সর্বশেষ আপডেট : ৪৫ মিনিট ৩০ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২ জুলাই ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

সিলেটে নোমানের কারণে রায়হান হত্যার বিচার শুরুতে বিলম্ব

সিলেটে পু’লিশ হেফাজতে রায়হান আহম’দ হ’ত্যা মা’মলার বিচার প্রক্রিয়া ফের পিছিয়েছে। এই মা’মলার পলতাক আ’সামি আব্দুল্লাহ আল নোমানের কারণে বিচার শুরুতে বিলম্ব হচ্ছে।

রোববার সিলেটের অ’তিরিক্ত মূখ্য মহানগর হাকিম আ’দালতে চাঞ্চল্যকর এই মা’মলার শুনানির তারিখ ধার্য ছিলো। তবে পলাতক আ’সামি নোমানের অনুপস্থিতিতে বিচার শুরুর জন্য পত্রিকায় বি’জ্ঞপ্তি পত্রিকায় প্রকাশ না হওয়ায় শুনানি পিছিয়ে দেন বিচারক আবদুল মোমেন।

এদিকে, এই মা’মলার এজাহারভূক্ত আসামী পু’লিশের সাময়িক বহিস্কৃত এএসআই আশেক এলাহীর জামিন ফের না মঞ্জুর করেছেন আ’দালত।

কারাবন্দী থাকা এই এএসআই সোমবার সিলেট মহানগর দায়রা জজ আ’দালতে জামিন আবেদন করেন। দুপুরে শুনানি শেষে তার জামিন না মঞ্জুর করেন বিচারক মো. আব্দুর রহিম। এরআগে মহানগর হাকিম আ’দালতেও আশেক এলাহীর জামিন না মঞ্জুর হয়।

জানা যায়, কথিত সাংবাদিক আব্দুল্লাহ আল নোমান এই হ’ত্যা মা’মলার এজাহারভূক্ত আ’সামি। তার বি’রুদ্ধে রায়হানকে নি’র্যা’তনের আলামত নষ্ট করা এবং মা’মলার প্রধান আ’সামি বহিস্কৃত এসআই আকবর হোসেন ভূইয়াকে পালিয়ে যেতে সহযোগিতার অ’ভিযোগ আনা হয়েছে। এই মা’মলায় নোমান ছাড়া এজাহারভূক্ত বাকী’ সব আ’সামিই কারাগারে আছেন।

গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর সিলেটের অ’তিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আ’দালতের বিচারক আবুল মোমেন রায়হান হ’ত্যা মা’মলার অ’ভিযোগপত্র গ্রহণ করে নোমানের বি’রুদ্ধে গ্রে’প্তারি পরোয়ানা জারি করেন। তাকে গ্রে’প্তার করতে না পারায় নোমানের মালামাল ক্রোকের নির্দেশ দেন আ’দালত। এরপর গত ২২ ডিসেম্বর নোমানের অনুপস্থিতিতে বিচার শুরুর বিষয়ে পত্রিকায় বি’জ্ঞপ্তি প্রকাশের নির্দেশ দেন সিলেটের অ’তিরিক্ত মূখ্য মহানগর হাকিম আমিরুল ইস’লাম।

তবে ওই বি’জ্ঞপ্তি প্রকাশ না হওয়ায় সোমবার বিচারকাজ শুরু হয়নি।

মা’মলার বাদিপক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার এম এ ফজল চৌধুরী বলেন, কোন আ’সামি পলাতক থাকলে তাকে বিচার কাজ শুরুর বিষয়টি পত্রিকায় বি’জ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানাতে হয়। তবে আ’দালতের নির্দেশ সত্ত্বেও নোমানের অনুপস্থিতিতে বিচার শুরুর ব্যাপারে পত্রিকায় বি’জ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়নি। বি’জ্ঞপ্তি পত্রিকায় প্রকাশ না হওয়ায় বিচারক আবদুল মোমেন শুনানির তারিখ পিছিয়ে দেন।

তিনি বলেন, আম’রা আজ আ’দালতকে বলেছি, দ্রুততম সময়ে এই বি’জ্ঞপ্তি প্রকাশের জন্য নির্দেশনা দেয়ার জন্য।

এম এ ফজল চৌধুরী আরও বলেন, আজ জজ আ’দালতে এজাহারভুক্ত দ্বিতীয় আ’সামি বরখাস্ত হওয়া এএসআই আশেক এলাহীর জামিন আবেদন করেছিলেন। সেই আবেদন নামঞ্জুর করেছেন বিচারক।

এর আগে গত বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর আশেক এলাহীর পক্ষে আ’দালতে জামিন আবেদন করেছিলেন তার আইনজীবী। সেদিনও জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন আ’দালত।

আ’দালতের নির্দেশ সত্ত্বেও পত্রিকায় বি’জ্ঞপ্তি প্রকাশ না হওয়া প্রসঙ্গে এই আ’দালতের সরকারি কৌশলি জাহাঙ্গির আলম বলেন, পত্রিকায় আ’দালতের মাধ্যমেই বি’জ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এধরণের ক্ষেত্রে সাধারণত কয়েকটি মা’মলা একসাথে করে বি’জ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। একারণে হয়তো দেরী হচ্ছে।

তবে বিচার কাজ শুরুতে ক্ষোভ প্রকাশ করে রায়হানের মা সালমা বেগম বলেন, আ’দালতের নির্দেশ সত্ত্বেও কেন পত্রিকায় বি’জ্ঞপ্তি প্রকাশ কলো না, তা আমা’র বোধগম্য নয়। আমি বিচারের অ’পেক্ষায় আর কতদিন থাকবো। আজ দেড় বছরেও বিচার শুরু হয়নি।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১০ অক্টোবর মধ্যরাতে সিলেট মহানগর পু’লিশের বন্দরবাজার ফাঁড়িতে তুলে নিয়ে সিলেট নগরের আখালিয়া এলাকার যুবক রায়হান আহম’দকে নি’র্যা’তন করা হয়। পর দিন ১১ অক্টোবর সকালে হাসপাতা’লে তার মৃ’ত্যু হয়। এ ঘটনায় পু’লিশি হেফাজতে মৃ’ত্যু (নিবারণ) আইনে রায়হানের স্ত্রী’র করা মা’মলার পর মহানগর পু’লিশের একটি অনুসন্ধান কমিটি ত’দন্ত করে ফাঁড়িতে নিয়ে রায়হানকে নি’র্যা’তনের সত্যতা পায়। ১২ অক্টোবর ফাঁড়ির ইনচার্জের দায়িত্বে থাকা এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াসহ চারজনকে সাময়িক বরখাস্ত ও তিনজনকে প্রত্যাহার করা হয়।

এরপর পু’লিশি হেফাজত থেকে কনস্টেবল হারুনসহ তিনজনকে গ্রে’প্তার করে মা’মলার ত’দন্তকারী সংস্থা পু’লিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। তবে প্রধান অ’ভিযু’ক্ত আকবর ১৩ অক্টোবর পু’লিশি হেফাজত থেকে পালিয়ে ভা’রতে চলে যান। ৯ নভেম্বর সিলেটের কানাইঘাট সীমান্ত থেকে তাকে গ্রে’প্তার করা হয়।

আ’দালতসংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ৫ মে আ’লোচিত এ মা’মলার অ’ভিযোগপত্র আ’দালতে জমা দেয় মা’মলার ত’দন্তকারী সংস্থা পিবিআই। অ’ভিযোগপত্রে বন্দরবাজার পু’লিশ ফাঁড়ির ইনচার্জের দায়িত্বে থাকা এসআই (সাময়িক বরখাস্ত) আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে (৩২) প্রধান অ’ভিযু’ক্ত করা হয়।

অন্য অ’ভিযু’ক্ত ব্যক্তিরা হলেন সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) আশেক এলাহী (৪৩), কনস্টেবল মো. হারুন অর রশিদ (৩২), টিটু চন্দ্র দাস (৩৮), ফাঁড়ির ‘টুইআইসি’ (সেকেন্ড-ইন-কমান্ড) পদে থাকা সাময়িক বরখাস্ত এসআই মো. হাসান উদ্দিন (৩২) ও এসআই আকবরের আত্মীয় কোম্পানীগঞ্জ উপজে’লার সংবাদকর্মী আবদুল্লাহ আল নোমান (৩২)।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: