সর্বশেষ আপডেট : ৪৬ মিনিট ২১ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

সুনামগঞ্জে স্বামী মাদ্রাসা সুপার, হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর দিয়ে বেতন নিচ্ছেন স্ত্রী’!

স্বামী মাদ্রাসার সুপার। তিনি সহকারী শিক্ষিকা। সুপার স্বামীর বদৌলতে ক্লাস না করেই সপ্তাহে এক-দুইবার কিছু সময়ের জন্য এসেই হাজিরা খাতায় কেবল স্বাক্ষর দিয়ে মাসের পর মাস বেতন-ভাতা তুলে নেন ওই শিক্ষিকা।

অ’ভিযু’ক্ত নার্গিস মনির সুনামগঞ্জ জে’লার শান্তিগঞ্জ উপজে’লার হাজী আক্রম আলী দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষিকা।

মাদ্রাসাটি এমপিওভুক্ত হলেও সরকারি নীতি-নিয়মের বাহিরে এখানে চলে সুপার রফিকুল ইস’লামের রাজত্ব। এখানে তাঁর কথাই তৈরি হয় নতুন আইন নতুন নিয়ম। প্রতিষ্ঠান পরিচালনায় স্বেচ্ছাচারিতা, অনিয়ম-দু’র্নীতির অনেক অ’ভিযোগ রয়েছে সুপার রফিকুল ইস’লামের বি’রুদ্ধে।

জানা গেছে, জালিয়াতি ও দায়িত্বে অবহেলাসহ কয়েকটি অ’ভিযোগে গত দুই’মাস ধরে বন্ধ রয়েছে সুপারের বেতন। মাধ্যমিক ও উচ্চ’মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর এবং মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরে তাঁর বি’রুদ্ধে একাধিক অ’ভিযোগ ত’দন্ত চলমান রয়েছে। এমন অবস্থায়ও থেমে থাকেনি মাদ্রাসা সুপার রফিকুল ইস’লামের অনিয়ম-দৌরাত্ম্য। সুপার ও সহকারী শিক্ষিকা স্ত্রী’র স্বেচ্ছারিতায় এমপিওভুক্ত এই প্রতিষ্ঠানটি অনিয়মের স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়েছে।

মাদ্রাসা সূত্রে জানা যায়, ২০১০ সালে হাজী আক্রম আলী দাখিল মাদ্রাসাটি এমপিওভুক্ত হয়। তৎকালীন সময়ে অন্যান্য শিক্ষকের সাথে স্ত্রী’ নার্গিস মনিরকেও সহকারি শিক্ষিকা হিসেবে এমপিওভুক্ত করেন। অ’ভিযোগ রয়েছে নার্গিস মনিরের শিক্ষাগত যোগ্যতা ও অন্যান্য নথিপত্রে অনিয়ম করে স্ত্রী’কে নিজের প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেয়ার। সহকারি শিক্ষিকা নার্গিস মনির রয়েছে বিস্তর অ’ভিযোগ। সুপার স্বামীর প্রভাব দেখিয়ে দায়িত্ব পালন গাফিলতি ও বিনাশ্রমে বেতনভাতা ভোগ করে আসছেন তিনি।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, নার্গিস মনির মাদ্রাসায় ক্লাস না করেই কেবল স্বাক্ষর দিয়ে সরকারি বেতনভাতাসহ মাদ্রাসার সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করে আসছেন দীর্ঘদিন ধরে। সপ্তাহে একদিন কিংবা দুইদিন কিছু সময়ের জন্য মাদ্রাসায় আসেন তিনি। ক্লাস করতে নয় হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর দিতে। অনুপস্থতি দিনের স্বাক্ষর দিয়েই কোনো ধরণের ছুটির আবেদন ছাড়াই বাড়িতে চলে যান তিনি। এমন তথ্যের সত্যতা যাছাই করতে সপ্তাহ সময় মাদ্রাসায় গো’পন পর্যবেক্ষণে রাখেন অনুসন্ধ্যানী প্রতিবেদক।

চলতি সপ্তাহের শনি, রবি এবং সোমবার মাদ্রাসায় আসেননি তিনি। হাজিরা খাতায় সকল শিক্ষক স্বাক্ষর দিলেও নার্গিস মনির মাদ্রাসায় না আসাতে স্বাক্ষর দিতে পারেননি। এই প্রতিবেদকের কাছে হাজিরা খাতার অনুপস্থিতির ছবি প্রয়োজনীয় নথি সংগ্রহিত রয়েছে। এদিকে সোমবার দুপুরে ১০ মিনিটের জন্য বিদ্যালয়ে এসে অনুপস্থিত সকল দিনের স্বাক্ষর দিয়ে কোনো ধরণে ছটির আবেদন ছাড়াই বাসায় ফিরে চলে যান তিনি। সহকারি শিক্ষিকা নার্গিস মনিরের এমন কার্যকলাপ নিত্যদিনের বলে জানিয়েছেন একাধিক শিক্ষক ও শিক্ষার্থী।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষক বলেন, নার্গিস মেডাম তো কোনো ক্লাস করেন না। তিনি কেবল মাদ্রাসা আসেন স্বাক্ষর দিতে। স্বাক্ষর দিয়ে আবার চলে যান। তাঁর স্বামী মাদ্রাসার সুপার তাই ছুটি নিতে হয় না। জবাবদিহী করতে হয় না।
এ ব্যাপারে মাদ্রাসা শিক্ষিকা নার্গিস মনিরের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

মাদ্রাসা না এসে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর দেয়ার সত্যতা কারন জানতে মাদ্রাসা সুপার রফিকুল ইস’লাম বলেন, তিনি আজকে এসেছিলেন, দুপুরে চলে গেছেন। তিনি একটু অ’সুস্থ তাই মাঝে-মধ্যে ক্লাসে আসতে পারেন না।

এক প্রশ্নের জবাবে রফিকুল ইস’লাম বলেন, অনুপস্থিত থেকে নার্গিস মনিরের স্বাক্ষর দেয়ার বিষয়টি আমা’র জানা নেই।
তবে এ সময় শিক্ষক হাজিরা খাতা নিয়ে এসে লাল কালি দিয়ে নার্গিস আক্তারের স্বাক্ষর মেটানোর চেষ্টা করেন।

দিনের পর দিন মাদ্রাসা অনুপস্থিত থাকলেও কেন কোনো ছুটির আবেদন করেননি নার্গিস? এমন প্রশ্নের জবাবে রফিকুল বলেন, নিয়ম সবার জন্য সমান। অনুপস্থিত থাকলে অবস্যই ছুটির আবেদন করতে হবে। আমা’র স্ত্রী’ বলে কথা নয়।

এ ব্যাপারে উপজে’লা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, একজন শিক্ষক ক্লাস না করে অনুপস্থিত থেকে কেবল স্বাক্ষর দিয়ে বেতন-ভাতা তুলবেন- এটি বিবেকহীনতা। আমি বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখবো। সত্যতা পেলে শিক্ষিকার বি’রুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সৌজন্যঃ সিলেটভিউ

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: