সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

পানি বেড়ে সিলেটে নতুন এলাকা প্লাবিত

সিলেটে সুরমা নদীর পানি কমলেও আসামে টানা ভা’রী বৃষ্টির কারণে বেড়ে যাচ্ছে কুশিয়ারার পানি। পানি বেড়ে ভাঙন দেখা দিয়েছে কুশিয়ারা নদীরক্ষা বাঁধের বিভিন্ন জায়গায়। প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা।

বাঁধ ভেঙে ও উপচে ব’ন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে জকিগঞ্জ, ফেঞ্চুগঞ্জ, বিয়ানীবাজার, বালাগঞ্জ, দক্ষিণ সুরমা, ওসমানীনগর ও গো’লাপগঞ্জ উপজে’লায়।

সিলেট পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) উপসহকারী প্রকৌশলী নিলয় পাশা জানান, মেঘালয়ের ঢলে সুরমা, ধলাই ও পিয়াইন নদীর পানি বাড়ে। আসাম থেকে ঢল নামলে কুশিয়ারার পানি বাড়ে। এখন ঢল নামছে আসাম থেকে। তাই কুশিয়ারা নদীর পানি বাড়ছে এবং ওই নদী তীরবর্তী এলাকায় ব’ন্যা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে।

পাউবো জানায়, কুশিয়ারা নদীর পানি এতদিন ধীরে বাড়ছিল। রোববার থেকে অস্বাভাবিক গতিতে পানি বাড়তে শুরু করে। এতে শুরু হয় বাঁধের ভাঙন।

কুশিয়ারা তীরবর্তী উপজে’লাগুলোতে লক্ষাধিক মানুষ নতুন করে পানিব’ন্দি হয়ে পড়েছে। ব’ন্যা পরিস্থিতির সবচেয়ে অবনতি হয়েছে জকিগঞ্জ উপজে’লায়।

পাউবো আরও জানায়, সোমবার পর্যন্ত জকিগঞ্জ উপজে’লায় ৩৯টি বাঁধ ভেঙে ও উপচে লোকালয়ে পানি ঢুকেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভাঙন দেখা দিয়েছে সুলতানপুর ইউনিয়নের ভক্তিপুর, সদর ইউনিয়নের রারাই, বীরশ্রীর সুপ্রাকান্দি, কাজলসারের বড়বন্দ এলাকায়। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় নতুন করে আরও ভাঙনের আশ’ঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জে নদী ও নদী তীরবর্তী এলাকা পানিতে একাকার হয়ে গেছে। দুই উপজে’লার প্রায় ৬০ শতাংশ প্লাবিত হয়েছে। বন্ধ হয়ে গেছে বালাগঞ্জ-খছরুপুর ও ফেঞ্চুগঞ্জ-বালাগঞ্জ সড়ক দিয়ে যান চলাচল।

বিয়ানীবাজার উপজে’লার ব’ন্যাকবলিত এলাকায় পানি বৃদ্ধির পাশাপাশি নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। তলিয়ে গেছে উপজে’লার চারখাই, আলীনগর, শেওলা, দুবাগ, কুড়ারবাজার ও থা’না বাজারসহ বিভিন্ন এলাকা।

ওসমানীনগর উপজে’লাতেও ব’ন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। উপজে’লার গোয়ালাবাজার, তাজপুর, দয়ামীর, বুরঙ্গা, সাদিপুর, পশ্চিম পৈলনপুর, উসমানপুর ও উম’রপুর ইউনিয়নের পুরোটাই পানিতে তলিয়ে গেছে।

তবে সুরমা’র পাশাপাশি সিলেটের ধলাই, পিয়াইন, সারি ও লো’ভা নদীর পানি কমছে। এসব নদী তীরবর্তী কোম্পানীগঞ্জ, গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর, সদর, কানাইঘাট ও বিশ্বনাথ উপজে’লার ব’ন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে।

কোম্পানীগঞ্জ উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা (ইউএনও) লুসিকান্ত হাজং বলেন, পানি খুব ধীর গতিতে কমছে। কাল সারা দিনে দুই সেন্টিমিটারও কমেনি। এখনও উপজে’লা পরিষদ ভবন পানিতে তলিয়ে আছে।

সিলেট নগরীর উঁচু এলাকা থেকেও পানি নামতে শুরু করেছে। সোমবার সিলেটের এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, শাহ’জালাল বিজ্ঞান ও প্রযু’ক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের রানওয়ে থেকে নেমেছে পানি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Comments are closed.

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: