সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

কুলাউড়ায় ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় শিক্ষার্থীর উপর হা’মলা

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় রাউৎগাঁও স্কুল এন্ড কলেজের মেহেদী হাসান (১৬) নামক ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থী হা’মলার শিকার হয়েছে।

হা’মলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শা’স্তির দাবি ও আসামীদের গ্রে’প্তারের দাবিতে বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) রাউৎগাঁও স্কুল এন্ড কলেজ প্রাঙ্গণে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী ও স্কুলের শিক্ষার্থীরা।

প্রাক্তণ ছাত্র খালেদ সাইফুল্লাহর সঞ্চালনায় একাত্মতা পোষণ করে বক্তব্য দেন বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক বিলকিস বেগম, শিক্ষক আদিত্য চন্দ্র দাস, মা’ওলানা আব্দুস সাত্তার, অরুন মোহন নাথ, মোঃ রুনু মিয়া, মোঃ তারেক আহম’দ, ইন্দ্রজিৎ দেব, এলাকাবাসীর পক্ষে বক্তব্য দেন আজাদ আহমেদ।

মানববন্ধনে বক্তারা ঘটনার সাথে জ’ড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শা’স্তি দাবি করেন এবং আসামীদের দ্রুত গ্রে’প্তার করে আইনের আওতায় আনার জো’র দাবি জানান।

শিক্ষার্থী মেহেদীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, মেহেদী ও তার ছোট বোন রাউৎগাঁও স্কুল এন্ড কলেজের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী। প্রতিদিন ভাই-বোন একসাথে স্কুলে যাওয়া –আসা করতো। রাউৎগাঁও ইউনিয়নের নর্তন গ্রামের রজব আলীর ছে’লে এলাকার চিহ্নিত বখাটে ইজিবাইক চালক আসাব আলী (১৬) ও রমজান আলীর ছে’লে বখাটে আলমাছ আলী (১৫) প্রায়ই রাস্তায় মেহেদির বোনসহ অন্যান্য ছা’ত্রীদের উ’ত্ত্যক্ত করতো। এ নিয়ে স্থানীয় আমঝুপ বাজারে একাধিকবার শালিস বৈঠকও হয়। বিষয়টি নিয়ে তাদের বি’রুদ্ধে প্রতিবাদ করায় মেহেদীর ওপর প্রতিশোধ নিতে ওঠেপরে লাগে বখাটে আসাব ও আলমাছ।

গত ২৬ অক্টোবর সন্ধ্যায় আমঝুপ বাজার থেকে বাজার করে বাড়ি ফিরছিলো মেহেদী । পথিমধ্যে আসাব ও আলমাছ ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা-যোগে আমঝুপ বাজারের পূর্ব পাশের্^ মাদ্রাসার রাস্তা থেকে জো’রপূর্বক ইজিবাইকে তুলে নিয়ে যায় মেহেদীকে। অর্ধ কিলোমিটার অ’তিক্রম করার পর একপর্যায়ে ইজিবাইকের ভেতর থেকে প্রা’ণ রক্ষায় লাফ দিয়ে পালানোর চেষ্টা করলে ইজিবাইকটি থামিয়ে দেয় আসাব, আলমাছ ও তাদের সহযোগিরা।

এসময় মেহেদীর গলায় ধারালো ছু’রি দিয়ে আ’ঘাত করে ও কিল-ঘুষি মে’রে গুরুতর আ’হত করে। মেহেদীর আত্মচি’ৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে এলাকাবাসী আলমাছকে আ’ট’ক করলেও প্রধান আসামী আসাব পালিয়ে যায়।

মেহেদীর স্বজন ও স্থানীয়রা তাকে গুরুতর আ’হত অবস্থায় কুলাউড়া হাসপাতা’লে ভর্তি করলে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতা’লে প্রেরণ করেন।

সেখানে ৯ দিন চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে মেহেদী। হা’মলায় মেহেদীর শ্বা’সনালীর ভেতরে অভ্যন্তরীণ ৫টি ও গলায় ২২টি সেলাই দেয়া হয়েছে। গলায় মা’রাত্মক জ’খমের কারণে ঠিকমতো কথা বলতে পারছেন না মেহেদী।

হা’মলার ঘটনায় মেহেদীর পরিবারের পক্ষ থেকে কুলাউড়া থা’নায় মা’মলা দায়ের করা হলেও প্রধান আসামী আসাব আলীকে আ’ট’ক করতে পারেনি পু’লিশ। মেহেদীর পিতা চিনু মিয়া জানান, স্কুলে যাওয়া আসার পথে আমা’র মে’য়েসহ অন্যান্য ছা’ত্রীদের উ’ত্ত্যক্ত করতো আসাব ও আলামাছ গংরা। এ নিয়ে আমা’র ছে’লে প্রতিবাদ করায় তার প্রা’ণ নাশের উদ্দেশ্যে আলমাছ ও আসাব আলী পরিক’ল্পিতভাবে হা’মলা করে। আমি বাদী হয়ে থা’নায় মা’মলা করলে বিষয়টি স্থানীয়ভাবে আপোষ করার জন্য আমাকে নানান হু’মকি দেয়া হয়। এ ঘটনায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে ৭ নভেম্বর আমি মৌলভীবাজার আ’দালতে আরেকটি অ’ভিযোগ দায়ের করেছি। বর্তমানে আম’রা আতঙ্কে রয়েছি।

এ ব্যাপারে কুলাউড়া থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) বিনয় ভূষন রায় জানান, এ ঘটনায় ভিকটিমের পরিবারের পক্ষ থেকে থা’নায় মা’মলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনায় জ’ড়িত একজনকে গ্রে’প্তার করে জে’লহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। তবে প্রধান আসামী পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রে’প্তারে পু’লিশি অ’ভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Comments are closed.

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: