সর্বশেষ আপডেট : ৪৪ মিনিট ৪৩ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৩ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

সুনামগঞ্জে হাওরের ফসল রক্ষায় কৃষকদের আপ্রাণ চেষ্টা

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরের সর্ববৃহৎ নলুয়া হাওরের কয়েকটি ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ বার বার ধসে পড়ছে। বালুমাটি দিয়ে দায়সারাভাবে এ বাঁধগুলো তৈরি করা হয়। স্থানীয় কৃষকরা ক’ষ্টার্জিত হাওরের ফসল বাঁ’চাতে এসব দুর্বল বাঁধ রক্ষায় লড়ে যাচ্ছেন।

গত এক সপ্তাহে (৪-১০ এপ্রিল) বিকাল পর্যন্ত নলুয়া হাওরের কমপক্ষে ১০টি বাঁধে ভাঙন দেখা দেয়। বৃহস্পতিবার সকালে নলুয়া হাওরের চার নম্বর প্রকল্পের হামহামি বাঁধে ফাটল দেখা দিলে স্থানীয় লোকজন বাঁধ রক্ষায় এখনো কাজ করে যাচ্ছেন।

এদিকে, গত বুধবার সন্ধ্যায় ওই হাওরের ৫ নম্বর প্রকল্পের ভুরাখালি নামকস্থানে মেরামত করা বাঁধ ফের ধসে পড়লে হাওরের ২ শতাধিক কৃষক স্বেচ্ছাশ্রমে রাত দিন কাজ করে বাঁধটি রক্ষার চেষ্টা চালান। অ’ভিযোগ রয়েছে, নিম্নমানের ও দায়সারা কাজ হওয়ায় সামান্য বৃষ্টি ও পানির চাপে বারবার বাঁধটি ভেঙে পড়ছে।
২০১৭ সালে এ বাঁধ ভেঙে নলুয়া হাওরের ফসলডুবির ঘটনা ঘটেছিল। এদিকে নলুয়া হাওরের ৬ ও ৭ নম্বর প্রকল্পেও ধস দেখা দিয়েছে।

নলুয়া হাওরপারের কৃষক নেতা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইস’লাম বলেন, ‘এবার কাজ খুবই নিম্নমানের হওয়াতে এসব দুর্বল বাঁধ বৃষ্টিতে ও সামান্য পানির চাপে ভেঙে যাচ্ছে। ৫ নম্বর প্রকল্পে বারবার ধসে পড়ছে। আম’রা স্থানীয় কৃষকদের অর্থ ও স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁধটি রক্ষায় কাজ করছি।’

৫ নম্বর প্রকল্পের সভাপতি ছাত্রলীগ নেতা জহিরুল ইস’লাম জানান, তিনি পাউবোর নির্দেশনা অনুয়ায়ী বাঁধের কাজ করেছেন। এ প্রকল্পে ১৬ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হলেও তিনি সাত লাখ টাকা পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

জানা যায়, জগন্নাথপুর উপজে’লায় ২৮টি প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য সাড়ে তিন কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির মাধ্যমে ২৮টি প্রকল্পের ১৫ কিলোমিটার ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধের কাজ করা হলেও বরাদ্দকৃত অর্থ মোটা অঙ্ক লুটপাটের অ’ভিযোগ উঠে। এর প্রতিবাদে এলাকাবাসী মানববন্ধন ও লুটেরাদের শা’স্তির দাবিতে সমাবেশ করেছেন।

এদিকে, গত কয়েকদিনে ভা’রত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও বৃষ্টিতে নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় জগন্নাথপুরের কমপক্ষে ২০টি বেড়িবাঁধ হু’মকির মুখে রয়েছে। এসব বাঁধের মধ্যে ১০টি বাঁধে ফাটল দেখা দেয়। একের পর এক বাঁধ ধসে পড়ার ঘটনায় ফসলহানির আশ’ঙ্কা করছেন কৃষকরা।

স্থানীয় এলাকাবাসীর অ’ভিযোগ, ১৫ ডিসেম্বর বাঁধের কাজ শুরু হওয়ার কথা থাকলেও পিআইসি (প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি) গঠন করা হয় প্রায় এক মাস পর। ফলে হাওরে বিলম্বে বাঁধের কাজ শুরু হওয়ায় নির্ধারিত সময় ২৮ ফেব্রুয়ারি বাঁধের কাজ সমাপ্ত হয়নি। দেরিতে কাজ শুরু হওয়ায় এবং তাড়াহুড়ো করে কাজ করায় অনেক বাঁধে ত্রুটি ও দুর্বল কাজ হয়েছে বলে কৃষকরা জানান। অন্যদিকে পুরো টাকার কাজ না করে মোটা অংকের লুটপাটের অ’ভিযোগ উঠেছে।

হাওর বাঁ’চাও আ’ন্দোলন উপজে’লা কমিটির আহ্বায়ক সিরাজুল ইস’লাম বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের দায়িত্বরত কর্মক’র্তাদের দায়সারা ভাব, দায়িত্বহীনতা এবং প্রকল্পের কমিটির সঙ্গে আর্থিক যোগসাজশে বাঁধের কাজ নিম্নমানের হওয়াতে সামান্য বৃষ্টিতে বাঁধ ভেঙে যাচ্ছে। দ্রুত হাওরের ফসলরক্ষা কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হলেও আম’রা আ’ন্দোলনে নামবো।

পানি উন্নয়ন বোর্ড জগন্নাথপুর উপজে’লার মাঠ কর্মক’র্তা উপ-সহকারী প্রকৌশলী হাসান গাজী অনিয়ম ও দু’র্নীতির অ’ভিযোগ অস্বীকার করে জানান, নীতিমালা অনুয়ায়ী বাঁধের কাজ হয়েছে।

জগন্নাথপুর উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা (ইউএনও) সাজেদুল ইস’লাম বলেন, হাওরের ফসলরক্ষায় আম’রা মাঠে কাজ করছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: