সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

সিলেটে ইমামদের বেতন-ভাতা বাড়ানোর দাবি

দিন দিন দ্রব্যমূল্য ও মানুষের জীবনযাত্রার ব্যয় বাড়লেও ম’সজিদের ই’মাম-মুয়াজ্জিনদের বেতন-ভাতা বাড়ছে না। বেতনের পরিমাণও একেবারে নগন্য। চাকরির অনিশ্চয়তার পাশাপাশি জটিল রোগে আ’ক্রান্ত হলে একেবারে অসহায় হয়ে পড়ে তাদের পরিবার।

এ পরিস্থিতিতে ই’মাম’দের বেতন-ভাতা ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন জালালাবাদ ই’মাম সমিতি সিলেটের নেতারা।

শনিবার সিলেট প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান তারা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সমিতির নেতারা বলেন, নিত্যপণ্যের দাম বাড়ছে, বাসাবাড়ির ভাড়া, যাতায়াত খরচ ও চিকিৎসা খরচসহ সবকিছুই ঊর্ধ্বমুখী। ধনী, গরিব, সরকারি-বেসরকারি কর্মক’র্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা সময়ে সময়ে বাড়ানো হয়। কিন্তু ই’মাম-মুয়াজ্জিনদের মাসিক সম্মানি ভাতা যুগ-চাহিদার তুলনায় অ’তি নগন্য। অনেকের ক্ষেত্রে উল্লেখ করার মতোও নয়। বিষয়টি বিবেচনার জন্য সব ম’সজিদ কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ করছি।

এসব দাবির মধ্যে আরও রয়েছে- ই’মাম ও মুয়াজ্জিনদের জন্য বাসা ভাড়া বাবদ একটি মাসিক ভাতা চালু করা এবং মাসিক সম্মানী ভাতার পরিমাণ দুই ঈদের বোনাস দেওয়া, সমাজে সুবিধাবঞ্চিত, জটিল ও কঠিন রোগে আ’ক্রান্ত ই’মাম মুয়াজ্জিনদের পাশে দাঁড়ানো, ম’সজিদ ব্যবস্থাপনা নীতিমালা বাস্তবায়ন এবং নীতিমালা অনুযায়ী ই’মামকে পদাধিকার বলে ম’সজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব অথবা গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হিসেবে রাখা। এতে শরীয়তের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কোনো সিদ্ধান্তের ঘটনা ঘটবে না।

এছাড়া দায়িত্ব যথাযথভাবে পালনের ক্ষেত্রে সহায়ক হিসেবে কমপক্ষে ই’মামের জন্য ফ্যামেলি কোয়ার্টারের ব্যবস্থা করার দাবি জানান তারা।

১৯৮৩ সালের ৩ অক্টোবর সিলেট কেন্দ্রীয় জামে ম’সজিদে সিলেট শহর ও শহরতলীর উল্লেখযোগ্য ৭০টির অধিক ম’সজিদের ই’মামকে নিয়ে গঠিত হয় জালালাবাদ ই’মাম সমিতি সিলেট। প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি ছিলেন তৎকালীন নয়াসড়ক জামে ম’সজিদের ই’মাম ও খতিব কাসিমুল উলুম দরগাহ মাদ্রাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস হযরত মা’ওলানা আব্দুল জলিল চৌধুরী (রহ.) এবং জেনারেল সেক্রেটারি ছিলেন প্রিন্সিপাল মা’ওলানা হাবিবুর রহমান (রহ.)।

ই’মাম সমিতির নেতারা সংবাদ সম্মেলনে আরও জানান, সিলেটে রমজান মাসে সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি নিয়ে বিভিন্ন ক্যালেন্ডারের সময়সূচিতে গরমিল লক্ষ্য করা যায়। এতে সাধারণ মানুষের মধ্যে বি’ভ্রান্তি সৃষ্টি হয়। এই বি’ভ্রান্তি নিরসনের লক্ষ্যে জালালাবাদ ই’মাম সমিতি গত মা’র্চ মাসে ইস’লামিক ফাউন্ডেশন, সিলেটের বিভাগীয় পরিচালকের সঙ্গে আলোচনা করে। একাধিক বৈঠক করে আলোচনা-পর্যালোচনার মাধ্যমে সিলেটে এক ও অ’ভিন্ন ক্যালেন্ডার ছাপানোর সিদ্ধান্ত হয়। এতে সিলেটবাসী এবার সেহরি ও ইফতারের সময় ভিন্ন ভিন্ন আওয়াজ শুনতে হবে না।

রমজান মাসকে সামনে রেখে তারা কিছু কর্মসূচিও ঘোষণা করেন। এর মধ্যে রয়েছে- মাহে রমজানের বিভিন্ন বিষয়ের ওপর একটি সমন্বিত পুস্তিকা এবং পরবর্তীতে একটি স্মা’রকগ্রন্থ প্রকাশের উদ্যোগ।

মাসব্যাপী বয়স্ক কুরআন শিক্ষা (প্রতিদিন কমপক্ষে এক ঘণ্টা), সিলেট অঞ্চলের জন্য সমিতির ইফতা বোর্ড কর্তৃক ফিতরা নির্ধারণ করা, রমজানে চার জুমায় বিষয়ভিত্তিক আলোচনা করা। এর মধ্যে প্রথম জুমায় কুরআনের ফজিলত, দ্বিতীয় জুমায় জাকাতের স’ম্পর্কে, তৃতীয় জুমায় এতেকাফ স’ম্পর্কে এবং চতুর্থ জুমায় ঈদুল ফিতর ও ফিতরা স’ম্পর্কে।

জালালাবাদ ই’মাম সমিতির নেতারা মাহে রমজানের পবিত্রতা বজায় রাখা এবং দিনের বেলা সব হোস্টেল-রেস্তোরাঁ বন্ধ রাখতে জনসচেতনতা তৈরির আহ্বান জানান। খাদ্যদ্রব্য ও বিভিন্ন জরুরি পণ্য সুলভ মূল্যে বা অল্প মুনাফায় বিক্রি করতে ব্যবসায়ীদের প্রতিও আহ্বান জানান তারা।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি প্রিন্সিপাল হাফিজ মা’ওলানা মজদুদ্দীন আহম’দ, সহ-সাধারণ সম্পাদক হাফিজ মা’ওলানা শরীফ উদ্দিন ও মা’ওলানা সাঈদ আহম’দ, প্রচার সম্পাদক মা’ওলানা আব্দুল্লাহ জৈন্তাপুরী, অর্থ সম্পাদক মা’ওলানা বদরুল ইস’লাম, প্রশিক্ষণ সম্পাদক মা’ওলানা আব্দুল মুনিব, মা’ওলানা সিরাজ উদ্দিন আনসারী, মা’ওলানা বিলাল আহম’দ, লেখক শামসীর হারুনুর রশীদ, মা’ওলানা মুফতি মাহফুজ আহম’দ, মা’ওলানা মুজজাম্মিল হক তালুকদার, মা’ওলানা আজির উদ্দীন জিহাদী প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: