সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

সুনামগঞ্জে দেখা দিয়েছে তীব্র খাদ্য সংকট

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সুনামগঞ্জে গত চার দিন ধরে ভ’য়াবহ ব’ন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। ইতোমধ্যে খাদ্য ও নিরাপদ পানির সংকটে পড়েছেন সুনামগঞ্জবাসী।

উজানের ঢলের পানিতে সুনামগঞ্জ শহরসহ ১২টি উপজে’লা প্লাবিত হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন পানিব’ন্দি ৫ লাখ মানুষ। ডুবে গেছে শহরের সরকারি, বেসরকারি প্রতিটি অফিসসহ অলিগলি, পাড়া মহল্লা, দোকানপাট, ফার্মেসি ও রেস্তোরাঁ। বিদ্যুৎ, গ্যাস এমনকি মোবাইল নেটওয়ার্ক নেই টানা তিনদিন ধরে।

এরইমধ্যে দেখা দিয়েছে খাবারের জন্য হাহাকার। বাজারের সকল দোকানপাট বন্ধ থাকায় খাবারের সন্ধানে ছোট নৌকা ও হেঁটেই বের হচ্ছেন অসহায় মানুষগুলো। অনেকে বাজারে কোনো খাবার না পেয়ে কাঁঠাল কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। আবার অনেকে দ্বিগুণ দামে কলা-বিস্কিট কিনে রাস্তায় বসে খাচ্ছেন। এমন পরিস্থিতিতে জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেকেই।

এদিকে সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার, ছাতক, তাহিরপুর, বিশ্বম্ভরপুর উপজে’লার মানুষ এখনও পানিব’ন্দি অবস্থায় রয়েছেন। তাদের উ’দ্ধার করতে সুনামগঞ্জে সে’নাবাহিনী ৩০টি রেসকিউ বোট নিয়ে আসছে বলে জানিয়েছেন সুনামগঞ্জের জে’লা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন।

জে’লা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, সুনামগঞ্জের ২২০টি আশ্রয়কেন্দ্রে ৬৫ হাজারের বেশি মানুষ আশ্রয় নিয়েছে। যারা পানিব’ন্দি অবস্থায় আছেন তাদের উ’দ্ধার করে আম’রা আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে আসছি। আমাদের সহযোগিতার জন্য বাংলাদেশ সে’নাবাহিনী ৩০টি রেসকিউ বোট নিয়ে সুনামগঞ্জে উ’দ্ধার কাজ চালাবে।

পানিব’ন্দি মানুষরা জানান, বাজারে প্রতিটি দোকান পানির নিচে। এরমধ্যে বাজারে কোনো খাবার নেই। ছে’লে মে’য়ের পেটের ক্ষুধা মেটাতে কাঁঠাল কিনে নিয়ে যাচ্ছি।

সুনামগঞ্জ পৌর শহরের কালীপুর এলাকার বাসিন্দা নূর হোসেন জানান, দুই দিন ধরে না খেয়ে আছি ছে’লে-মে’য়ে নিয়ে। এখন পানি পার হয়ে বাজারে এসেছি খাবার নেওয়ার জন্য, কিন্তু কোনো খাবার পাইনি। অবশেষে একটি কাঁঠাল নিয়ে যাচ্ছি ছে’লে-মে’য়ের জন্য।

সুনামগঞ্জ পৌর শহরের কালীপুর এলাকার বাসিন্দা নূর হোসেন জানান, অনেক ক’ষ্টে দিন যাচ্ছে। কোনো খাবার নেই। তাই ১০ টাকা দামের বিস্কিট কিনে নিয়ে যাচ্ছি ছে’লে মে’য়ের জন্য।

বিশ্বম্ভরপুর উপজে’লার বাসিন্দা আরিফুর রহমান জানান, ঘরের ভেতরে পানি। ছে’লে মে’য়েকে নিয়ে পানির ওপরে মাঁচা বেঁধে আছি। খাবারের সন্ধানে আমি পানি ভেঙে সুনামগঞ্জে এসেছি, কিন্তু পাইনি।

সুনামগঞ্জের জে’লা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, আম’রা ব’ন্যার্ত মানুষের পাশে থাকার সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। রান্না করা খাবার বিতরণ করছি। যারা পানব’ন্দি তাদের উ’দ্ধারচেষ্টা অব্যাহত আছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: