সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

দিরাইয়ে সংঘর্ষে নিহতের ২৫ দিন পর মামলা, আসামি ৫০

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজে’লার ভাটিপাড়া গ্রামে দুইপক্ষের সং’ঘর্ষে আ’হত শিরু মিয়া তালুকদার পরবর্তীতে মা’রা যাওয়ার ঘটনার প্রায় ২৫ দিন পর সাবেক মেয়রসহ ৫০ জনকে অ’ভিযু’ক্ত করে মা’মলা দায়ের করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) দিরাই থা’নায় মা’মলা’টি রুজু করা হয়ছে। (মা’মলা নং ০৫)।

নি’হতের ভাতিজা মো. শরিফের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্ম’দ আবদুর রহিম অ’ভিযোগটি এফআইআর গণ্যে রুজু করে ত’দন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দিরাই থা’নার ওসিকে নির্দেশ দেন।

দিরাই থা’নার অফিসার ইনচার্জ আজিজুর রহমান আ’দালতে মা’মলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আ’দালতের নির্দেশনা অনুযায়ী মা’মলা’টি রুজু করা হয়েছে। এসআই জাহাঙ্গীরকে ত’দন্তভা’র দেয়া হয়েছে। দ্রুততম সময়ের মধ্যে ত’দন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। মা’মলায় দিরাই পৌরসভা’র সাবেক মেয়র মোশাররফ মিয়া কে প্রধান অ’ভিযু’ক্ত করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, গত পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে মোশারফ মিয়া বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করলে দল থেকে তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়। কিন্তু তিনি দলীয় এবং মন্ত্রীর লোক পরিচয় দিয়ে এলাকায় প্রভাব সৃষ্টি করে নানা অ’পকর্ম চালিয়ে যাচ্ছিলেন।

অ’ভিযোগ সূত্রে জানা যায়, অ’ভিযু’ক্ত মোশাররফ মিয়া প্রভাবশালী মহলের ম’দদপুষ্ট লোক হওয়ায় কোন লোক তার বি’রুদ্ধে কথা বলতে সাহস পায় না।

উল্লখ্যে, গত ১৮ অক্টোবর দু’পক্ষের সং’ঘর্ষে ঘটনাস্থলেই রুহেদ মিয়াসহ দুইজন নি’হত হন এবং আ’হত হন অর্ধশত লোক। ঘটনার দিন নি’হত হন ভাটিপাড়া গ্রামের আব্দুস সহিদের ছে’লে রুহেদ মিয়া (৪৫)। তিনি কাজল নুরের পক্ষের লোক। ঘটনার ৫ দিন পর ২৩ অক্টোবর সং’ঘর্ষের ঘটনায় আ’হত শিরু মিয়া তালুকদার নামে আরেকজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মা’রা যান। তিনি ভাটিপাড়া নয়াহাটি গ্রামের মৃ’ত সুন্দর আলীর পুত্র। নি’হত শিরু মিয়া রুবেল মেম্বার ও শাহ আলম দ্বীপের পক্ষের লোক।

ঘটনার দিন রুহেদ মিয়া নি’হতের ঘটনায় উপজে’লা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ রায়সহ ৭৩ জনকে অ’ভিযু’ক্ত করে মা’মলা করেন নি’হতের সহোদর সুয়েদ মিয়া।

জানা গেছে, ভাটিপাড়া গ্রামের পার্শ্ববর্তী উদীর হাওড়ে মেঘনা বারঘর জলমহাল নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাজল নুর গ্রুপ এবং রুবেল মেম্বার ও শাহ আলম দীপ গ্রুপের মধ্যে বিরোধ চলছিল। ঘটনার দিন ভাটিপাড়া গ্রামের কাজল নুর গ্রুপের লোকজন কাটি বাঁধ দিয়ে মাছ ধরতে গেলে জলমহাল গ্রুপের মালিক পক্ষ রুবেল মেম্বার ও শাহ আলম দ্বীপের লোকজন বাধা দিলে সং’ঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় উভ’য়পক্ষের লোকজন দেশীয় অ’স্ত্র নিয়ে সং’ঘর্ষে লিপ্ত হলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Comments are closed.

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: