সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ২ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

লকডাউন শিথিলের ভাবনা, চালু হতে পারে বাস!

মানুষের জীবন-জীবিকার কথা ভেবে আসন্ন ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে চলমান করো’না বিধি-নিষেধে কিছুটা শিথিলতা আনতে যাচ্ছে সরকার। এরমধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশুরহাট বসানো, শপিংমল খুলে দেওয়া এবং সিটি করপোরেশন ও জে’লার ভেতর বাস চলার অনুমতি দেওয়া হতে পারে। তবে দূরপাল্লার বাস ও যাত্রীবাহী লঞ্চ-ট্রেন বন্ধ রাখা হবে। আর ঈদের ছুটিতে কর্মস্থল ত্যাগ না করতে নির্দেশনা দেওয়া হবে।

দেশের আকাশে রবিবার (১১ জুলাই) পবিত্র জিলহ’জ্জ মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ায় আগামী ২১ জুলাই ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। সার্বিক দিক বিবেচনায় চলমান বিধি-নিষেধ শেষে ঈদের সপ্তাহটিকেই গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। সরকারি সূত্র বলছে, আগামী ১৪ জুলাই শেষ হচ্ছে দুই সপ্তাহের চলমান বিধি-নিষেধ। এই দুই সপ্তাহের ফলাফল দেখেই মূলত ঈদ সামনে রেখে মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থা বিবেচনায় বিধি-নিষেধের শর্ত শিথিল করা হচ্ছে। তবে সবকিছুই নির্ভর করছে পরিস্থিতির উপর। আর ঈদের পর আবারও কঠোর বিধি-নিষেধ দেওয়া হতে পারে।

আসন্ন ঈদ সামনে রেখে চলমান বিধি-নিষেধের বিষয়ে আজ সোমবারের মধ্যে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হতে পারে জানিয়ে সরকারের শীর্ষ কর্মক’র্তারা বলছেন, পরদিন মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) এসব নিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন রবিবার (১১ জুলাই) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, আগামী ১৪ জুলাইয়ের পর চলমান বিধিনিষেধ আবারও বাড়তে পারে, আম’রা সেদিকেই গুরুত্ব দিচ্ছি।

তিনি বলেন, যে সংক্রমণ পরিস্থিতি, সেটি আম’রা পর্যবেক্ষণ করছি। বিধি-নিষেধ বাস্তবায়নের দিকেই সরকার বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। সংক্রমণ এবার এমনভাবে ছড়িয়েছে, সেটা খুবই আশ’ঙ্কাজনক। ১৪ তারিখের পরের সময়ও আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যদি আম’রা এ সংক্রমণ কমাতে চাই, তাহলে এ প্রক্রিয়া কিন্তু অব্যাহত রাখতে হবে বিভিন্ন পর্যায়ে।

অনলাইনে গরু কেনাবেচায় গুরুত্ব দেওয়া হলেও কোরবানির পশুরহাট কী’ভাবে বসবে তা নিয়ে মঙ্গলবার স্থানীয় সরকার বিভাগের একটি সভা অনুষ্ঠিত হবে বলে একজন কর্মক’র্তা জানিয়েছেন। কোরবানির হাট বিষয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, যেহেতু ঈদ এবং কোরবানির হাট আছে, এ দু’টি কী’ভাবে করলে সংক্রমণটি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবো, সেটিই আমাদের মূল লক্ষ্য। হাটগুলো যাতে নিরাপদ জায়গায় হয়, যেখানে তিনটি গেট থাকতে পারে। একটি দিয়ে ক্রেতারা ঢুকবেন, তারা পশু কিনে নিয়ে আসবেন। আরেকটি দিয়ে পশু ঢোকানো হবে। যাতে নির্দিষ্ট সংখ্যক ক্রেতা সেখানে ঢোকে এবং স্বাস্থ্যবিধি তারা মেনে চলে। সংক্রমণ ও মৃ’ত্যু, সেটি মা’থায় রেখেই হাটে আসতে হবে। পশু কেনাবেচায় অনলাইন হাটে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, গতবার যেহেতু ২৫ শতাংশ সাকসেসফুল করেছি (ডিজিটাল হাট), অনলাইনের হাটগুলোকে যাতে আরও জনপ্রিয় করা যায়, সেটি আম’রা আরও জো’র দিচ্ছি।

সরকারের একজন কর্মক’র্তা বলেন, শনিবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সভায় আসন্ন ঈদ সামনে রেখে বিধি-নিষেধ বিষয়ে সরকারের শীর্ষ কর্মক’র্তাদের বৈঠক হয়। সেই বৈঠকে ঈদে সীমিত পরিসরে পশুরহাট বসানো, শপিংমল খোলা, জে’লার ভেতরে বাস চলাচলের বিষয়ে আলোচনা হয়। তবে দূরপাল্লার বাস ও গণপরিবহন বন্ধ রাখার মত এসেছে। প্রয়োজন হলে ঈদের পর আবারও কঠোর বিধি-নিষেধ দেওয়ার মত দেন বেশিরভাগ কর্মক’র্তা। করো’না পরিস্থিতির উপর ঈদ সামনে রেখে সরকার সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

ঈদ উপলক্ষে চলমান বিধি-নিষেধে শিথিলতা আসবে কিনা- জানতে চাইলে সচিবালয়ে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের টেকনিক্যাল কমিটি যারা আছেন, তাদের পরাম’র্শে সরকার যদি মনে করে বিধি-নিষেধ এগিয়ে (বাড়ানো) নেওয়ার ব্যাপারে সেটিও হতে পারে। সবকিছুই এখন পরিস্থিতির উপর নির্ভর করছে। একটা কথা বারবার বলেছি আমাদের জীবনে ঈদ অনেকবার আসবে যদি আম’রা বেঁচে থাকি। আমাদের এই অবস্থা থেকে বের হতেই বিধি-নিষেধ দেওয়া হয়েছে, সেটি সবার মানা উচিত।

ঈদে গণপরিবহন চালু হবে কিনা- সে প্রশ্নে তিনি বলেন, বিধি-নিষেধ চলমান থাকলে গণপরিবহন চলাচলের কোনো সুযোগ নেই। আর বিধিনিষেধ যদি প্রত্যাহার হয় সেটা কী’ভাবে প্রত্যাহার হবে, যদি সীমিত আকারে হয় সীমিত আকারেই চলবে। যদি পুরোপুরি উঠে যায় পুরোপুরিই চলবে। আমা’র মনে হয় যে পরিস্থিতি আছে সেখানে আমাদের পুরোপুরি স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যাওয়ার মতো অবস্থায় পৌঁছাতে পারিনি। সরকারি সূত্র আরও বলছে, আগামী ২১ জুলাই ঈদ উদযাপিত হলে ঈদের তিনদিনসহ সা’প্তাহিক দু’দিন মিলে পাঁচদিনের ছুটিতে সবাইকে কর্মস্থলে রাখতে সরকারের প্রচেষ্টা রাখা হবে।

করো’না মহামা’রির কারণে গত ১ জুলাই থেকে সরকারি বিধি-নিষেধে সকল সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বন্ধ রাখা হয়েছে গণপরিবহনসহ শপিংমল। মানুষের চলাচলেও নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। আগামী ১৪ জুলাই এই বিধিনিষেধ শেষ হওয়ার আগেই নতুন সিদ্ধান্ত আসবে বলে কর্মক’র্তারা জানিয়েছেন। সুত্র: কালেরকন্ঠ

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 11
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    11
    Shares
নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: