সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
সোমবার, ৮ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

নবীগঞ্জে ভাগিনার হাত ধরে স্বামীর ঘর ছাড়লেন মামী

হবিগঞ্জ জে’লার নবীগঞ্জ উপজে’লার দেবপাড়া ইউনিয়নের দেবপাড়া গ্রামের পশ্চিমে বিজনা নদীর পাড়ে অবস্থিত অসহায় দিন মজুর আমিন মিয়ার বাড়ী৷ তিনি পেশায় একজন অটো রিকশা শ্রমিক, ২০১১ সালে বিয়ে করেন আমিরুন আক্তারকে৷ তাদের ঔরসজাত দু’টি শি’শু সন্তানও রয়েছে তাদের সংসারে, বড় ছে’লে কা’ম’রুল (৯) ছোট ছে’লে সাইদুর (৭), সংসার জীবনে তারা মোটামুটি সুখ শান্তিতেই কা’টাচ্ছিলেন৷

আমিন মিয়া জানান,২০২১ ইং গত বছর থেকে আমিরুন আক্তার তারই পাড়া প্রতিবেশী মৃ’ত বাদশা মিয়ার ছে’লে তার স’ম্পর্কে ভাগিনা মকবুল নামের ১৬ বছর বয়সী কি’শোরের সাথে পর’কী’য়া প্রে’মে আসক্ত হন তিনি, কয়েকবার ঘরথেকেও পালিয়ে যান মকবুলের হাতধরে৷ তবে গ্রামবাসী ও স্থানীয় সামাজিক বিচারের মাধ্যমে এমন অ’পকর্মে আর কখনো জ’ড়িত হবেননা ম’র্মে তাকে আবারো তৎকালীন সময়ে দিনমজুর শ্রমিক আমীনের ঘরে দেয়া হয়৷

এদিকে এরই জেরধরে গত ১২ ফেব্রুয়ারী হবিগঞ্জ নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে হলফনামায় আমিরুন আক্তার তার স্বামীকে তালাক প্রদান করে গো’পনে গো’পনে মকবুলের সাথে আবারো পর’কী’য়ায় আসক্ত হয়ে পড়েন৷

এ ঘটনার পর আবারো পাড়া প্রতিবেশী তাকে আমীনের সংসারে থাকার জন্য অনুরোধ করে মকবুলের সঙ্গ ত্যাগ করার জন্য অনুরোধ জানান৷ তবে আমিরুন আক্তার সে তার সিদ্ধান্তে অটল, সে তার পর’কী’য়া প্রে’মিক ভাগিনা মকবুলের হাতধরে গত মঙ্গলবার আবারো দিনদুপুরে পালিয়ে গিয়ে মকবুলের বাড়িতে চলে যায়৷

এদিকে মকবুলের পরিবার এই স’ম্পর্ক মেনে না নেওয়াতে স্থানীয় সংরক্ষিত ইউপি মহিলা সদস্য মায়ারুন বেগম সহ এলাকার সামাজিক বিচারকদের মাধ্যমে আমিরুন আক্তারকে তার পূর্বের স্বামীর ঘরে দিতে চাইলে সে তা অনীহা প্রকাশ করে বলে ম’রতে হলে মকবুলের ঘরেই ম’রবো, তবুও সে আর কোথাও যাবেনা,যেহেতু মকবুল তাকে ভালবেসে হাত ধরে নিয়ে এসেছে সে মকবুলের কাছথেকে স্ত্রী’’র ম’র্যাদা চায়৷ অ’পরদিকে কি’শোর মকবুলের অ’প্রাপ্ত বয়স হওয়াতে সামাজিক বিচারকেরা পড়েন বেকায়দায় তারা কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেননি বলেও অনেকেই বলেন৷

তবে আমিরুন আক্তার এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মকবুলের ঘরেই অবস্থান করছেন এবং এ প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন তিনি মকবুলকেই চান৷

এদিকে তার পূর্বের স্বামী আমিন মিয়া তার দু’টি অবুঝ শি’শু সন্তান নিয়ে পড়েছেন চরম বিপাকে ৷ প্রতিনিধিকে তিনিও বলেন ভাইজান একবার নয়, আমা’র স্ত্রী’ আমিরুন এনিয়ে ৩ বারের মতো আমা’র ঘরথেকে পালিয়ে গেল এবং আমা’র উপরে মিথ্যা অ’পবাদ দিয়ে নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে আমাকে তালাক প্রদান করলো,আমিও আমা’র সন্তানেরা এই আমিরুনকে আর চাইনা৷

এব্যাপারে স্থানীয় মহিলা ইউপি সদস্য মায়ারুন বেগমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন স্থানীয় ময়মুরুব্বিয়ান সহ গোপলার বাজার পু’লিশ ত’দন্ত কেন্দ্রের পু’লিশের সহায়তায় রমজান মাসের পূর্বেও আরেকবার এ বিষয়টি সুরাহা করেছিলেন তারা,তবুও আমিরুন আক্তার বারংবার এমন অ’পকর্মে লিপ্ত রয়েছেন৷ যাহা সামাজিকভাবে কখনোই মেনে নেবার মতো নয়৷

এ বিষয়ে পর’কী’য়া প্রে’মিক মকবুলের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেো তা সম্ভব হয়নি৷ সে সাংবাদিকদের উপস্থিতি টেরপেয়ে গা ঢাকা দেয় ৷উক্ত ঘটনায় এলাকায় নানা ধরনের মুখরোচক আলোচনা ও সমালোচনার ঝড় বইছে৷

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: