সর্বশেষ আপডেট : ৫ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

রাশিয়ার সাথে যু’ক্তরাষ্ট্রের গোপন হটলাইন; দীর্ঘ হচ্ছে যু’দ্ধ?

রুশ আগ্রাসন মোকাবেলায় যু’দ্ধ এখন পর্যন্ত কেবল ইউক্রেনে সীমাবদ্ধ থাকলেও উত্তে’জনা বাড়ছে গোটা ইউরোপে। ল’ড়াই দীর্ঘ হলে এর পরিসর বৃদ্ধির শ’ঙ্কাও বাড়বে। বিশ্লেষকরা মনে করছেন, রণক্ষেত্রে সামান্য একটু ভুলেই যু’দ্ধ ছড়াতে পারে অন্য দেশে। পান থেকে চুল খসলেই বিপদ। কারণ হিসেবে বিবিসি বলছে, ইউক্রেনের পশ্চিম সীমান্তজুড়ে অবস্থান ন্যাটো বাহিনীর। এ অবস্থায় অনাকাঙ্খিত সংঘাত এড়াতে রুশ বাহিনীর সাথে গোপন হটলাইন চালু করেছে যু’ক্তরাষ্ট্র।

ন্যাটোভুক্ত দেশ না হওয়ায় যু’ক্তরাষ্ট্র ও সাম’রিক জোটটি ইউক্রেনে সরাসরি কোনো সে’না পাঠায়নি। তবে ইউক্রেনের সীমান্তঘেঁষা সব দেশেই মোতায়েন আছে তাদের হাজার হাজার সে’না। উত্তে’জনা বাড়তে থাকায় ইউক্রনের সীমান্ত ঘেঁষা পোল্যান্ড, এস্তোনিয়া, লাটভিয়া ও লিথুয়ানিয়ায় নতুন করে সে’না পাঠিয়েছে ন্যাটো। আগে থেকেই জার্মানি, স্লো’ভাকিয়া, হাঙ্গেরি, রোমানিয়া ও বুলগেরিয়ায় অবস্থান করছে জোটের সে’নারা। কৃষ্ণসাগরের আশপাশে আছে মা’র্কিন যু’দ্ধজাহাজ।

বিশেষজ্ঞদের শ’ঙ্কা, রুশ বাহিনীর অসাবধানতায় এসব দেশে অবস্থানরত বিদেশি সে’নাদের ওপর হা’মলা হলে সূচনা হতে পারে বড় ধরনের যু’দ্ধের। এমন পরিস্থিতির শ’ঙ্কায় আগেভাগেই রুশ বাহিনীর সাথে বিশেষ হটলাইন চালু করেছে বাইডেন প্রশাসন।

যু’ক্তরাষ্ট্রের সাবেক সে’না কর্মক’র্তা বেন হ’জ বলছেন, আমি ২০১৪ থেকে ১৭ সাল পর্যন্ত ইউরোপে ছিলাম। তাই সেখানকার পরিস্থিতি স’ম্পর্কে অনেকটা অনুমান করতে পারছি। যেহেতু পূর্ব ইউরোপে যু’ক্তরাষ্ট্র এবং ন্যাটো সে’নারা ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছে। তাই এমন হা’মলার ঝুঁ’কি খুবই বাস্তব।

কিয়েভে পুতিন বাহিনী অ’ভিযান চালানোর আগেই অনেকে সতর্ক করে বলেন, দ্বিতীয় বিশ্ব যু’দ্ধের পর সবচেয়ে ভ’য়ঙ্কর পরিস্থিতি তৈরি হতে যাচ্ছে গোটা ইউরোপে।

বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, স্বল্প সময়ে সংঘাত শেষ হলে যু’দ্ধ ছড়ানোর ঝুঁ’কি কম। তবে ইউক্রেন যেভাবে প্রতিরোধ গড়ে তুলছে তাতে সংঘাত দীর্ঘ হওয়ারই শ’ঙ্কা অনেকের। যু’ক্তরাজ্যের একজন নিরাপত্তা বিশ্লেষক জেমস নিক্সি মনে করছেন, পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে ইউক্রেনের সাথে এই যু’দ্ধ চলতেই থাকবে। সংঘাত দীর্ঘায়িত হলে কঠিন পরিস্থিতির মুখে পড়বে রাশিয়া। কারণ যেভাবে সবকিছুর দাম বাড়ছে তাতে রিজার্ভ থেকে চলতে হবে পুতিন সরকারকে। তাই নিজেদের স্বার্থেই যু’দ্ধ বন্ধ করা উচিৎ রশিয়ার।

এদিকে একই কথা বলছেন ফঁরাসি প্রেসিডেন্ট ই’মানুলেয় ম্যাকরনও। তিনি মনে করে করেন, এই যু’দ্ধ স্থায়ী হবে। ম্যাকরন বলেন, এমনকি যে সব সংকট তৈরি হবে তাও বহুদিন থাকবে। তাই আমাদের অবশ্যই এ জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।

সংঘাত দীর্ঘ হলে পুতিনের অবস্থা বেসামাল হয়ে পড়বে মনে করছেন কেউ কেউ। এরই মধ্যে ইউক্রেনে আগ্রাসনের বিরোধিতা করে রাশিয়ার ভেতরেও শুরু হয়েছে পুতিন বিরোধী আ’ন্দোলন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: