সর্বশেষ আপডেট : ৫ ঘন্টা আগে
শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

কমলগঞ্জে করোনা খাতে বরাদ্দের টাকা ফেরত

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করো’না খাতে বরাদ্দ হওয়া টাকা ফেরত গেছে। যথাসময়ে ব্যবহার করতে না পারায় সম্প্রতি ১৪ লাখ ৯৪ হাজার ৬০০ টাকা ফেরত যায়।

জে’লা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, করো’না টিকা প্রদান, নমুনা সংগ্রহ, রোগীদের পরিচর্যা, করো’না সামগ্রী ক্রয়, প্রশিক্ষণ ও করো’না সংশ্লিষ্ট অন্যান্য খাতে ২০২০-২১ অর্থবছরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ডাইরেক্টর ও এমএন এইচ স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক প্রেরিত কমলগঞ্জ উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১৯ লাখ ৬৫ হাজার ৫২০ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ওই টাকা খরচ না করায় ১৪ লাখ ৬৫ হাজার ৫২০ টাকা ফেরত চলে গেছে।

মৌলভীবাজার জে’লা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, করো’না সংশ্লিষ্ট খাতে ২০২০-২১ অর্থবছরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় প্রশিক্ষণের জন্য ১ লাখ ২ হাজার ১৬০ টাকা বরাদ্দ হয়। যার পুরোটাই খরচ হয়েছে। আপ্যায়নের জন্য ১০ লাখ ৩৬ হাজার ৮০০ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। খরচ হয়েছে ২ লাখ ৫৬ হাজার ৮০০ টাকা। ফেরত চলে গেছে ৭ লাখ ৮০ হাজার। পরিবহনের জন্য বরাদ্দকৃত ৩ লাখ ৬০ হাজার এর মধ্যে খরচ হয়েছে ৪১ হাজার টাকা। ফেরত গেছে ৩ লাখ ১৬ হাজার টাকা। ভ্রমণের জন্য বরাদ্দ ১ লাখ ৮০০ টাকার মধ্যে খরচ হয়েছে ৫ হাজার ২শ’ টাকা। ফেরত গেছে ৯৫ হাজার ৬শ’ টাকা। স্বাস্থ্য বিধান সামগ্রীর জন্য বরাদ্দ ৪০ হাজার ৫৬০ টাকা যার পুরোটাই খরচ হয়েছে। সম্মানি ভাতা হিসেবে বরাদ্দকৃত ২৫ হাজার ২০০ টাকার পুরোটাই খরচ হয়েছে। সব মিলিয়ে এই ছয় খাতে মোট বরাদ্ধ হয়েছে ১৬ লাখ ৬৫ হাজার ৫২০ টাকার মধ্যে খরচ হয়েছে ৪ লাখ ৭০ হাজার ৯২০ টাকা। অবশিষ্ট ১১ লাখ ৯৪ হাজার ৬০০ টাকা ফেরত চলে গেছে। এছাড়াও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক সংগনিরোধক খাতে ৩ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হলেও কোনো টাকাই কাজে না লাগাতে পারায় পুরোটা ফেরত গেছে।

কমলগঞ্জ উপজে’লা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মক’র্তা ডা. মাহবুবুল আলম ভূঁইয়া জানান, এসব বিষয়ে জে’লা সিভিল সার্জন অফিসে তথ্য প্রেরণ করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে তিনি আর কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

মৌলভীবাজার সিভিল সার্জন ডা. চৌধুরী জালাল উদ্দিন মুর্শেদ জানান, সুনির্দিষ্ট ব্যয়ের কোনো পরিকল্পনা দেয়নি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। যার কারণে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সব টাকা খরচ করা সম্ভব হয়নি। তাছাড়া মন্ত্রণালয় থেকে টাকা সরাসরি সংশ্লিষ্ট উপজে’লায় পাঠানো হয়। যার কারণে ব্যয়ের বিষয়ে আমাদের কোনো এখতিয়ার ছিল না।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: