সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

হবিগঞ্জে গ্রেফতারকৃত আব্দুল মুকিত জঙ্গি সংগঠনের সদস্য

নবীগঞ্জ শাখোয়া বাজারস্থ মা’রকাযুস সুন্নাহ আল ইস’লামিয়া মাদরাসা প্রতিষ্ঠাতা হেফাজত নেতা মা’ওলানা হাফেজ আব্দুল মুকিতকে আ’ট’কের ৭দিন পর গ্রে’প্তার দেখিয়েছে আইনশৃংখলা বাহিনী। গত শনিবার (৮ মে) সন্ধ্যায় ঢাকার মোহাম্ম’দপুরে বছিলায় অ’ভিযান চালিয়ে নবীগঞ্জের মাদ্রাসা শিক্ষক আব্দুল মুকিতসহ ৪ জনকে গ্রে’প্তার করে আইনশৃংখলা বাহিনী। গ্রে’প্তারকৃত ৪ জন নিষিদ্ধ জ’ঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইস’লামের সদস্য বলে দাবী করছে আইনশৃংখলা বাহিনী। গ্রে’প্তারকৃত ৪ জন পু’লিশ ও বিজিবির ওপর ‘হা’মলার পরিকল্পনা’ করছিল বলে আইনশৃংখলা বাহিনীর ভাষ্য।

রবিবার (৯ মে) বিকেলে পু’লিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের ইনভেস্টিগেশন বিভাগ এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করে। গ্রে’প্তারকৃতরা হলেন- হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ থা’নার মা’রকাজুস সুন্নাহ আল ইস’লামিয়া মাদরাসার শিক আব্দুল মুকিত (২৯), রাজধানীর অ’তীশ দীপঙ্কর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএর ছাত্র জসিমুল ইস’লাম জ্যাক (২৫), সিলেটের আল হিদায়া ইস’লামিক ইনস্টিটিউটের ছাত্র আমিনুল হক (২০) এবং সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের অনার্সের শিার্থী সজীব ইখতিয়ার (২০)। গ্রে’প্তারের সময় তাদের হেফাজত হতে ১টি ব্যাগ, ১টি চাপাতি, ৫টি স্মা’র্ট ফোন ও ২টি ল্যাপটপ উ’দ্ধার করা হয়। কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান উপ মহাপরিদর্শক মো. আসাদুজ্জামান সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “জ’ঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইস’লামের গ্রে’প্তারকৃত সদস্যরা ঢাকা ও সিলেটে পু’লিশ ও বিজিবির টহল টিমে হা’মলার পরিকল্পনা করেছিল। এজন্য তারা রেকিও করে।” গ্রে’প্তার ওই চারজন এবং তাদের অন্য সদস্যরা ‘সায়েন্স প্রজেক্ট’ নামে একটি মেসেঞ্জার গ্রুপ খুলে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রাখতেন।

ওই গ্রুপের দুইজন ইতোমধ্যে আ’ফগা’নিস্তানে চলে গেছেন এবং বাকিরাও দেশে কোনো ‘নাশকতা ঘটিয়ে’ আ’ফগা’নিস্তানে চলে যাওয়ার ‘প্রস্তুতিতে ছিলেন’ বলে পু’লিশের এই বিশেষায়িত ইউনিটের ভাষ্য। জ’ঙ্গিরা হঠাৎ কেন বিজিবিকে নিশানা করল-এমন প্রশ্নের জবাবে আসাদুজ্জামান বলেন, “জ’ঙ্গিরা আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীকে তাদের হা’মলার লক্ষ্য হিসেবে রেখেছে।”

এ দলের জ’ঙ্গিদের আ’ফগা’নিস্তানে ‘হিজরত’ করা নিয়ে এক প্রশ্নে ডিআইজি আসাদুজ্জামান বলেন, “আপনারা জানেন, আমাদের দেশে যে কটি জ’ঙ্গি সংগঠন সক্রিয়, তাদের অধিকাংশই আল-কায়েদার সঙ্গে তাদের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে বলে দাবি করে। “আনসার আল ইস’লাম উপমহাদেশের আল-কায়েদার শাখা বলে দাবি করে। সেই সূত্র ধরেই তারা হয়ত আ’ফগা’নিস্তানে হিজরত করতে গিয়ে থাকতে পারে। তবে এটা তাদের ভাষ্য, এ বিষয়ে আম’রা এখনও নিশ্চিত হতে পারিনি।” আরেক প্রশ্নের জবাবে সিটিটিসি প্রধান বলেন, “তাদের পরিকল্পনা ছিল অক্সিজেন গ্যাস সিলিন্ডারের মাধ্যমে বড় ধরনের বি’স্ফোরণ ঘটানো।

এ বিষয়টি তাদের পরিকল্পনা পর্যায়ে ছিল।” সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গ্রে’প্তার ওই ‘জ’ঙ্গিরা’ সম্প্রতি সংগঠনের নেতাদের নির্দেশে সিলেটের কোতোয়ালি থা’না এলাকায় একটি আবাসিক হোটেলে ধারালো অ’স্ত্র নিয়ে হা’মলা করে হোটেল ম্যানেজারকে আ’হত করে পালিয়ে যায়। ওই চারজনের স’ম্পর্কে বিস্তারিত জানতে খোঁজ-খবর করা হচ্ছে বলে জানান কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের আসাদুজ্জামান। গ্রে’প্তার চারজনকে পরে ঢাকার আ’দালতে নিয়ে যায় পু’লিশ।

তাদের ১০ দিন হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদের আবেদন করে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রা’ইম ইউনিট। শুনানি শেষে বিচারক মাসুদ-উর-রহমান তাদের সাত দিন হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেন। আ’সামিদের পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না। মাদ্রাসা শিক্ষক ও স্থানীয় হেফাজত নেতাদের দাবী, নবীগঞ্জ উপজে’লার করগাঁও ইউনিয়নের ছোট শাখোয়া গ্রামের রাঙ্গা মিয়ার ছে’লে হাফেজ মা’ওলানা আব্দুল মুকিত ইস’লামী শাসনতন্ত্র আ’ন্দোলন (চরমোনাই) এর সঙ্গে জ’ড়িত রয়েছেন। প্রায় দুই বছর আগে সিলেট থেকে নবীগঞ্জস্থ তার জন্মস্থান শাখোয়া বাজার সংলগ্ন এলাকায় মা’রকাযুস সুন্নাহ আল ইস’লামিয়া মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করেন তিনি।

প্রতিষ্ঠাকাল থেকেই তিনি ওই মাদরাসার মুহতামিমের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। সম্প্রতি সারা দেশে হেফাজতে ইস’লাম বাংলাদেশের আ’ন্দোলনের অংশ হিসেবে নবীগঞ্জ শাখার বিভিন্ন কর্মসূচিতে তাকে সরব ভূমিকা পালন করতে দেখা গেছে।ঃ গত (১ মে) দিবাগত রাত ২টার দিকে ঢাকা থেকে আসা আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা নবীগঞ্জ উপজে’লার শাখোয়া বাজারস্থ মা’রকাযুস সুন্নাহ আল ইস’লামিয়া মাদরাসা থেকে হাফেজ আব্দুল মুকিতকে আ’ট’ক করে ঢাকায় নিয়ে যায়। এ সময় আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা মাদরাসায় অবস্থানরত অন্যান্য শিক্ষকদের জানান তারা ঢাকার ডিবি পু’লিশের লোক। ওই সময় নবীগঞ্জ থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) ডালিম আহম’দ জানান, এ বিষয়ে নবীগঞ্জ থা’নাকে কিছু অবহিত করা হয়নি।

তবে তিনি জেনেছেন যে ঢাকা থেকে আসা ডিবি পু’লিশের একটি টিম মা’ওলানা মুকিতকে আ’ট’ক করেছে। এ প্রসঙ্গে হেফাজত ইস’লাম বাংলাদেশ নবীগঞ্জ উপজে’লা শাখার মহাসচিব মা’ওলানা শাহ আলম বলেন- মুকিত একজন ভালো ছে’লে, সে একটি মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেছে, সাম্প্রতিক সময় হেফাজতের বিভিন্ন আ’ন্দোলনে সে অংশ গ্রহণ করে, তাকে গত (১ মে) দিবাগত গভীর রাতে তাঁর প্রতিষ্ঠিত শাখোয়া বাজারস্থ মাদ্রাসা মা’রকাযুস সুন্নাহ আল ইস’লামিয়া মাদরাসা থেকে আ’ট’ক করা হলেও শনিবার তাকে ঢাকায় গ্রে’প্তার দেখানোর বিষয়টি দুঃখজনক।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: