সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ৯ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

জার্মানিতে তীব্র দাবদাহে নাজেহাল গৃহহীন মানুষ

জার্মানির রাজধানী বার্লিনে সবচেয়ে কষ্টে আছে গৃহহীনরা। বার্লিনে আড়াই থেকে সাড়ে ছয় হাজার মানুষ গৃহহীন। মাথার ওপর ছাদের অভাব থাকায় দাবদাহে তারাই আছেন সবচেয়ে বেশি বিপদে। খবর ডয়চে ভেলে।

ইউরোপের বেশির ভাগ অঞ্চলের ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে তীব্র তাপদাহ। ২০ জুলাই বার্লিনে তাপমাত্রা পৌঁছায় রেকর্ড ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। বার্লিনের অধিবাসীরা ফ্যান ছেড়ে বা জানালার পর্দা নামিয়ে তাপ থেকে কিছুটা রক্ষা পাচ্ছেন। কিন্তু গৃহহীনদের জন্য সংকট ভয়াবহ। খোলা জায়গায় রাত কাটানো গৃহহীনদের শরীর ঠান্ডা করার জন্য নেই কোনো ব্যবস্থা।

গত কয়েক দিন থেকে দক্ষিণ ইউরোপের দেশগুলোতে প্রচণ্ড গরম ও দাবানলের পর এখন মধ্য ও উত্তর ইউরোপের দেশগুলোতে দাবদাহ ছড়িয়ে পড়েছে। এই চরমভাবাপন্ন আবহাওয়ায় কয়েকশ ব্যক্তি মারা গেছেন আর গরমের শিকার হচ্ছে শত শত মানুষ।

বার্লিনের শ্যোনেব্যার্গ জেলায় চালু হয়েছে ‘হিটৎসেহিল্ফে’ বা ‘গরমে সহায়তা’ নামের একটি প্রকল্প। বার্লিন সিনেটের অর্থায়নে এই পাইলট প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে আইবি বার্লিন-ব্রান্ডেনবুর্গ। এতে খরচ হয়েছে ১ লাখ ৬ হাজার ইউরো। এর আওতায় একটি বাড়িতে সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত গৃহহীনদের আধা ঘণ্টার জন্য বিশ্রামের বিছানা এবং স্নানের জন্য বাথরুমের ব্যবস্থা করেছে তারা।

ভবনটি মূলত শীতকালে ‘কাল্টেহিল্ফে’ বা ‘শীতের সহায়তা’ প্রকল্পের আওতায় গৃহহীনদের রাত্রিযাপনের উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত হতো। তবে এখন তীব্র গরমে দিনের বেলায়ও এর প্রয়োজন আরও বেশি দেখা দিয়েছে। শ্যোনেব্যার্গ জেলা কর্তৃপক্ষই এ ভবন বরাদ্দের ব্যবস্থা করেছে। নিদ্রা এবং স্নান ছাড়াও গৃহহীনদের জন্য বিনা মূল্যে খাবার ও শীতল পানীয়র ব্যবস্থাও রয়েছে এখানে।

বার্লিনের অন্য অনেক গৃহহীনের মতো ‘গরমে সহায়তা’ নামের প্রকল্পে তীব্র গরমে আশ্রয় জুগিয়েছে বুলগেরিয়া থেকে অনেক মানুষ। তারা সীমিত সময়ের জন্য এসে এখানে নিজের প্রশান্তি খুঁজে নিচ্ছেন। প্রচণ্ড গরমে কয়েক ঘণ্টা মাথা গোঁজার ঠাঁই এবং ঠান্ডা জলে স্নান তাদের জোগাচ্ছে সারা দিনের চলার শক্তি।

শুরুতে কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে এমন পদক্ষেপকে সন্দেহের দৃষ্টিতে দেখছিলেন অনেকেই। কিন্তু ধীরে ধীরে তারা এ প্রকল্পে আস্থা অর্জন করতে শুরু করেছেন। এখন গৃহহীনদের অনেকেই এই আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়মিত আসতে শুরু করেছেন।

চরম তাপমাত্রার বিপদ সম্পর্কে বার্লিনের বাসিন্দাদের সচেতন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বার্লিনের বাম দলের রাজনীতিবিদ সিনেটর কাটিয়া কিপিং। তিনি বলেন, শীতকালে ‘শীতের সহায়তা’ প্রকল্পের জন্য হটলাইন নম্বর অনেকের কাছেই রয়েছে। কিন্তু গ্রীষ্মের তীব্রতার ব্যাপারটি অনেকেরই জানা ছিল না।

জার্মান মিউনিসিপ্যালিটিজ অ্যাসোসিয়েশন বিদ্যমান খরার কারণে জার্মানির বেশ কিছু অঞ্চলে পানির ঘাটতির বিষয়ে সতর্ক করেছে। জার্মানির দ্য জাইট পত্রিকা ‘এই গ্রীষ্মে ইউরোপে আগুন’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে বলেছে, দক্ষিণ ইউরোপে ফ্রান্স, স্পেন, ইতালি, ক্রোয়েশিয়া, পর্তুগাল, গ্রিসের বনভূমিগুলোতে দাবানল চলছে। এতে বর্তমান ক্ষতি পুনরুদ্ধার করতে কয়েক বছর সময় লাগবে।

এ ছাড়া দাবানলের খপ্পরে হাজার হাজার অবকাশযাপনকারী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। লাগাতার গরমে এসব দেশের কৃষিকাজও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এ ছাড়া বনভূমিতে অগ্নিকাণ্ডের কারণে বহু মানুষকে বাড়িঘর ছাড়তে হয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: