সর্বশেষ আপডেট : ১০ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ২০ মে ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

লন্ডনে চাকরি চেয়ে প্লাকার্ড হাতে হায়দার

ব্যাঙ্কিং ও ফিনান্সে ফার্স্ট ক্লাসের ডিগ্রি রয়েছে। বয়স ২৪ হলেও পাচ্ছেন না কোন ভালো চাকরি। চাকরির বাজারের কঠিন সময়ে সব রকম চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে গত ২ নভেম্বর লন্ডনের অর্থনৈতিক প্রা’ণকেন্দ্র ক্যানারি হোয়ার্ফের টিউব স্টেশনের বাইরে দাঁড়িয়ে পড়েন মিডলসেক্স বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র। পাক বংশোদ্ভূত এই ছাত্রের নাম হায়দর মালিক। সঙ্গে রাখেন একটি প্ল্যাকার্ড। তাতে টানানো ছিলো তাঁর বায়ো-ডেটার কিউআর কোড।

জানা গিয়েছে, ‘প্রথম শ্রেণির ডিগ্রি আছে আমা’র’— বোর্ডে এই বার্তা নিয়েই টিউব স্টেশনের বাইরে দাঁড়িয়ে পড়েছিলেন হায়দার। প্রথম প্রথম পথচলতি মানুষের সঙ্গে কথা বলতে সঙ্কোচ হলেও পরে তা এক প্রকার জেদ করেই তা কাটিয়ে ওঠেন হায়দার। নিজে থেকেই এগিয়ে গিয়ে কথা বলতে শুরু করেন ব্যস্ত স্টেশনের বাইরে দিয়ে হেঁটে যাওয়া মানুষজনের সঙ্গে।

হায়দার দেখেন, এতে অনেক বেশি সাড়া মিলছে। কেউ কেউ নিজেদের ভিজ়িটিং কার্ড আর ফোন নম্বরও এগিয়ে দিচ্ছিলেন হায়দারের দিকে। তবে পরিস্থিতির মোড় ঘোরাতে হায়দারের পাশে ‘দেবদূতের’ মতো এসে দাঁড়ান ই’মানুয়েল নামের একজন। লিঙ্কড-ইনে হায়দারের ছবি পোস্ট করে তিনি আবেদন জানিয়েছিলেন, কারও হাতে চাকরি থাকলে তিনি যেন হায়দরের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। যা সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড়ের গতিতে ভাই’রাল হয় ।

চাকরির আবেদন নিয়ে সকাল ৭টার মধ্যে ক্যানারি ওফার্ম স্টেশনে পৌঁছে গিয়েছিলেন তিনি। সকাল ৯ টার দিকে তার ফোনে একটি ফোন আসে। ফোনটি এসেছিল একটি সংস্থা থেকে। ফোন কলে জানানো হয়, ট্রেজ়ারি অ্যানালিস্টের চাকরি আছে, তবে ইন্টারভিউয়ের জন্য পৌঁছতে হবে এক ঘণ্টার মধ্যে। হায়দার জানান তার সঙ্গে গাড়ি ছিল। তাই সময় নষ্ট না করে দ্রুত রওনা হয়ে যান তিনি। পরের টানা তিন দিনও একাধিক চাকরির প্রস্তাব নিয়ে ফোন বেজেছে তাঁর। তবে ১৬ নভেম্বরের মধ্যে ওই সংস্থাতেই ইন্টারভিউয়ের দ্বিতীয় ধাপ পেরিয়ে যান হায়দার। চাকরির চিঠি হাতে চলে আসে একই দিনে। চাকরি পেয়েই সকলের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে ভোলেননি হায়দার। বিশেষ ধন্যবাদ জানিয়েছেন ‘অচেনা’ ই’মানুয়েলকে।

হায়দার জানান, কি’শোর বয়সে পা’কিস্তান থেকে লন্ডনে এসেছিলেন তাঁর বাবা। ট্যাক্সি চালাতেন। তবে এখন অবসর নিয়েছেন। বাবার থেকেই অনুপ্রা’ণিত হয়ে অ’ভিনবভাবে জীবনের চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তবে সাফল্য যে এ ভাবে কড়া নাড়বে ভাবতে পারেননি তিনি। উচ্ছ্বসিত হায়দার সমাজমাধ্যমে নিজের দু’টো ছবি পোস্ট করেছেন, সঙ্গে লিখেছেন, ‘‘১৪ দিনে অনেক কিছু বদলে যায়!’’

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Comments are closed.

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: