সর্বশেষ আপডেট : ৫৯ মিনিট ২২ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

‘নৌকা ধরে রাখতে’ সেই শি’বির নেতার নাট’কী’য় কৌশল!

নিজেকে আওয়ামী লীগ প্রমাণ করতে ম’রিয়া নৌকার কা’ণ্ডারী শবির নেতা ইকবাল হোসেন ই’মাদ। নিজেকে আওয়ামী লীগ দাবি করে ‘একই নামে অন্য একজন শি’বিরের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন’ উল্লেখ করে প্রেস কনফারেন্সও করেছেন তিনি। তবে তার এ কৌশলের নেপথ্যের কাহিনী বেশ নাট’কী’য়।

জানা গেলো, একই উপজে’লায় একই নামে দুই মেয়াদে দুইজন শি’বিরের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। আর এটাকে কৌশল হিসেবে কাজে লাগাতে চাইছেন তিনি।

তবে একই নামে দুইজন শি’বিরের দায়িত্ব পালন করলেও দ্রুত নৌকার কা’ণ্ডারী বনে যাওয়া ইকবাল হোসেন ই’মাদ লন্ডনে গিয়ে ম্যানচেস্টার আওয়ামী লীগের এক সহ-সভাপতির আশীর্বাদপুষ্ট হয়ে খোলস পাল্টে ছাত্র শি’বির থেকে বনে যান আওয়ামী লীগ। অবশেষে দেশে এসে প্রথমে আওয়ামী লীগের সদস্য ও পরে ইউনিয়ন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বাগীয়ে নেন। বিষয়টি নিয়ে উপজে’লা আওয়ামী লীগ থেকে শুরু করে সিলেটজুড়ে চলছে সমালোচনা।

এদিকে সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে উপজে’লার ৬ নং দক্ষিণ রনিখাই ইউনিয়ন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়া অ’ভিযু’ক্ত ইকবাল হোসেন ই’মাদ সোমবার সন্ধ্যায় প্রেস কনফারেন্স করে বলেন যে, ইকবাল হোসেন ই’মাদ ছাত্র শি’বিরের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন, তিনি অন্য একজন। তার বাড়ি বর্ণী এলাকায়। তিনি মা’ওলানা আব্দুন নূর সাহেবের ছে’লে। বর্তমানে তিনি আল আরাফাহ ইস’লামি ব্যাংকে চাকরি করছেন। আর আমা’র বাবার নাম আব্দুস সালাম। আমা’র এলাকার নাম খাগাইল। আমি ২০০৫ থেকে লন্ডনে ছিলাম। দেশে এসেছি ২০১৬ সালে। সেখানেও যার আওতায় আমি চাকরি করতাম তিনি ম্যানচেস্টার আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ছিলেন। সুতরাং আমা’র বি’রুদ্ধে অ’পপ্রচার চলছে।

তবে অনুসন্ধানে জানা যায়, নৌকার এ প্রার্থী যাকে শি’বিরের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হিসেবে উল্লেখ করছেন তিনি ভিন্ন একজন এবং তার নাম ইকবাল হোসেন এমাদ। তিনিও উপজে’লা শি’বিরের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমানেও তিনি জামায়াতে ইস’লামের কমিটিতে আছেন। সে হিসেবে দুইজনই দুই মেয়াদে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।

এর মাঝে নৌকার প্রার্থী ইকবাল হোসেন ই’মাদ ২০০৬-২০০৭ সেশনে কোম্পানীগঞ্জ ছাত্রশি’বিরের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তার সময়ে সভাপতি ছিলেন আব্দুস শাকুর। আর আল আরাফাহ ইস’লামি ব্যাংকে কর্ম’রত বর্ণী এলাকার আব্দুন নূরের ছে’লে ইকবাল হোসেন এমাদ ২০০৮ সালে প্রথমে উপজে’লা শি’বিরের সাধারণ সম্পাদক ও পরে বিভিন্ন মেয়াদে শি’বিরের বিভিন্ন দায়িত্ব পালনসহ জামায়াতে ইস’লামের কমিটিতেও ছিলেন। তাই নৌকা ধরে রাখতে শি’বির নেতা এখন কৌশল অবলম্বন করছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বর্ণী এলাকার অ’পর ইকবাল হোসেন এমাদ মুঠোফোনে বলেন, নৌকার প্রার্থী যিনি তাকে আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি না। তিনি শি’বির ছিলেন নাকি অন্য কিছু সেটাও আমি জানি না। তবে বারবার আমা’র নাম উঠে আসায় আমি বিব্রত।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিন্দা ও সমালোচনার ঝড় বইলেও ইউনিয়ন নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হতে তৃণমূলের ২০টি ভোটের মধ্যে ই’মাদ ১১টি পেয়ে প্রাথমিকভাবে নৌকার প্রার্থী হিসেবে ছিলেন। পরে তিনি কেন্দ্র থেকেও নৌকার মনোনয়ন পান।

আর কোম্পানীগঞ্জ উপজে’লা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আফতাব আলী কালা মিয়া তো তাকে ‘আওয়ামী লীগের বাপ’ বলেই আখ্যা দিয়েছেন।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, তিনি জামাত করতেন তো কি হয়েছে? এখন সে আওয়ামী লীগেরও বাপ। অনেক বড় আওয়ামী লীগ; আপনার আমা’র কথায়তো তো তার মনোনয়ন চলে যাবে না। তাকে শেখ হাসিনা মনোনয়ন দিয়েছেন। সুতরাং সে অনেক বড় আওয়ামী লীগার। এতে স্থানীয় আওয়ামী লীগের ভূমিকা কি জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের আর কি ভূমিকা থাকতে পারে। আম’রাতো মনোনয়ন দিই না। আর উপজে’লা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলী আমজাদ এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতেই রাজি হন নি।

এর আগে গত শনিবার আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ঘোষণা করা হয়। সিলেট জে’লার কোম্পানীগঞ্জ উপজে’লার পাঁচ ইউনিয়নের মধ্যে দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়নে মনোনয়ন পেয়েছেন কোম্পানীগঞ্জ উপজে’লা ছাত্রশি’বিরের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন ই’মাদ। আর এ নিয়ে বিব্রত সিলেট আওয়ামী লীগের তৃণমূল কর্মীরা। প্রকাশ্যে কিছু না বললেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরব ছাত্রলীগ, যুবলীগ।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সিলেট জে’লা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন খাঁন বলেন, আমিও ব্যাপারটি শুনেছি, কিন্তু যখন মনোনয়নের জন্য তার আবেদন প্রক্রিয়াধীন ছিল তখন পর্যন্ত এমন কোনো অ’ভিযোগ পাইনি। মনোনয়ন প্রকাশ হবার পর অ’পর প্রার্থীর কাছ থেকে আম’রা এমন অ’ভিযোগ পাই, তবে তিনি কোনো তথ্য প্রমাণ হাজির করতে পারেন নি।

তিনি আরও বলেন, ই’মাদ যখন আওয়ামী লীগের কমিটিতে এলো তখন কোনো অ’ভিযোগ ওঠেনি। তাছাড়া প্রার্থী বাছাই নিয়ে বৈঠকে তিনি তৃণমূলের সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছেন। তারপরও আম’রা যাচাই বাছাই করে দেখছি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 24
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    24
    Shares

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: