সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
সোমবার, ৩ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

দীর্ঘ ৮৮ বছর পর হায়া সোফিয়ায় হতে যাচ্ছে প্রথম তারাবির নামাজ

তুরস্কের ঐতিহাসিক হায়া সোফিয়া ম’সজিদে দীর্ঘ ৮৮ বছর পর ফের তারাবির নামাজ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ৮ দশকের বেশি সময় পর মু’সল্লিরা ওই ম’সজিদে তারাবি আদায় করতে পারবেন।
শুক্রবার (১ এপ্রিল) প্রথম তারাবি অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে গত ২০২০ সালের ২৪ জুলাই ওই ম’সজিদটি মু’সল্লিদের জন্য খুলে দেওয়া হয়।

পবিত্র রমজানের পুরো মাস জুড়েই এখানে নানা আয়োজন থাকবে বলে জানিয়েছে হায়া সোফিয়া ম’সজিদের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

এর আগে নামাজ আদায়ের জন্য খুলে দেওয়া হলেও করো’না মহামা’রি শুরুর পর স্বাস্থ্যবিধির অংশ হিসেবে গত দুই বছর ওই ম’সজিদে তারাবি নামাজ আদায় করা যায়নি। ফলে মু’সল্লিরা অন্য সময় নামাজ আদায় করলেও তারাবি নামাজ আদায়ের সুযোগ পাননি। তবে বর্তমানে তুরস্কে করো’নার প্রকোপ কিছুটা কমে এসেছে। তাছাড়া দেশটির অধিকাংশ মানুষকে করো’নার টিকা দেওয়া হয়েছে। সে কারণে হায়া সোফিয়া ম’সজিদ তারাবির নামাজ আদায়ের জন্য খুলে দেওয়ার সরকারি সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এক সময় বিশ্বের সবচেয়ে বড় গির্জা থেকে ম’সজিদ পরে জাদুঘরে রূপান্তরিত হওয়া দেড় হাজার বছরের পুরনো ম’সজিদ এই হায়া সোফিয়া।

প্রায় দেড় হাজার বছর আগে ৫৩২ সালে অর্থোডক্স খ্রিস্টানদের প্রধান গির্জা (ক্যাথেড্রাল) হিসেবে হায়া সোফিয়া প্রতিষ্ঠিত হয়। তুর্কি সুলতান মাহমুদ ফাতাহ ১৪৪৩ সালে ইস্তাম্বুল বিজয়ের পর এটিকে ম’সজিদে রূপান্তরিত করেন। ১৯৩৪ সালে এটিকে জাদুঘরে রূপান্তরিত করে তৎকালীন ধ’র্মনিরপেক্ষ তুর্কি সরকার। ১৯৮৫ সালে জাদুঘর হায়া সোফিয়াকে বিশ্ব ঐতিহ্য স্থাপনা ঘোষণা করে ইউনেস্কো।

২০২০ সালের ১০ জুলাই তুরস্কের আ’দালত হায়া সোফিয়াকে জাদুঘরের ম’র্যাদা বাতিল করে ম’সজিদে রূপান্তরের আদেশ দেন। ম’সজিদ ছাড়া অন্যকিছু হিসেবে এটির ব্যবহারকে অ’বৈধ বলেও জানান আ’দালত।

পরে দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ এই স্থাপনাকে ম’সজিদে রূপান্তরে আ’দালতের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে ২৪ জুলাই প্রথম জুমা’র নামাজের জন্য ম’সজিদটি খুলে দেওয়ার ঘোষণা দেন।

এদিকে ম’সজিদে রূপান্তর হলেও হায়া সোফিয়াতে থাকা খ্রিস্টীয় কারুকার্য ও প্রাচীর চিত্রগুলো সংরক্ষণ করা হয়েছে। তবে নামাজের সময় এগুলো ঢেকে রাখা হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: