সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

মা-বাবার আদর সোহাগে জাপানি সেই দুই শিশু

জেসমিন মালিকা ও লাইলা লিনা। তাদের মা জা’পানি নাগরিক নাকানো এরিকো এবং বাবা বাংলাদেশি নাগরিক শরীফ ইম’রান। বহুদিন পর তারা একসঙ্গে বাবা মা’কে পেয়েছে। তিনদিন ধরে গুলশানের ভাড়া করা বাসায় বাবা-মা’কে পেয়ে বেশ খুশি তারা। চার রুমের ফ্ল্যাটে আগামী ১৫ই সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাবা-মায়ের সঙ্গে মনের আনন্দে সময় কা’টাবে তারা।
জা’পানি নাগরিক নাকানো এরিকো। পেশায় চিকিৎসক। বাংলাদেশি নাগরিক শরীফ ইম’রান।

পেশায় প্রকৌশলী। দুইজনের পরিচয় টোকিও’র একটি হাসপাতা’লে। পরিচয় থেকে ভালো লাগা। এরপর ২০০৮ সালে টোকিও’র একটি ম’সজিদে পারস্পরিক বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। ২০০৮ সাল থেকে ২০২০ সাল তারা ছিলেন একসঙ্গে। একযুগের সংসার জীবনে জন্ম হয় তিন কন্যাসন্তান। কিন্তু এরিকো-ইম’রান এখন দুই মেরুর বাসিন্দা। এবার সন্তানদের অ’ভিভাবকত্ব পেতে মা জা’পানের আ’দালতে এবং বাবা বাংলাদেশের আ’দালতে মা’মলা করেন। জা’পানে এরিকোর দায়ের করা মা’মলা’টি নিষ্পত্তি হওয়ার আগেই ইম’রান তার দুই মে’য়েকে নিয়ে বাংলাদেশে চলে এসেছেন। এবার দুই মে’য়েকে ফিরে পেতে এরিকো টোকিও থেকে উড়ে আসেন ঢাকায়। আইনজীবীদের পরাম’র্শে হাই’কোর্টে রিট করেন।

সূত্র জানায়, ইম’রান-এরিকো গুলশানের যে বাসায় রয়েছেন, সেটিতে তিনটি বেড এবং একটি করে ডাইনিং ও ড্রয়িং রুম। একটি বেডরুমে থাকেন এরিকো, আরেকটিতে ইম’রান এবং অ’পরটিতে তাদের দুই মে’য়ে জেসমিন ও লাইলা। ইম’রানের নিয়োগ দেয়া গৃহকর্মী তাদের পছন্দের খাবার রান্না করছেন। দুই শি’শু কখনো মায়ের কাছে, কখনো বাবার ঘরে যাচ্ছেন। তারা বাবা-মায়ের সঙ্গে পৃথক কথা বলছেন। বাবা-মা’ও আলাদা সময়ে সন্তানদের কক্ষে গিয়ে সময় কা’টাচ্ছেন। কিন্তু বাবা-মাকে একসঙ্গে বসিয়ে কথাবার্তা বলা হচ্ছে না তাদের।

গত মঙ্গলবার হাই’কোর্ট দুই মে’য়ে শি’শুকে নিয়ে মা নাকানো এরিকো ও বাবা শরীফ ইম’রানকে এক বাসায় থাকার নির্দেশ দেন। ঢাকা সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালককে বলা হয়েছে বিষয়টি দেখভাল (মনিটরিং) করতে এবং ঢাকা মহানগর পু’লিশ ও পু’লিশের অ’প’রাধ ত’দন্ত বিভাগকে (সিআইডি) বাচ্চাসহ সবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বলা হয়। আগামী ১৬ই সেপ্টেম্বর পরবর্তী আদেশের জন্য রেখে আ’দালত বলেন, বিষয়টি তারা পর্যবেক্ষণে রাখবে। কোনো পক্ষ থেকে কোনো অ’ভিযোগ উঠলে তা পুনর্বিবেচনা করা হবে।

আ’দালতের নির্দেশে গুলশান-১ নম্বরের একটি ভাড়া বাসায় বুধবার থেকে দুই শি’শু বসবাস করছেন মা এরিকো নাকানো ও বাবা ইম’রান শরীফের সঙ্গে। দুইজনই সন্তানদের দেখাশোনা করছেন। তবে এক ছাদের নিচে বসবাস করলেও তাদের বাবা মা কেউ কারো সঙ্গে কোনো কথাবার্তা হচ্ছে না। উভ’য়েই উভ’য়কে এড়িয়ে চলছেন। শরীফ ইম’রান গণমাধ্যমকে বলেন, একই বাসায় থাকলেও এরিকোর সঙ্গে তার কথা হয় না।

ইম’রান শরীফের আইনজীবী ব্যারিস্টার কাজী মা’রুফুল আলম জানান, সন্তানদের নিয়ে আপাতত ভালোই আছেন এরিকো ও ইম’রান দম্পতি। তাদের দুই সন্তানও বেশ আনন্দে সময় কা’টাচ্ছেন। অ’পরদিকে এরিকোর আইনজীবী শিশির মনির জানান, সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে দুই সন্তান নিয়ে এরিকো ও ইম’রান গত বুধবার দুপুর ১টায় বাসায় ওঠেন। আ’দালতের নির্দেশে এরিকো একজন দোভাষী পেয়েছেন। তিনিও তাদের সঙ্গে ওই বাসায় থাকছেন। ইম’রান শরীফ বলেন, সন্তানদের জিম্মা নিয়ে সমঝোতামূলক কোনো আলাপ-আলোচনাই হয়নি এখনো। টুকটাক যা কথাবার্তা হচ্ছে, সবই সাংসারিক। বাসায় সারাক্ষণ পু’লিশ সদস্যরা আছেন। তবু এই ব্যবস্থা ভালো। পু’লিশ হাজির থাকলে তার বি’রুদ্ধে মি’থ্যে অ’ভিযোগ ওঠার আশ’ঙ্কা কম। তা ছাড়া তিনি নিজেও একটি শক্তিশালী ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা লাগিয়েছেন। তিনি কোনো অন্যায়ের দায় নিতে চান না। তবে সন্তানদের নিয়ে এই দম্পতি একসঙ্গে খাওয়া-দাওয়া করেছেন। এরিকো ও ইম’রানের মে’য়েরা অনলাইনে ক্লাসও করেছে।

তবে ইম’রান শরীফের আশ’ঙ্কা, আ’দালতের রায় এরিকোর পক্ষে গেলে সন্তানদের নিয়ে তিনি জা’পানে চলে যাবেন। আর কখনোই তিনি তার সন্তানদের দেখতে পাবেন না। ইম’রান শরীফ রয়টার্স ও ওয়াশিংটন পোস্টের দুটি প্রতিবেদনের উদ্ধৃতি দিয়ে জানান, ওয়াশিংটন পোস্ট তাদের ২২শে আগস্ট, ২০১৯ সংখ্যায় ‘প্যারেন্টাল চাইল্ড অ্যাবডাকশন বিকা’মস এ ডিপ্লোমেটিক এমব্যারাসমেন্ট ফর জা’পান অ্যাহেড অব জি-৭’ নামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনে একাধিক সাক্ষাৎকার রয়েছে। তাদের সবাই ভুক্তভোগী অ’ভিভাবক। জা’পানি নাগরিককে বিয়ে করার পর বিচ্ছেদ ঘটেছে এবং সন্তানকে আর দেখতে পাননি তারা। জা’পানের আইন দুই অ’ভিভাবকের যৌথ জিম্মা প্রথায় বিশ্বা’সী নয়। শি’শুরা যেন ধারাবাহিকভাবে এক জায়গায় থাকতে পারে, সেদিকেই মনোযোগ দেয়া হয় বেশি। শুধু যে বিদেশি নাগরিকেরা ভুগছেন তা-ই নয়, জা’পানেও বিবাহ বিচ্ছেদের পর সন্তানকে দেখতে পারেন না এমন অ’ভিভাবকের সংখ্যা প্রচুর।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 12K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    12K
    Shares
নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: