সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

হবিগঞ্জে পাহাড় কাটার মহোৎসব


হবিগঞ্জের বাহুবল উপজে’লা যেন প্রকৃতির এক অনন্য নিদর্শন। এখানে যেমন রয়েছে দেশের নামিদামী ‘দ্যা প্যালেস লাক্সারি রিসোর্ট’ তেমনি রয়েছে ‘বৃন্দাবন চা-বাগানসহ অসংখ্য পাহাড় টিলা।
উপজে’লার বেশিরভাগ অংশের সঙ্গে সীমান্তবর্তী এলাকা থাকায় সীমান্ত এলাকাজুড়ে রয়েছে অসংখ্য সরকারি পাহাড় টিলা। আর এসব পাহাড় টিলার ওপর এখন কুনজর পড়েছে স্থানীয় একটি প্রভাবশালী সিন্ডিকে’টের।

সিন্ডিকেটটি রাতের আঁধারে অথবা প্রকাশ্যে এক্সকেভেটরের মাধ্যমে পাহাড় কে’টে মাটি নিয়ে যাচ্ছে। ফলে দিনে দিনে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনে যাচ্ছেন এসব সিন্ডিকে’টে থাকা অসাধু লোকজন। এছাড়াও প্রতিনিয়ত মাটি কে’টে নেয়ার ফলে পাহাড় টিলা সংলগ্ন এলাকায় বসবাসরত লোকজন রয়েছে ভূমি ধসের শ’ঙ্কায়। তাই স্থানীয়দের দাবি দ্রুত যেন বিষয়টি নজরে এনে যথাযথ পদক্ষেপ নেন প্রশাসন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বাহুবল উপজে’লার পুটিজুরি, ভবানীপুর, সুন্দ্রাটিকি, পানি উম’দাসহ বেশ কিছু এলাকায় মহাসড়কের পাশসহ সীমান্ত ঘেষা রয়েছে অসংখ্য পাহাড় ও টিলা রয়েছে। বেশ কিছুদিন যাবত ওই সব টিলা ও পাহাড় থেকে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে মাটি কে’টে নিয়ে যাচ্ছে একটি প্রভাবশালী সিন্ডিকেট।

পুটিজুরি ইউনিয়নে একটি প্রকল্প পরিদর্শন করতে যান উপজে’লা প্রশাসনের কর্মক’র্তারা। এ সময় এক্সকেভেটর দিয়ে পাহাড় কা’টার দৃশ্য নজরে আসে বাহুবল এর ইউএনও সিগ্ধা তালুকদারের। তাৎক্ষণিক তিনি এগিয়ে গেলে এক্সকেভেটর ফেলে পালিয়ে যায় শ্রমিকরা।পুটিজুরি ইউনিয়নে একটি প্রকল্প পরিদর্শন করতে যান উপজে’লা প্রশাসনের কর্মক’র্তারা। এ সময় এক্সকেভেটর দিয়ে পাহাড় কা’টার দৃশ্য নজরে আসে বাহুবল এর ইউএনও সিগ্ধা তালুকদারের। তাৎক্ষণিক তিনি এগিয়ে গেলে এক্সকেভেটর ফেলে পালিয়ে যায় শ্রমিকরা।

সিন্ডিকেটটির সদস্যরা এতটাই শক্তিশালী যে স্থানীয়রা তাদের বি’রুদ্ধে মুখ খুলতে সাহস পায় না। আবার কেউ কেউ মাঝে মধ্যে তাদের বি’রুদ্ধে কথা বললেও তাদেরকে করা হয় বিভিন্ন ভাবে হয়’রানি। দেয়া হয় হু’মকি ধামকিও। ফলে বন ও পরিবেশ আইন অমান্য করে মাটি কে’টে অন্যত্র বিক্রি করার উৎসবে মেতে উঠছেন তারা। যার ফলে পরিবেশ হারাচ্ছে তার প্রাকৃতিক ভা’রসাম্য। পাহাড়ে বসবাসরত প্রা’ণীকূল হারাচ্ছে তাদের নিরাপদ আবাসস্থল।

এদিকে, গত সোমবার বিকেলে পুটিজুরি ইউনিয়নে একটি প্রকল্প পরিদর্শন করতে যান উপজে’লা প্রশাসনের কর্মক’র্তারা। এ সময় এক্সকেভেটর দিয়ে পাহাড় কা’টার দৃশ্য নজরে আসে বাহুবল এর ইউএনও সিগ্ধা তালুকদারের। তাৎক্ষণিক তিনি এগিয়ে গেলে এক্সকেভেটর ফেলে পালিয়ে যায় শ্রমিকরা। এ সময় তিনি ভ্রাম্যমাণ আ’দালত বসিয়ে এক্সকেভেটরটি ও বিপুল পরিমাণ মাটি উ’দ্ধার করেন।

স্থানীয়দের অ’ভিযোগ, এসব পাহাড় ও টিলা কা’টার মূলে রয়েছে দলীয় কিছু পাতি নেতাকর্মীরা। তারা স্থানীয় রাজনীতির প্রভাব খাটিয়ে এসব টিলা ও পাহাড় কে’টে সাবার করে দিচ্ছে। কিন্তু প্রশাসন মাঝে মধ্যে লোক দেখানো অ’ভিযান চালালেও কাজের কাজ হচ্ছে না কিছুই। তাই বর্ষা মৌসুমে ভা’রি বৃষ্টিপাত হলে ধসের শ’ঙ্কায় রয়েছে বহু সাধারণ নিরীহ লোকজনের ঘর-বাড়ি। তাই বিষয়টি নজরে এনে প্রভাবশালীদের বি’রুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য জে’লা প্রশাসনের প্রতি দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী লোকজন।

ভূমি ধ্বসের শ’ঙ্কায় থাকা পুটিজুরি গ্রামের বাসিন্দা আফতাব আহমেদ জানান, আমাদের পুটিজুরি এলাকায় অসংখ্য পাহাড় ও টিলা রয়েছে। কিন্তু কালের বিবর্তনের ফলে এসব টিলা ও পাহাড় এখন অস্তিত্ব হারাতে বসেছে। মাটি খেকোরা প্রতিনিয়ত এসব পাহাড় টিলা থেকে মাটি কে’টে নেয়ার ফলে ধসের শ’ঙ্কায় রয়েছেন তিনিসহ বহু পরিবার।

হেলাল আহমেদ জানান, পাহাড় টিলা প্রকৃতির অনন্য বৈশিষ্ট ধারণ করে আমাদের মধ্যে তাদের রুপ বিলিয়ে দেয়। কিন্তু মানুষ নামের কিছু অমানুষরা এসব টিলা ও পাহাড় কে’টে সেই রুপ থেকে আমাদের বঞ্চিত করছে পাশাপাশি পরিবেশধ্বং,সের মুখে ঠিলে দিচ্ছে। তাই তিনি বিষয়টির ওপর প্রশাসনের কঠোর নজরদারীর দাবি জানান।

রহিমা খাতুন জানান, পাহাড় ও টিলা কে’টে মাটি নেয়ার ফলে বাড়ি ঘরের পার্শ্ববর্তী অনেক স্থানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টির মৌসুমে এসব গর্তে পড়ে আমাদের ছোট ছোট ছে’লে মে’য়েদের প্রা’ণহানি ঘটতে পারে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাহুবলের ইউএনও সিগ্ধা তালুকদার জানান, পাহাড় ও টিলা কা’টা একটি জঘন্যতম অ’প’রাধ। এর সঙ্গে যারা জ’ড়িত তারা যত বড় শক্তিশালীই হোক না কেন তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে। এ বিষয়ে ডিসি ইশরাত জাহানের কঠোর নির্দেশনা রয়েছে। এরই মধ্যে বেশ কিছু স্থানে অ’ভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। দেয়া হয়েছে মা’মলা। অ’ভিযান অব্যাহত থাকবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: