সর্বশেষ আপডেট : ৯ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

চাঁদে জমি কিনলেন সিলেটের ঝুমন!

চাঁদে জমি কিনেছেন সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজে’লার পাড়ুয়া (বদিকোনা) গ্রামের সুজন আহমেদ। বর্তমানে তিনি আ’মেরিকার নিউজার্সির পে’টার্সনে বসবাস করছেন।

মা’র্কিন নাগরিক ডেনিস হোপের ‘লুনার অ্যাম্বাসি’ থেকে ৫৫ ডলারের বিনিময়ে এক একর জমি কিনেছেন সুজন আহমেদ। জমি কেনার পর একটি বিক্রয় চুক্তিনামা, কেনা জমির একটি স্যাটেলাইট ছবি এবং জমিটির ভৌগোলিক অবস্থান ও মৌজা-পর্চার মতো নথিও হস্তান্তর করেছে ওই প্রতিষ্ঠান।

সুজন আহমেদের পক্ষে এক সংবাদ বি’জ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

সংবাদ বি’জ্ঞপ্তিতে সুজন আহমেদ বলেন, ‘মানুষ স্বপ্ন বিলাসী, এর ব্যতিক্রম আমিও নই। জানি না চাঁদে যাওয়া কতটা সহ’জতম হবে; নাইবা গেলাম! যেতে পারে আমা’র জেনারেশন অথবা পরের জেনারেশন। বিজ্ঞানীরা সকল ধরনের চেষ্টা করে যাচ্ছেন চাঁদে মানব জাতির বসবাসের জন্য। হয়তোবা একদিন তারা সফল হবেন।’ গত সোমবার এই জমি কিনেছেন তিনি।

চাঁদে জমি কেনার জন্য মা’র্কিন নাগরিক ডেনিস হোপের ‘লুনার অ্যাম্বাসি’ অনেক জনপ্রিয় কোম্পানি। তাদের তথ্যানুযায়ী, চাঁদে জমির দাম প্রতি একর ২৪ দশমিক ৯৯ ডলার থেকে সর্বোচ্চ ৪৯৯ মা’র্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ২ হাজার ১২৫ টাকা থেকে ৪২ হাজার ৪৩৭ টাকা।

যদিও পৃথিবীর বাইরে চাঁদ কিংবা মহাকাশের অন্য কোনো গ্রহ পুরো মানবজাতির সম্পদ। কোনো ব্যক্তি বা জাতি এটি কিনতে পারেন না। তবে কিছু কিছু ওয়েবসাইট উপহার দেওয়ার জন্য চাঁদে জমি বিক্রি করে থাকেন। এমনকি সার্টিফিকেটও দেন। এটা স্রেফ আনন্দ পাওয়ার মতো কাজ। এসব দলির-দস্তাবেজ দিয়ে কেউ চাঁদে নিজের মালিকানা দাবি করতে পারবেন না।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 10.5K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    10.5K
    Shares

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: