সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

পোল্যান্ড-বেলারুশ সীমান্তেও বাড়ছে অ’ভিবাসনপ্রত্যাশীদের ভিড়

লিথুয়ানিয়ার পর পোল্যান্ড-বেলারুশ সীমান্তে অ’ভিবাসনপ্রত্যাশীদের রেকর্ড-সংখ্যক ভিড়, জানাচ্ছে পোল্যান্ডের সীমান্ত রক্ষীরা।

ইউরোপকে চাপে রাখতে পোল্যান্ড সীমান্তেও অ’ভিবাসনপ্রত্যাশীদের পাঠাচ্ছে বেলারুশ, অ’ভিযোগ পোলিশ সীমান্তরক্ষীদের। সোমবার (৯ আগস্ট) তারা জানায়, বেলারুশের সাথে পোল্যান্ডের সীমান্তে মোট ৩৪৯ জন অ’ভিবাসনপ্রত্যাশীকে আ’ট’ক করেছে তারা। শুক্রবার থেকে সোমবার পর্যন্ত অব্যাহত থাকা অ’ভিবাসনপ্রত্যাশীদের স্রোতে বেশিরভাগ অ’ভিবাসনপ্রত্যাশীরই কোনো নথি নেই।

সীমান্ত রক্ষীদের ধারণা, বেশির ভাগ এসেছে আ’ফগা’নিস্তান ও ই’রাক থেকে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানাচ্ছে, সবচেয়ে বড় অ’ভিবাসনপ্রত্যাশীর দলটিকে পোল্যান্ডের কুজনিকা স্টেশনে আ’ট’ক করা হয়। শনিবার কুজনিকায় এসে পৌঁছান ৮৫ জন অ’ভিবাসনপ্রত্যাশী।

২০২০ সালে এই সীমান্তে আ’ট’ক করা হয় মোট ১২২ জন অ’ভিবাসনপ্রটযাশীকে। এই সংখ্যা বর্তমানে এসে দাঁড়িয়েছে ৮৭১ জন অ’ভিবাসনপ্রত্যাশীতে।

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে বেলারুশের সাথে সীমান্ত ভাগাভাগি করা দেশ পোল্যান্ড ও লিথুয়ানিয়ার ওপর বাড়ছে অ’ভিবাসনপ্রত্যাশী ব্যবস্থাপনার চাপ। পরিস্থিতি কঠিন হওয়ায় দুটি রাষ্ট্রই সাহায্য চেয়েছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের অন্তর্গত নানা সংস্থার কাছে।

মঙ্গলবার লিথুয়ানিয়ার সংসদ আলোচনা করবে এই বিষয়টি নিয়ে। ১৮ আগস্ট এ বিষয়ে আলোচনায় বসবে ইউরোপের স্বরাষ্ট্র বিষয়ক নেতৃত্বও, জানাচ্ছে রয়টার্স।

পোল্যান্ডের চেয়ে কয়েক গুণ বেশি অ’ভিবাসনপ্রত্যাশী এসেছেন লিথুয়ানিয়াতে। বার্তা সংস্থা ফ্রান্স টোয়েন্টি ফোর জানাচ্ছে, গত বছর যেখানে আসে মাত্র ৮১ জন অ’ভিবাসনপ্রত্যাশী, সেখানে বর্তমানে লিথুয়ানিয়ায় আসা অ’ভিবাসনপ্রত্যাশীর সংখ্যা ছাড়িয়েছে চার হাজার।

লিথুয়ানিয়া, পোল্যান্ডসহ ইইউ নেতৃত্ব এই সংকটের জন্য দায়ী করছেন বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কোকে। রয়টার্সের প্রতিবেদন জানাচ্ছে, এছাড়াও বেলারুশের খেলোয়াড় ক্রিস্টসিনা সিমানুস্কায়াকে আশ্রয় দেবার কারণেও পোল্যান্ডের ওপর ক্ষুব্ধ থাকতে পারে বেলারুশ।

ইতোমধ্যে বেলারুশের বি’রুদ্ধে নানা ধরনের বিধিনিষেধ আরোপ করেছে ইউরোপ, যা ভালো নজরে দেখছেন না লুকাশেঙ্কো।

সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে লুকাশেঙ্কো বলেন, এসবের (বিধি নিষেধের) উল্টো প্রভাবও পড়তে পারে, যা এখন বেলারুশ-পোল্যান্ড, বেলারুশ-লিথুয়ানিয়া, বেলারুশ-লাটভিয়া ও বেলারুশ-ইউক্রেন সীমান্তে দেখা যাচ্ছে। সৌজন্যঃ ইনফো মাইগ্রেন্ট

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 15
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    15
    Shares
নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: