্থানীয় সূত্র জানায়, জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার কড়িয়া বাজার থেকে কদমতলী পর্যন্ত সড়ক পাকাকরণের কাজ শুরু হয়। এতে কদুবাড়ি, হাজীপাড়া, রজতপাড়া, মধ্যকড়িয়া, কড়িয়া বাজার, কামারপাড়া ও রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ হয়। এরই ধারাবাহিকতায় সড়কে বালু ফেলার কাজ শেষে ইট ফেলার কাজ শুরু হয়। কিন্তু শুরু থেকে নিম্নমানের ইট দিয়ে সড়ক নির্মাণ করছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। কয়েক দফায় গ্রামবাসী প্রতিবাদ করলেও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তোয়াক্কা না করে কাজ অব্যাহত রাখে। পরে গ্রামবাসী প্রতিবাদ জানিয়ে সড়কের কাজ বন্ধ করে দেয়।

পাঁচবিবি উপজেলা প্রকৌশল অফিস সূত্র জানায়, এলজিইডির তত্ত্বাবধানে পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় কড়িয়া বাজার থেকে কদমতলী সেতু পর্যন্ত সড়ক পাকাকরণের কাজ শুরু হয়। ২০১৯ সালের ১৭ ডিসেম্বর ১৬৩৫ মিটার সড়কের নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন জয়পুরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য সামছুল আলম দুদু। ১৬৩৫ মিটার সড়কটি পাকাকরণে ব্যয় ধরা হয়েছে এক কোটি ১২ লাখ টাকা। কাজটি করছে জাহিদ ট্রেডার্স নামের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।

কড়িয়া বাজার থেকে কদমতলী সেতু পর্যন্ত ঘুরে দেখা যায়, সড়কের দুই পাশে পুরাতন ইট ফেলে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে দুএকটা এক নম্বর ইট থাকলেও বেশিরভাগই তিন নম্বর। এসব ইট দিয়ে চলছে সড়ক পাকাকরণের কাজ।

গ্রামবাসীর অভিযোগ, এক নম্বর ইট দিয়ে সড়ক নির্মাণের কথা থাকলেও নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে তিন নম্বর ইট দিয়ে সড়ক নির্মাণ করছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। এ নিয়ে গ্রামবাসী প্রতিবাদ করলে হুমকি দেয় ঠিকাদারের লোকজন। পরে গ্রামের সবাই এক হয়ে সড়কের নির্মাণকাজ বন্ধ করে দেন।

পূর্বকড়িয়া কদুবাড়ির শাহ জামাল বাবু, আবু সুফিয়ান ও কদমতলী মোড়ের মান্নান মিয়া জানান, তিন নম্বর ইট দিয়ে সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রতিবাদের মুখে ওসব ইট সরিয়ে নিয়ে আবার রাতের আঁধারে সড়কের ওপর ফেলে যায় ঠিকাদারের লোকজন। এজন্য প্রতিবাদ করে সড়কের নির্মাণকাজ বন্ধ করে দিয়েছেন গ্রামবাসী।

আয়মা রসুলপুর ইউনিয়নের সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান বলেন, সড়ক নির্মাণে অনিয়ম হচ্ছে দেখে গ্রামবাসী প্রতিবাদ করে। গ্রামবাসীর প্রতিবাদের মুখে প্রকৌশলী বলার পর ঠিকাদারের লোকজন তিন নম্বর ইট নিয়ে চলে যান। পরে রাতের আঁধারে আবার তিন নম্বর ইট সড়কে ফেলে যায়। এ অবস্থায় প্রতিবাদ করে কাজ বন্ধ করে দেয় গ্রামবাসী।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জাহিদ ট্রেডার্সের মালিক জাহিদ ইকবাল বলেন, নিয়মনীতি মেনেই সড়কের নির্মাণকাজ করা হচ্ছে। সড়কের নির্মাণকাজ বন্ধ করে গ্রামবাসী খারাপ কাজ করেছেন।

পাঁচবিবি উপজেলার প্রকৌশলী আব্দুল কাইয়ুম বলেন, সড়ক নির্মাণকাজ বন্ধ করে দেয়ার বিষয়টি আপনার কাছে শুনলাম। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। সূত্র : জাগো নিউজ

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: