সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ১ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

সৌদির সম্ভ্রান্ত ই’মাম পরিবারের ছে’লে দুর্ধ’র্ষ মোবাইল চো’র!

কমলাপুর রেলস্টেশন ম্যানেজারের ফোন চু’রির আ’লোচিত ঘটনা ত’দন্ত করতে গিয়ে দুর্ধ’র্ষ এক চো’র চক্রের সন্ধান পেয়েছে গোয়েন্দা পু’লিশ।

ত’দন্তে জানা গেছে, সেদিন সাংবাদিকদের পকেট মা’রতেই ম্যানেজারের রুমে ঢুকেছিল চো’র। ম্যানেজারের ফোন চু’রির কোনো পরিকল্পনা আগে ছিল না চো’র চক্রের।

একজন চো’র যিনি কি না সৌদি আরবের সম্ভ্রান্ত ই’মাম পরিবারের ছে’লে। সেখানেই শুরু করেন গাড়ি চু’রি। পরে জে’ল খেটে, দেশে ফিরে মা’দকের ছোবলে আবারও বাঁকা পথে পা বাড়ান। মা’দকের টাকা যোগাড় করতেই জড়িয়ে পড়েন চো’র চক্রের সাথে। এই চক্রের ৩ সদস্যকে আ’ট’ক করেছে গোয়েন্দা পু’লিশ।

এর আগে, গত ২৩ এপ্রিল বেলা ১২টায় ইদের আগাম টিকেট ইস্যুতে গণমাধ্যমকর্মীদেরকে ব্রিফ করছিলেন কমলাপুরের স্টেশন ম্যানেজার। অন্তত ১৫ টিভি ক্যামেরার সামনেই টেবিলের উপরে থাকা তার ফোন-মানিব্যাগ নিয়ে চ’ম্পট দেয় এক চো’র। স্টেশনে থাকা সিসিটিভি ফুটেজে ধ’রা পড়ে সট’কে পড়ার দৃশ্য। দেশব্যাপী তখন তুমুল আলোচনা হয় এটা নিয়ে। চু’রি ও ফোন জ’ব্দের ঘটনায় কমলাপুর রেলওয়ে থা’না ও রাজধানীর বংশাল থা’নায় দুটি মা’মলাও হয়েছে।

পাজামা-পান্জাবি ও টুপি পরা অ’ভিযু’ক্ত যাকে সেদিনের সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, তিনি আজিজ মোহাম্ম’দ। আজিজের পরিবার সৌদিতে বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত একটি সম্ভ্রান্ত পরিবার। তার বাবা ম’ক্কার একটি এতিহ্যবাহী ম’সজিদের ই’মাম ও খতিব।

জানা গেছে, পড়াশোনা শেষে চাকরি করতে করতে আজিজ জড়িয়ে পড়েন খা’রাপ সঙ্গে। শুরু করেন গাড়ি চু’রি। সৌদিতে বিএমডাব্লিউ, মা’র্সিডিজসহ অন্তত ৮টি দামি গাড়ি চু’রি করেছেন তিনি।

স্টেশন ম্যানেজারের ফোন চু’রির ঘটনায় অ’ভিযু’ক্ত আজিজ মোহাম্ম’দ বলেন, সৌদি আরবে খা’রাপ বন্ধু-বান্ধবের সাথে মিশে গাড়ি চু’রি করা শুরু করি। বিভিন্ন ধরনের গাড়ি এক্সিস বা মা’র্সিডিজ ইত্যাদি। সর্বশেষ একটা হ্যামা’র গাড়ি চু’রি করি যার পার্টস খুলে খুলে বিক্রি করেছি।

জানা গেছে, সৌদিতে তিন বছর জে’ল খেটে পরিবারচ্যুত হন আজিজ। পরে দেশে ফিরে কক্সবাজারের একটি মাদ্রাসায় ভাল চাকরি করতেন। সেটা করতে করতেই ইয়াবায় আসক্ত হন। হারান চাকরি, শুরু করেন চু’রি। মানুষের ফোন, মানিব্যাগ যেখান থেকে যেভাবে পেরেছেন চু’রি করে নামমাত্র দামে বিক্রি করে দিতেন মা’দকের খরচ যোগাতে।

২৩ এপ্রিলের ঘটনার দিনের কথাও আজীজ স্বীকার করেন নিজের মুখে। তিনি বলেন, আমি ঢুকেছিলাম পকেটমা’রার জন্য। মূলত সাংবাদিকদের পকেট মা’রার জন্যই ঢুকেছিলাম। ম্যানেজারের মোবাইলটা আমা’র পরিকল্পনাতেই ছিল না। দেখলাম যে ম্যানেজার তার দুইটা মোবাইল বের করে সামনে টেবিলের ওপরে রেখে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলছিলেন, তখনই চু’রির সুযোগ পেয়ে যাই।

আজিজের সাথে রনি ও জাকির হোসেন নামে তার ২ সহযোগীকেও আ’ট’ক করেছে ডিবির গুলশান বিভাগ। যারা কম’দামে চো’রাই ফোন কিনে পার্টস আলাদা করে বাইরে বিক্রি করতো। পু’লিশ বলছে, মা’দকের ছোবলে একজন প্রতিষ্ঠিত আলেম হয়ে পরে, চো’র বনে যাওয়া বেশ উদ্বেগের।

এ প্রসঙ্গে ডিএমপি ডিবি’র উপ-কমিশনার মশিউর রহমান বলেন, তার মতো একজন দ্বিনদার মানুষ, সে মা’দকাসক্তির কারণে রাস্তায় পকেট মা’রবে, এটা আমাদের কাছে খুবই আনকমন মনে হয়েছে। বিষয়টি খুবই উদ্বেগের।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: