সর্বশেষ আপডেট : ৬ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ৭ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

সুনামগঞ্জে বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে ভয়াবহ পরিস্থিতির আশঙ্কা

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সুনামগঞ্জের নদ-নদীর পানি আবারও বাড়ছে। বৃষ্টির পানি ও উজানের ঢল এক হয়ে ভ’য়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে বলে আশ’ঙ্কা করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) সকালে সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শামসুদ্দোহা এ তথ্য নিশ্চিত করেন। এর আগে মঙ্গলবার (১৮ এপ্রিল) রাত ১১টা থেকে সুনামগঞ্জে বজ্রসহ বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে।

জানা গেছে, আগামী ২৪ ঘণ্টায় আরও বাড়তে পারে পানি। এরই মধ্যে ভা’রতের মেঘালয়, আসাম ও অরুণাচল প্রদেশে বৃষ্টিপাতের ফলে উজান থেকে নেমে আসা পানির প্রবাহ অনেক বেড়েছে। সেই সঙ্গে সুনামগঞ্জে শুরু হয়েছে বৃষ্টিপাত। এদিকে বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা পানির প্রবাহ ও বৃষ্টিপাতের কারণে সুরমা, র’ক্তি, বৌলাই, চলতি, যাদুকা’টা, খাসিয়ামা’রা ও পুরাতন সুরমাসহ সব নদীতে পানি বেড়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, আগামী ২৪ ঘণ্টায় সিলেটে পানি কমলেও বাড়বে সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ, নেত্রকোনা ও কি’শোরগঞ্জের নদ-নদীর পানি। চলতি বছর জে’লায় ২ লাখ ২২ হাজার ৮০৫ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। ৩ এপ্রিল থেকে ১৭ তারিখ পর্যন্ত ধ’র্মপাশা, শাল্লা, ছাতক, দিরাই, তাহিরপুর উপজে’লার হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ ভেঙে তলিয়ে গেছে ৬ হাজার হেক্টর জমির ফসল। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হন প্রায় ৩০ হাজার কৃষক।

তাহিরপুর উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা (ইউএনও) রায়হান কবীর বলেন, উজানের ঢলে তাহিরপুরের হাওরগুলোতে পানির চাপ বাড়ছে। বাঁধ টিকিয়ে রাখার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে পানি আরও বাড়লে পরিস্থিতি ভ’য়াবহ হতে পারে।

সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শামসুদ্দোহা বলেন, আগামী ২৪ ঘণ্টায় সুনামগঞ্জের পানি ধীরে ধীরে বাড়তে পারে। একই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিপৎসীমা’র কাছাকাছি যেতে পারে।

তিনি আরও বলেন, বিষয়টি নির্ভর করছে উজানের ঢল নামা’র ওপর। ঢল নামলে পরিস্থিতি খা’রাপ হতে পারে। না নামলে ভালো হবে। এখন পানি স্থির আছে।

জে’লা কৃষি সম্প্রসারণ অধিপ্তরের উপপরিচালক বিমল চন্দ্র সোম বলেন, সোমবার (১৭ এপ্রিল) বিকেল পর্যন্ত ৬০ হাজার হেক্টর জমির ধান কা’টা হয়েছে। ৩০ এপ্রিলের মধ্যে ধান কা’টা শেষ হবে। জে’লার বিভিন্ন হাওরে কম্বাইন্ড হারভেস্টার দিয়ে কৃষকদের ধান কে’টে দেওয়া হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, বাইরের জে’লার শ্রমিক ও স্থানীয় কৃষকরা হাওরের ধান কাটছেন। ২৮ জাতের ধান কা’টা শেষ পর্যায়ে রয়েছে। ২৯ জাতের ধান কাটতে আরও কয়েকদিন সময় লাগবে। জমির ধান ৮০ শতাংশ পাকলে কে’টে ফেলতে বলা হয়েছে কৃষকদের।

উল্লেখ্য, সুনামগঞ্জে চলতি বছরের ৩০ মা’র্চ থেকে প্রথম দফায় উজানের ঢল আসা শুরু করে। ৯ এপ্রিল থেকে দ্বিতীয় দফায় ঢল নামে। এখন চলছে তৃতীয় দফা ঢলের প্রবাহ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: