সর্বশেষ আপডেট : ১০ ঘন্টা আগে
বুধবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

ব্ল্যাকে টিকিট বিক্রির ৬ সদস্যকে আটক

ডেইলি সিলেট ডেস্ক ::

রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশন এলাকা থেকে টিকিট কালোবাজারি চক্রের মূলহোতা মো. আব্দুল হাকিমসহ ৬ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব।

আটক অন্যরা হলেন- হাকিমের সহযোগী মো. জয়নাল আবেদীন (৫৯), মো. শামীম ওরফে সম্রাট (২৭), মো. আব্দুল জলিল (১৯), মো. খোকন মিয়া (৫৫) ও মো. উজ্জল ভূইয়া (৩৩)।

বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত কমলাপুর রেলস্টেশন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটকদের কাছ থেকে ২১টি কালোবাজারি টিকিট, ৫টি মোবাইল ফোনসেট, ৩টি সিম কার্ড, ২টি মানিব্যাগ, ১টি আইডি কার্ড এবং টিকিট বিক্রির নগদ ৯ হাজার ৮১৮ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার টিকাটুলিতে র‌্যাব-৩ এর কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক (সিও) লেফটেন্যান্ট কর্নেল আরিফ মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, কমলাপুর রেলস্টেশনে টিকিট কালোবাজারি চক্রের অন্যতম মূলহোতা আব্দুল হাকিম। তিনি সহযোগীদের নিয়ে রেলস্টেশনে লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট সংগ্রহ করেন। এছাড়াও অনলাইনেও টিকিট সংগ্রহ করেন তারা। এরপর ট্রেন ছাড়ার ৩/৪ ঘণ্টা আগে টিকিটগুলো বেশি দামে বিক্রির তৎপরতা শুরু করেন। ট্রেন ছাড়ার সময় যত এগিয়ে আসে তাদের টিকিটের দামও তত বাড়তে থাকে। সময়-সুযোগ বুঝে তারা টিকিটের দাম আরও বাড়িয়ে দেয়। ঈদের সময়ে এই চক্রের সদস্যরা ৫০০ টাকার টিকিট ২ হাজার টাকাতেও বিক্রি করেছে।

র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক জানান, এই চক্রটি মূলত তূর্ণা নিশিথা, পঞ্চগড় এক্সপ্রেস, সুন্দরবন এক্সপ্রেস, তিস্তা এক্সপ্রেস, মহানগর প্রভাতী, চট্টলা এক্সপ্রেস, জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস, ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস এবং পারাবত এক্সপ্রেস এই সকল ট্রেনের টিকিট কালোবাজারি করে থাকে। চক্রটির আরও সদস্য ইউনিট রয়েছে। প্রতিটি ইউনিটে ৫-৭ জন করে সক্রিয় সদস্য রয়েছে যারা তাদের টার্গেটকৃত ট্রেনগুলোর টিকিট কালোবাজারি করে সাধারণ যাত্রীদের কাছে চড়া দামে বিক্রি করে প্রচুর মুনাফা অর্জন করে।

আটকরা জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন, এই চক্রের মূলহোতা আব্দুল হাকিম নিজ জেলা কিশোরগঞ্জের বিভিন্ন গণ্যমান্য ব্যক্তিদের পরিচয় ব্যবহার করে এবং রেল স্টেশনে কর্মরত অসাধু একটি চক্রের যোগসাজসে ২০১৮ সাল থেকে টিকেট কালোবাজারির ব্যবসা শুরু করেন। তার অধিনস্ত ৪/৫ জন কর্মীকে দিয়ে বিভিন্ন মাধ্যমে টিকিট সংগ্রহ করে চড়া মূল্যে বিক্রি করেন।

লেফটেন্যান্ট কর্নেল আরিফ মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, কমলাপুর রেলস্টেশনে এই কালোবাজারি চক্রটির মূলহোতা আব্দুল হাকিম এবং অন্যান্য সদস্যরা মিলে রেলস্টেশনে লাইনে দাঁড়িয়ে এক একটি এনআইডি দিয়ে একাধিক টিকিট সংগ্রহ করে। এমনকি অনেক সময় তারা রিক্সাওয়ালা, কুলি, দিনমজুর এদের অল্প টাকার বিনিময়ে লাইনে দাঁড় করিয়ে তাদের মাধ্যমে টিকিট সংগ্রহ করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: