সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

পর্যটন ব্যাবসায় ফ্রান্সের প্রত্যাবর্তন : বিদেশী পর্যটকদের স্বাগতম

গত বুধবার থেকে বিদেশী পর্যট’কদের প্রবেশ চুড়ান্তভাবে উন্মুক্ত করেছে ফ্রান্স। এতে করে গত এক বছরের ভ’য়বহ দুঃসময়ের ইতি টানতে যাচ্ছে ফ্রান্স বলে মনে করছেন অনেকে। ফ্রান্সের এমন সিদ্ধান্তে দেশটির সাধারণ জনগণ থেকে শুরু করে পর্যটন শিল্পের সাথে জ’ড়িত ছোট-বড় ব্যবসায়ী সকলেই উচ্ছাসিত।
একই সাথে উচ্ছাস প্রকাশ করেছেন ফ্রান্সের পর্যটন মন্ত্রী জঁ ব্যাপটিস্ট লেময়নি। ফ্রান্সে বিদেশী পর্যট’কদের স্বাগত জানিয়ে টুইটারে এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, আম’রা চাই ফ্রান্স আবারও ডাচ, জার্মান, ইংরেজ, ইতালিয়ান, স্প্যানিশ ভাষাভাষি মানুষে মুখরিত হয়ে উঠুক। আম’রা তাদের শূণ্যতা অনুভব করি।

প্যারিসে পর্যট’কদের ব্যাবস্থাপনা নিয়ে কাজ করে থাকে এমন একটি প্রতিষ্ঠান এর ভ্রমণ পরিচালক মা’র্ক ভা’র্নেটের সাথে আলাপকালে তিনি জানান, বিদেশী পর্যট’কদের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়ার ফ্রান্সের এ সিদ্ধান্তে তিনি আশার আলো দেখতে পাচ্ছেন। যদিও জুলাইয়ে মাঝামাঝির আগে পর্যট’কদের চাপ তেমন একটা বাড়বে বলে তিনি মনে করেন না। মহামা’রীর আগে যেখানে মি. ভা’র্নেট দিনে ৩-৪ টি ট্যুর পরিচালনা করতেন সেখানে লকডাউনের পর প্রতিষ্ঠানের কর্মকা’ন্ড এক রকম স্থগিত হয়ে পড়ে। তবে এখন তিনি ফ্রান্স সরকারের এই নতুন সিদ্ধান্তে উচ্ছাস প্রকাশ করে বলেন, এই দিনটির জন্য আম’রা এতদিন মাসের পর মাস অ’পেক্ষা করে আসছিলাম।

পর্যট’কদের জন্য এ অবরোধ তুলে নেয়ার পাশাপাশি খুলে দেয়া হচ্ছে খাবারের দোকান ও রেস্টুরেন্টগুলোও। এখন যেকেউ ভেতরে বসেই খাবার খেতে পারবে।

ইউরোপের বাইরে যু’ক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য দেশের ক্ষেত্রে প্রবেশের সময় ভ্যাক্সিন গ্রহণের সনদ দেখাতে হবে। তবে ভ্যাক্সিনটি অবশ্যয় ইউরোপীয় ইউনিয়ন মেডিসিন এজেন্সির অনুমোদিত হতে হবে। ফ্রান্সে শুধুমাত্র ফাইজার, মডার্না, অ্যাসট্রাজেনেকা এবং জনসন এন্ড জনসনের ভ্যাক্সিনের সনদ গ্রহণ করছে। এর বাইরে চায়না ও রাশিয়ায় ব্যাবহৃত অন্যান্য ভ্যাক্সিনকে অনুমোদন দেয়নি ইউরোপীয়ান ইউনিয়ন মেডিসিন এজেন্সি।

চারটি ভ্যাক্সিনের যেকোন একটি ভ্যাক্সিন গ্রহণের সনদপত্র প্রদর্শন ছাড়াও অধিকাংশ নন-ইউরোপীয়ানদের ক্ষেত্রে ফ্রান্সে প্রবেশের উপযু’ক্ত কারণ দর্শানো ও অ’তিরিক্ত যাচাই-বছাইয়ের সম্মুখিন হতে হবে এবং পৌছানের পর অবশ্যই কোয়ারাইন্টিনে থাকতে হবে।

তবে ইউরোপের দেশগুলো অ’পেক্ষাকৃত কম ঝুঁ’কির মধ্যে থাকার সুবাদে সেসব দেশগুলোর নাগরিক ভ্যাক্সিন গ্রহণ ছাড়াই প্রবেশ করতে পারছে ও কোয়ারাইন্টিনে থাকারও প্রয়োজন পড়ছে না।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 17.3K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    17.3K
    Shares
নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: