সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
রবিবার, ২৬ জুন ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

সিলেটে টিকটকে ঝড় তুলেন মৌ

ওয়েছ খছরু: সিলেটে মডেল মৌ-কে নিয়ে জল্পনার অন্ত নেই। গ্রে’প্তার হওয়ার পর তার অ’প’রাধ জগতের নানা ঘটনা আ’লোচিত হচ্ছে মুখে মুখে। সিলেটি নাট’কপাড়ায় তাকে নিয়ে বলাবলি বেশি। সবাই সতর্কও। মৌয়ের অ’প’রাধের সঙ্গে নিজেকে জড়াতে চান না বলে মুখ বন্ধ রেখেছেন অনেকেই। তবে তার বেপরোয়া জীবন নিয়ে নাট’কপাড়ার অনেকেই শঙ্কিত। প্রায় ৫-৬ বছর আগে সিলেটে প্রকাশ্যে ছিলেন মৌ। কয়েক দফা গ্রে’প্তারের পর কারাগার থেকে বেরিয়ে এসে তিনি নীরব হয়ে যান।

নিজেকে সরব রাখার জন্য বেছে নেন ভা’র্চ্যুয়াল জগৎকে। টিকট’কে ঝড় তুলতেন মৌ। গ্রে’প্তারের পর মৌয়ের সাম্প্রতিক সময়ের অনেক টিকট’ক ভাসছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। আর এসব টিকট’ক নিয়ে নতুন করে আলোচনা হচ্ছে। মৌয়ের সাম্প্রতিক কয়েকটি টিকট’কে দেখা গেছে; মৌয়ের সঙ্গে টিকটিক করছেন তার বয়ফ্রেন্ড সোহেলও। আর স্থান হিসেবে তারা সিলেট-কোম্পানীগঞ্জ সড়ককে বেছে নেন। একটি টিকট’কে সোহেলের সঙ্গে নানা ভঙ্গিমায় গানে ঠোঁট মেলাচ্ছেন মৌ। সঙ্গে নাচছে সোহেলও। এ ছাড়া আরও কয়েকটি টিকট’কে কখনো গাড়ি, কখনো মোটরসাইকেলেও তাদের দেখা গেছে। এসব টিকট’ক নেট দুনিয়ায় ঝড় তুলেছে।

সিলেটি নাট’কপাড়ার মডেল সামিনা ইস’লাম মৌয়ের বাড়ি নগরীর কদমতলী এলাকায়। ওই এলাকার পরিচিত এক পরিবারের মে’য়ে সে। ওই পরিবার মূলত কদমতলী এলাকা শাসন করতো। এখনো সেই শাসন বিদ্যমান। কিন্তু বখে গেছে মৌ। পিতার মৃ’ত্যুর পর পারিবারিক কারণে বাড়িছাড়া হয় মৌ। এরপর মায়ের সঙ্গে চলে আসে নগরীর কুমা’রপাড়াস্থ মামা’রবাড়ি এলাকায়। আর ওখান থেকেই বখে যায় মৌ। সহপাঠীদের সঙ্গে থেকে থেকে সে অন্য জগতে পা বাড়ায়। এরপর মিউজিক ভিডিও ও নাট’কে পা বাড়ায়। এখন মৌয়ের পরিচিতি সিলেটজুড়ে।

উঠতি বয়সী যুবকদের কাছে তার নাম বহুল পরিচিত। পার্টি, থার্টিফার্স্ট নাইট, বৈশাখী আয়োজন সবখানেই বিত্তশালীদের আয়োজনে ডাক পড়ে মৌয়ের। এসব কারণে মৌয়ের সঙ্গে তার মায়েরও বিরোধ দেখা দেয়। প্রায়ই মৌ মায়ের কথা অমান্য করে বন্ধু-বান্ধবীদের নিয়ে সিলেট নগরীর বিভিন্ন এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করে। বিয়ে করলেও সংসারী না মৌ। তার রূপে আকৃষ্ট হয়ে অনেকেই কাছে ভিড়লেও উচ্ছৃঙ্খল আচরণের কারণে কেউ কাছে ঠাঁই দেন না। ফলে মৌ তার মতোই বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। সহকর্মীরা জানিয়েছেন, মা’দক সেবনই মৌকে অস্বাভাবিকতায় নিয়ে গেছে। ২০-২১ বছর বয়স থেকেই মৌ পুরুষ সঙ্গীদের সঙ্গ দেয়া শুরু করে। তখনই নগরীর ধোপাদিঘীরপাড়ের একটি রেস্টুরেন্টে সিসা সেবন করতো। এরপর ইয়াবা সহ নানা রকম মা’দকের সঙ্গে তার পরিচয় ঘটে।

বৃহস্পতিবার সিলেট শহরতলীর সালুটিকরে গ্রে’প্তারের পর মৌ মা’দক সেবনের কথা স্বীকার করেছে। সে জানায়, নিয়মিতই সে ফেনসিডিল সেবন করে। এ জন্য সে তার বয়ফ্রেন্ডদের নিয়ে সালুটিকর, খাগাইল বা কোম্পানীগঞ্জ ছুটে যায়। মা’দকের নে’শায় আসক্ত থাকার কারণেই সে প্রতিদিনই কোম্পানীগঞ্জ রুটে যায়। এ কারণে সাম্প্রতিক সময়ে সে যত টিকট’ক করেছে সবই করেছে কোম্পানীগঞ্জ রুটে। নিরিবিলি পরিবেশ হওয়ার কারণে বাইকার রিয়ার মতো মডেল মৌ-ও ওই রুটে চলে যায়। বর্তমানে সিলেট নগরীর রায়নগর পদ্ম-৬০ নম্বর বাসায় রিয়ার বসবাস। এর আগে নগরীর শেখঘাট, কুয়ারপাড়, বরইকান্দি, শি’বগঞ্জ, উপশহর সহ নানা জায়গায় সে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করেছে। এলাকায় কিছু দিন থাকার পর সে পরিচিত হয়ে উঠলে বাসা বদল করে চলে যায়। স্বজনরা জানিয়েছেন, দক্ষিণ সুরমায় পৈতৃক সূত্রে অনেক সম্পদের মালিক মৌ। এখন তার স্বজনদের সঙ্গে স’ম্পর্ক রয়েছে। কিন্তু নিজেকে নে’শার জগতে ডুবিয়ে রাখতে তাদের কাছ থেকে আলাদাই বসবাস করছে। আর বাড়ির বাইরে থেকে একের পর এক সমালোচিত কর্মকা’ণ্ড করে যাচ্ছে।

এদিকে গ্রে’প্তারের পর সিলেটি নাট’কপাড়ায় তার কাছের জনরা মুখ বন্ধ রেখেছেন। অনেকেই মৌয়ের বিষয়টি এড়িয়ে যাচ্ছেন। তারা জানান, সিলেটে এখন ভা’র্চ্যুয়াল জগতে সরব মৌ। এ কারণে সাম্প্রতিক সময়ে লন্ডনের যুবকদের নজরে পড়েছে মৌ। তার ডাকে সাড়া দিয়ে লন্ডনিরা সিলেটে এসে মৌয়ের কাছে ছুটে আসেন। অনেকেই তার প্রে’ম প্রতারণার জালে পড়ে নিঃস্বও হয়েছেন। সৌজন্যঃমানবজমিন

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: