সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

উচ্চ আদালতের নির্দেশ মানছেন না মেয়র আরিফ

ব্যাটারিচালিত বাহন বন্ধে উচ্চ আদালতের নির্দেশনা থাকলেও তা মানছেন না মেয়র আরিফ। ব্যাটারিচালিত বাহনের বিরুদ্ধে লোক দেখানো অভিযান চালিয়ে নিজের দায় এড়িয়ে গেছেন তিনি।

অথচ এরআগে উচ্চ আদালতের নির্দেশ বাস্তবায়নে গত ৮ নভেম্বর থেকে অভিযান শুরুর কথা থাকলে একদিনের অভিযানে সব শেষ করলেন মেয়র আরিফ।

অথচ সিলেট নগরীর প্রধান সড়ক থেকে শুরু করে অলিগলিসহ পাড়া মহল্লায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে অবৈধ এই বাহনটি। সিলেট নগরীতে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার ব্যাটারী চালিত রিকশা রয়েছে। তবে একদিনের অভিযানে মেয়র আরিফুল হকের নেতৃত্বে সিসিকের একটি দল ১২টি ব্যাটারীচালিত রিকশা জব্দ করে অভিযান শেষ করলেও অভিযানের ৯দিনের পেরিয়ে যেতে থাকলেও মেয়রসহ সিসিকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এ ব্যাপারে রহস্যজনক কারণে নীরব রয়েছেন।

এদিকে গত শনিবার (৬ নভেম্বর) চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আম্বরখানাস্থ বড়বাজার এলাকায় মানববন্ধন কর্মসূচী পালন রিকশা, ব্যাটারি-ভ্যান ও ইজিবাইক চালক সংগ্রাম পরিষদ। এসময় বক্তারা, হঠাৎ করে ব্যাটারি রিকশা ও ইজিবাইক বন্ধের নির্দেশনা শুনে কেটে খাওয়া মানুষেরা অস্থির হয়ে পড়ে। যদি ব্যাটারি রিকশা ও ইজিবাইক বন্ধ করা হয় তাহলে ৫০ লাখ মানুষ তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে না খেয়ে মরবে। তাই সরকার বিকল্প ব্যবস্থা করে নীতিমালা তৈরি করে তাদেরকে লাইসেন্স প্রদান করে ব্যাটারি রিকশা ও ইজিবাইক চালকদের কর্মসংস্থান করার জোর দাবী জানানো হয় মানববন্ধনে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সিলেট নগরীর শিবগঞ্জ, টিলাগড়, মদিনা মার্কেট, পাঠানটুলা, লেচু বাগান, সুবিদবাজার, আখালিয়া, নোয়াপাড়া, উপশহরসহ অধিকাংশ এলাকায় চলছে ব্যাটারীচালিত অবৈধ বাহন।

এদিকে, উচ্চ আদালতের নির্দেশনায় সিলেট সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ব্যাটারী চালিত অটোরিকশা, ইজিবাইক, টমটম বন্ধে গত রবিবার (৭ নভেম্বর) দুপুরে সিলেট মহানগরের সুবিধবাজার এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এসময় জনসচেতনতার লক্ষ্যে তিনি ব্যাটারী চালিত অটোরিকশা, ইজিবাইক, টমটমের চালকসহ যাত্রী সাধারণের সাথেও কথা বলেন মেয়র। অভিযানে ১২ টি ব্যাটারী চালিত রিকশা জব্দ করা হয়। অভিযান শেষে সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, উচ্চ আদালতের নিদের্শনার পরিপ্রেক্ষিতে যান্ত্রিক যানবাহন সুষ্ঠুভাবে চলাচল নিশ্চিতকরণ, নগরের ট্রাফিক ব্যবস্থা উন্নয়ন এবং যানযট নিরসনের লক্ষ্যে এ অভিযান শুরু হয়েছে। সিসিক মেয়র বলেন, ব্যাটারী চালিত রিক্সা, ইজিবাইক, টমটম চলাচল বন্ধে সিলেট সিটি কর্পোরেশন সোমবার (৮ নভেম্বর) থেকে নগরজুড়ে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চালাবে। সিলেটকে একটি আধুনিক ও স্মার্ট নগরে প্রতিষ্ঠায় এই অভিযানে সর্বস্থরের নগরবাসির সহয়োগিতা কামনা করেছেন সিসিক মেয়র। তবে এখনও পর্যন্ত নগরীতে অবৈধ ব্যাটারীচালিত বাহন বন্ধে সিসিকের কোন ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান পরিচালনা করা হয়নি।

সূত্র জানায়, ২০১৬ সালের ১৯ জানুয়ারি সুপ্রিম কোর্টের হাই কোর্ট ডিভিশনের বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি এসএম মজিবুর রহমানের যৌথ বেঞ্চ সিলেট নগরীতে ব্যাটারিচালিত বাহন বন্ধের নির্দেশ দেন। তবে সিলেট ট্রাফিক পুলিশ ও সিসিক নিয়মিত অভিযান চালালেও এসব অবৈধ বাহন বন্ধ করা সম্ভব হয়নি। বরং দিন দিন এসব যানের সংখ্যা বেড়েই চলছে। এ অবস্থায় সিলেট মহানগরী এলাকায় সুষ্ঠুভাবে যানবাহন চলাচলের পাশাপাশি ট্রাফিক ব্যবস্থার উন্নয়ন ও যানজট নিরসনের লক্ষে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা, টমটম চলাচলের বন্ধে ব্যাপারে আগামী ৮ নভেম্বর থেকে উচ্চ আদালতের নির্দেশে অভিযানে নামবে সিসিক। সিসিকের এমন নির্দেশনা কেউ না মানলে তার বিরুদ্ধে সঙ্গে সঙ্গে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) দুপুরে এ ব্যাপারে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মতিউর রহমান খানের মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন ধরেননি। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এরআগে তিনি বলেছিলেন, হাইকোর্টের নির্দেশে সিলেট মহানগরী এলাকায় কোনো প্রকার ব্যাটারিচালিত যানবাহন আর চলতে দেওয়া হবে না। আদালতের নির্দেশে কঠোরভাবে অভিযান শুরু করবে সিসিক। যদি কেউ সিসিকের এই নির্দেশনা না মানেন তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Comments are closed.

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: