সর্বশেষ আপডেট : ৫ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

সিলেটে অগ্নিকান্ড, পলাতক দোকানের মালিক!

সোমবার রাতে সিলেটের দক্ষিণ সুরমা’র বাবনায় জ্বালানি তেল ও এলপিজি সিলিন্ডার বিক্রির দোকান এবং একটি বাসায় ভ’য়াবহ অ’গ্নিকা’ণ্ডে অন্তত: ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সেই আ’গুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে বাসা ও দোকানটির সবকিছু।

সেই দোকানের মালিকের নাম ইম’রান হোসেন। আ’গুন লাগার পর থেকে তিনি পলাতক রয়েছেন। তাঁকে খুঁজে পাচ্ছে না বলে নিশ্চিত করেছেন দক্ষিণ সুরমা থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) কা’ম’রুল হাসান তালুকদার।

জানা যায়, সোমবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টার দিকে দক্ষিণ সুরমা’র বাবনা পয়েন্টের পার্শ্ববর্তী রেলওয়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন খোলা জ্বালানি তেল ও এলপিজি সিলিন্ডার বিক্রির একটি দোকানে আ’গুন লাগে। মুহুর্তে দোকানটিতে দাউ দাউ করে জ্বলে ওঠে আ’গুন। দ্রুত আ’গুন ছড়িয়ে পড়ে পাশের একটি বাসায়। সেই বাসার ৪ বাসিন্দা দ্রুত বের হলে তারা প্রা’ণে বাঁচেন।

অ’গ্নিকা’ণ্ডের খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৭টি টিম দুই ধাপে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ৪০ মিনিট চেষ্টা চালিয়ে আ’গুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। ততক্ষণে ওই দোকান এবং এর পিছনের বাসার সব মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তবে অ’গ্নিকা’ণ্ডে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

অ’পরদিকে, যে দোকানে আ’গুন লাগে তার পাশেই গ্যাস ভর্তি সিলিন্ডার নিয়ে একটি ট্রাক দাঁড়িয়ে ছিলো। সে ট্রাক পরে সরিয়ে নেওয়া হয়। এছাড়া পাশেই রয়েছে যমুনা ও পদ্মা কোম্পানির ডিপো। তবে, ফায়ার সার্ভিসের প্রচেষ্টায় যমুনা ও পদ্মা ওয়েল কোম্পানির ডিপো বড় ধরনের দুর্ঘ’টনা থেকে রক্ষা পায়।

স্থানীয়রা বলছেন- এক সিলিন্ডার থেকে আরেক সিলিন্ডারে গ্যাস নিতে গিয়ে এই আ’গুনের সূত্রপাত। তবে ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে এখনও কোনো আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দেওয়া হয়নি।

এদিকে, আ’গুন লাগার সঙ্গে সঙ্গে এর লেলিহান শিখা আকাশছোঁয়ার চেষ্টা করে এবং আশপাশে আ’গুন ছড়িয়ে পড়তে থাকে। খবর পেয়ে দক্ষিণ সুরমা ও কোতোয়ালি থা’নার একদল পু’লিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই সিলেট ফায়ার সার্ভিসের দক্ষিণ সুরমা স্টেশন এবং তালতলা স্টেশনের ৩টি টিম এসে আ’গুন নেভানো শুরু করে। পরে আরও ৪টি টিম তাদের সঙ্গে এসে যোগ দেয়।

ফায়ার সার্ভিসের রিজার্ভ পানি ছাড়াও ঘটনাস্থলের পার্শ্ববর্তী সুরমা নদী থেকে পাইপ দিয়ে পানি নিয়ে এসে আ’গুন নেভাতে চেষ্টা চালান কর্মীরা। ৪০ মিনিটের চেষ্টায় সেই ভ’য়াবহ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে সক্ষম হয় ফায়ার সার্ভিস। পু’লিশ ও স্থানীয় জনতা এসময় ব্যাপক সহযোগিতা করেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের।

দক্ষিণ সুরমা থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) কা’ম’রুল হাসান তালুকদার মঙ্গলবার (১ মা’র্চ) বিকেলে সিলেটভিউ-কে বলেন, এ অ’গ্নিকা’ণ্ডে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। তবে অন্তত ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতির হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। এ বিষয়ে ফায়ার সার্ভিস কিছু এখনও জানায়নি।

এ বিষয়ে সিলেট ফায়ার সাভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন-এর সিনিয়র স্টেশন অফিসার (সদর) মো. বেলাল হোসেন মঙ্গলবার বিকেলে সিলেটভিউ-কে বলেন, আমাদের ত’দন্ত এখনও চলছে। এখনও আম’রা জানতে পারিনি ঠিক কী’ কারণে আ’গুনের সূত্রপাত।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: