সর্বশেষ আপডেট : ৫৪ মিনিট ৫৩ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

জাতীয় পথশিশু দিবস আজ

ডেইলি সিলেট ডেস্ক ::

আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। মায়ের কোল হলো তাদের নিরাপদ আশ্রয়। আন্তর্জাতিক শিশু সনদ, শিশু আইনসহ দেশের প্রচলিত আইনে প্রতিটি শিশু তাদের সুষ্ঠু শারীরিক ও মানসিক বিকাশ লাভের জন্য শিক্ষা, খেলাধুলা, খাদ্য ও পুষ্টি, বিনোদন পাওয়ার অধিকার রাখে। শিশুদের সব ধরনের নির্যাতন ও বৈষম্যমূলক আচরণ থেকে আত্মরক্ষার ব্যবস্থার কথা বলা হয়েছে এসব সনদ ও আইনে। কিন্তু পথশিশুরা এসব অধিকার থেকে বঞ্চিত। এসব শিশু নিজেদের পথ খুঁজে পাবে কবে?

ময়লা পোশাক, জীর্ণ-শীর্ণ দেহ, এলোমেলো চুল। এবেলা খাবার জুটে তো ও বেলা নেই। কিন্তু মুখে বেশ হাসি। ৪/৫ জন মিলে চলাচল করে। ঘুমায় ফুটওভারব্রিজ কিংবা ফুটপাতে। খুব কম শিশুই জানে পরিবারের লোকজনের খোঁজ। এমনকি পরিবার কোথায় আছে সেটা জানার আগ্রহও খুব কম একটা নেই। তবে তাদের বেশ সৌহার্দ্য পূর্ণ একটা বন্ধুত্ব আছে।

এদেরই একজন রাসেল বলল, ‘আমাগো কোনো দিন ঘরবাড়ি আছিল নাকি জানি না। যহন থিকা বুঝি তহন থিকা দেখি রাস্তায়ই সব। ঘুম থিকা উইঠা আবার ঘুমাইতে যাওয়া। আমাগো সময় কাটে রাস্তায়। আব্বা আম্মাকে দেখছি ছোটবেলায়। এক দিন ঘুম থেকে উইঠা দেখি আব্বা-আম্মা নাই। কই গেছে জানি না। বাঁইচা আছে কিনা তাও জানি না।’

যে বয়সে এই শিশুদের বইয়ের ব্যাগ কাঁধে স্কুলে যাওয়ার কথা সে বয়সে তারা পথে সময় কাটাচ্ছে। দেশের প্রচলিত আইনে প্রতিটি শিশু তাদের সুষ্ঠু শারীরিক ও মানসিক বিকাশ লাভের জন্য শিক্ষা, খেলাধুলা, খাদ্য-পুষ্টি ও বিনোদন পাওয়ার অধিকার রাখে। কিন্তু আমাদের দেশের পথশিশুরা এসব অধিকার থেকে বঞ্চিত।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর সর্বশেষ আদম শুমারির তথ্য মতে, দেশের প্রায় ৪ লাখের বেশি পথশিশু রয়েছে। যার অর্ধেকই অবস্থান করছে ঢাকায়। আবার জাতিসংঘের শিশু তহবিল ইউনেস্কোর তথ্য মতে, বাংলাদেশের পথশিশুর সংখ্যা ১০ লাখের বেশি। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের তথ্য মতে, বাংলাদেশে পথশিশুর সংখ্যা ১০ লাখের বেশি।

একাকিত্বের কষ্টে, ক্ষুধার জ্বালা, মানসিক অশান্তি এমনকি হতাশার জন্য ভিড় করছে মাদকাসক্ত নামক ধ্বংসস্তূপ জীবনে। বাংলাদেশ শিশু ফোরামের তথ্য মতে, বাংলাদেশের ৮৫ শতাংশ শিশুরাই প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে মাদকাসক্তে আসক্ত।

বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা সোশ্যাল অ্যান্ড ইকোনমিক এনহ্যান্সমেন্ট প্রোগ্রামের (সিপ) এক প্রতিবেদনে বলা হয়, পথশিশুদের প্রায় ৪৪ শতাংশ মাদকাসক্ত, ৪১ শতাংশ শিশুর ঘুমানোর কোনো বিছানা নেই, ৪০ শতাংশ শিশু প্রতিদিন গোসলহীন থাকে, ৩৫ শতাংশ খোলা জায়গায় মলত্যাগ করে, ৫৪ শতাংশ অসুস্থ হলে দেখার কেউ নেই এবং ৭৫ শতাংশ শিশু অসুস্থতায় ডাক্তারের সঙ্গে কোনো ধরনের যোগাযোগ করতে পারে না।

বাংলাদেশ শিশু অধিকার ফোরামের তথ্য মতে, পথশিশুর ৮৫ ভাগ শিশু কোনো না কোনোভাবে মাদকের নেশায় জড়িত। তার মধ্যে ১৯ শতাংশ হেরোইন, ৪৪ শতাংশ ধূমপান, ২৮ শতাংশ বিভিন্ন ইয়াবা বা ট্যাবলেট জাতীয়, ৮ শতাংশ ইনজেকশন মাধ্যমে নেশা করে থাকে। বেশিরভাগ পথশিশু ১০-১৭ বছরের মধ্যেই বেশি মাদকাসক্ত হয়।

জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের তথ্য মতে, অন্য সব বিভাগের তুলনায় ঢাকা বিভাগেই মাদকাসক্ত ছেলের সংখ্যা ৩০ শতাংশ এবং মেয়ের সংখ্যা ১৭ শতাংশ।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অপর এক গবেষণায় দেখা গেছে, পথশিশুদের ৫১ ভাগ ‘অশ্লীল কথার শিকার’ হয়। শারীরিকভাবে নির্যাতনের শিকার হয় ২০ শতাংশ। সবচেয়ে বেশি যৌন হয়রানির শিকার হয় মেয়েশিশুরা। ১৪.৫ শতাংশ পথশিশু যৌন নির্যাতনের শিকার হয়। আর মেয়ে পথশিশুদের মধ্যে ৪৬ ভাগ যৌন নির্যাতন ও ধর্ষণের শিকার। এই অবস্থার মধ্য দিয়েই আজ এলো পথশিশু দিবস।

মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শিশুদের সুরক্ষায় বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছিলেন। তার ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিশুবান্ধব আইন-নীতিমালা সংশোধন ও পরিমার্জন করেছেন। পথশিশু কেন, আগে কারো জন্মনিবন্ধন ছিল না। অথচ এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বর্তমান সরকার এই কাজটি শুরু করেছে। এক্ষেত্রে জটিলতাগুলো নিরসন করা হবে।

চুমকি বলেন, পথশিশুদের সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তি রয়েছে। এই বিভ্রান্তি দূর করতে অবশ্যই দ্রুত জরিপ কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে। প্রকৃত সংখ্যা নির্ধারণ করে আগামীতে পথশিশুদের অধিকার নিশ্চিত করতে সুনির্দিষ্ট কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: