সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

যুক্তরাজ্যে কমেছে বিয়ে, বেড়েছে ডিভোর্স

যু’ক্তরাজ্যে একদিকে কমেছে বিয়ের হার, অন্যদিকে বেড়েছে ডিভোর্স। সম্প্রতি জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরোর নতুন গবেষণায় এই তথ্য জানা গিয়েছে। গবেষণাটি করা হয়েছে ১৯৬১ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত। অর্থাৎ ৫০ বছরের বিয়ে ও ডিভোর্স নিয়ে গবেষণা করেছে সংস্থাটি।

গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ১৯৬০ সালের পর সব মিলিয়ে ১৬ বছরের উর্ধ্বে মানুষের বিয়ের হার কমেছে ৬৮ শতাংশ। যদিও ২০১১ সালের ব্রিটেনে বিয়ের হার কমেছিলো ৪৯ শতাংশ। কিন্তু দেশটিতে ডিভোর্সের হার বেড়েছে। ডিভোর্সের হার সর্বোচ্চ বেড়েছে ২০০৩ সালের পর।

পরিসংখ্যান ব্যুরোর দেওয়া তথ্যমতে, ১৯৬১ সালের তুলনায় ব্রিটেনে ২০১১ সালে ডিভোর্সের হার বেড়েছে ৭ শতাংশ। সব মিলিয়ে ডিভোর্স বেড়েছে ৯ শতাংশ। আর এর পেছনে অন্যতম বড় কারণ হিসেবে পরিসংখ্যান ব্যুরো বলছে, শেয়ারড বাসা গুলোতে ডিভোর্স বেশি হচ্ছে।

জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরোর দেওয়া তথ্যমতে, ৬ টি লোকাল এলাকায় বিয়ের হার কমছে , যার মধ্যে উত্তর পশ্চিমের ক্লিথেরো এলাকায় বিয়ের হার কমেছে ৪ শতাংশ। ব্লাকবার্ন এলাকায় বিয়ে কমেছে ৪ শতাংশ।

সর্বশেষ তথ্যমতে, ২০০৩ দেশটিতে সর্বোচ্চ ডিভোর্স হয় ১ লাখ ৫৩ হাজার ৬৫ জন। তবে ২০১১ সালে এই ডিভোর্সের সংখ্যা কমে গিয়ে তা হয় ১ লাখ ১৭ হাজার ৫৫৮ জন।

অন্যদিকে বিয়ে ও ডিভোর্স কমা’র সাথে সাথে দেশটিতে একা বাড়িতে থাকা বা নিজস্ব বাড়ি থাকার প্রবনতা কমছে। এই ৫০ বছরে মধ্যে ৪২ শতাংশ মানুষ পরিবার নিয়ে একক বাড়িতে বসবাস করছে। তবে সেন্ট্রাল লন্ডনে এ হার ১০ শতাংশ কম।

এদিকে ৫০ বছরে মধ্যে নিজস্ব বাড়ির মালিকানা বৃদ্ধি পেয়েছে ৬৪ শতাংশ। তবে লন্ডন এলাকায় এই হার কম।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 653
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    653
    Shares

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: