সর্বশেষ আপডেট : ৪২ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২৫ জুন ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

ঢালাইয়ের একদিন পরই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজে’লায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) আওতায় বেশ কয়েকটি পুরনো সড়ক সংস্কার কাজে শিডিউল বহির্ভূতভাবে ব্যাপক অনিয়মের অ’ভিযোগ উঠেছে। সড়ক ঢালাইয়ের একদিন পর উঠে আসছে কার্পেটিং। সড়ক পাঁচটি নির্মাণে ব্যবহৃত হয়েছে নিম্নমানের ইটের খোয়া,ইট-বালু। এর মধ্যে একটি সড়কের পিচ ঢালাইয়ে পুরাতন পাথর,বজুরি ও নিম্নমানের বিটুমিন ব্যবহার করা হয়েছে।

সড়কগুলো হলো- ১ কোটি ৬৮ লাখ টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে উপজে’লার পরিষ্কার বাজার থেকে ছিদ্দিক মেম্বারের দোকান পর্যন্ত ৪ হাজার মিটার সড়ক। কাজটি পেয়েছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মোস্তফা অ্যান্ড সন্স। মাঠ পর্যায়ে কাজটি করছেন কা’ম’রুল ইস’লাম নামে এক ঠিকাদার। ১ কোটি ৬৮ লাখ টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে আ’ট’কপালিয়া বাজার থেকে পরিষ্কার বাজার পর্যন্ত ২৩০০ মিটার সড়কের কাজটি পেয়েছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স মা এন্টার প্রাইজ। ঠিকাদার মো. গিয়াস উদ্দিন নিজেই কাজটি করছেন। ৮নং মোহাম্ম’দপুর ইউনিয়নের আক্তার মিয়ার বাজার থেকে বেড়ি পর্যন্ত ১ হাজার ৯২২মিটার সড়কের কাজটি সম্পন্ন করেছেন নান্টু নামে এক ঠিকাদার। উপজে’লার চরক্লার্ক ইউনিয়নের জনতা বাজার থেকে বাংলা বাজার পর্যন্ত ১ কোটি ৪৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ৩ হাজার ৫০০ মিটার সড়কের কাজটি পেয়েছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মোস্তফা অ্যান্ড সন্স। মাঠ পর্যায়ে কাজটি করছে ঠিকাদার কা’ম’রুল ইস’লাম। উপজে’লার ভূঞার হাট থেকে জোবায়ের মিয়ার বাজার কৃষি ইনস্টিটিউট পর্যন্ত ১ কোটি ২৮ লাখ টাকা ব্যয়ে ২ হাজার ২৯মিটার সড়কের কাজটি পেয়েছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মিজান এন্টার প্রাইজ। ঠিকাদার নিজেই কাজটি করছে।

সরকারের জিওবি মেইনটেনেন্স প্রকল্পের আওতায় এলজিইডি সুবর্ণচর উপজে’লা কার্যালয়ের তত্ত্বাবধানে চলছে এই সড়কগুলোর নির্মাণ কাজ।

স্থানীয়দের অ’ভিযোগ, সড়কগুলো নির্মাণে নিম্নমানের ইটের খোয়া,বালু ও ইট ব্যবহার করা হয়েছে। পিচ ঢালাইয়ের একদিন পরই সড়কের বেশ কিছু জায়গা থেকে স্থানীয়রা হাত দিয়ে নতুন কার্পেটিং তুলছে। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ভাই’রাল হয়েছে। নিম্নমানের এ কাজ নিয়ে ফেসবুক লাইভে এসে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন স্থানীয় ইউপি সদস্য খলিল। এতে কোনো প্রতিকার পাননি বলে অ’ভিযোগ করে বলেন, সর্বশেষ ঠিকাদার নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে পিচ ঢালাইয়ের কাজ শেষ করে।

তাদের অ’ভিযোগ, শিডিউলের তোয়াক্কা না করে ইচ্ছেমতো পাঁচটি সড়কে নিম্নমানের কাজ করছেন ঠিকাদার। শুরু থেকেই ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানগুলো তড়িঘড়ি করে এসব অনিয়ম করে চলছে। এজেন্টে নিম্নমানের ইট, ইটের খোয়া ও নিম্নমানের বালু ব্যবহার করা হয়েছে। এতে বেশ কয়েকটি স্থানে সড়কের কাজে বাধা দেয় এলাকাবাসী। এ নিয়ে এলাকাবাসী সুবর্ণচর উপজে’লা প্রকৌশলী বিভাগকে মৌখিকভাবে জানিয়েও ফল পায়নি এলাকাবাসী। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী বলছেন, নির্মাণের একদিন পর হাত দিয়ে টানলে কার্পেটিং উঠে যাচ্ছে। স্থানীয়দের অ’ভিযোগ, উপজে’লা প্রকৌশলী মো. জালাল ও সহকারী প্রকৌশলী সাজেদুল বারীর যোগসাজশে সুবর্ণচর উপজে’লায় সড়ক নির্মাণে নিম্নমানের কাজ হচ্ছে। স্থানীয়রা নিম্নমানের কাজের প্রতিবাদ করলে ঠিকাদাররা চাঁদাবাজির মা’মলার ভ’য় দেখান।

সরজমিন দেখা গেছে, সড়কে নিম্নমানের ইটের খোয়া, বালু দিয়ে কাজ চলছে। শ্রমিকরা বলছেন, ঠিকাদার যে রকম ইট-বালু দিচ্ছেন, তা দিয়েই তাদের রাস্তা নির্মাণ করতে হচ্ছে। একাধিক শ্রমিক নিম্নমানের ইট ও ইটের খোয়া ব্যবহারের বিষয়টি স্বীকারও করেন। এই সড়কগুলোর বিষয়ে গণমাধ্যমকর্মীকে তথ্য দিতে তালবাহানা করে সংশ্লিষ্ট তদারকি প্রতিষ্ঠান।

নিম্নমানের কাজের বিষয়ে জানতে চাইলে ঠিকাদার কা’ম’রুল ইস’লাম, শিফটন, নান্টু ও গিয়াস উদ্দিন অ’ভিযোগ অস্বীকার করেন। তারা দাবি করেন, শিডিউল অনুযায়ী কাজ করেছেন তারা। ঠিকাদার কা’ম’রুল ইস’লাম বলেন, আমা’র কাজে কিছু খা’রাপ পাথর গেছে। অফিস বলছে এসব পাথর দিয়ে কাজ করা যাবে না। এর বাইরে কোনো অনিয়ম হয়নি বলে দাবি করেন তিনি। ঠিকাদার শিফটন বলেন, তিনি খা’রাপ কাজ করার মত ঠিকাদার নয়।

সুবর্ণচর উপজে’লা প্রকৌশলী মো. জালাল নিম্নমানের কাজে তদারকি প্রতিষ্ঠানের কর্মক’র্তাদের যোগসাজশের অ’ভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, রাতের অন্ধকারে পুরাতন সামগ্রী দিয়ে সড়কের পিচ ঢালাই করা হয়েছে। এটা দু’র্নীতি। কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আম’রা তাদের বি’রুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

এদিকে এলাকাবাসী ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের ওপর দোষ দিচ্ছেন। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের ভূমিকা না থাকায় নিম্নমানের কাজ হচ্ছে বলে দাবি করেন তারা।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: