সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
সোমবার, ১৪ জুন ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

মৌলভীবাজারে প্রাউড টু বি সিলেটি ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্ট ইউ.কে’র খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

মকিস মনসুর: প্রাউড টু বি সিলেটি উই বিলিফ ইন ইউনিটি এই স্লোগানকে বুকে ধারণ করে বিগত তিন বছর ধরে বৃটেন থেকে বাংলাদেশের আর্ত-মানবতার  সেবায় ও ইউকে বাংলাদেশ কমিউনিটির উন্নয়ণে নিষ্টা ও নিরলসভাবে কাজ করে চলছে প্রাউড টু বি সিলেটি ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্ট ইউকে। এবারকার কভিড১৯ করোনা সংকটে ও রামাদান মাসে অসহায় ও নিডি পরিবারবর্গের মধ্যে সিলেট বিভাগের ৪ টি জেলায় ৪ টি স্পষ্টে ৫ লাখ টাকার রামাদান খাদ্য সামগ্রী ও আর্থিক সহায়তা প্রদান করার উউদ্দ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

শনিবার পহেলা মে, সকাল ১১ ঘটিকার সময় মৌলভীবাজার সদর উপজেলাধীন তৈয়বনগর, বাউরঘড়িয়া, সৈয়দা তাহিরুন্নেছা হাফিজিয়া মাদ্রাসা সংলগ্ন মাঠে এক আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে দিয়ে, অসহায় হতদরিদ্র ১৫০ টি পরিবারের মাঝে পবিত্র মাহে রামাদ্বানুল মোবারক উপলক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

সাপ্তাহিক জনপ্রত্যাশার সম্পাদক ও বাসস জেলা প্রতনিধি বিশিষ্ট সমাজসেবক ডাঃ ছাদিক আহমদ,এর সভাপতিত্বে এবং মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি ও প্রাউড টু বি সিলেটি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউ কে এর জেলা প্রতিনিধি ছাত্রনেতা মোহাম্মদ ফয়ছল মনসুর এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার-৩, আসনের সংসদ সদস্য, ভূমি মন্ত্রণালয় স্হায়ী কমিটির সদস্য
ও মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জননেতা নেছার আহমেদ এমপি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর ডঃ মোঃ ফজলুল আলী,মৌলভীবাজার পৌরসভার সাবেক মেয়র,ও জেলা বিএনপির সহ সভাপতি বিশিষ্ট সমাজসেবক ফয়জুল করিম ময়ূন।

এছাড়া ও অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দৈনিক জনকন্ঠ ও বাংলাভিশন জেলা প্রতিনিধি বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী সৈয়দ হুমায়েদ আলী শাহীন, সাপ্তাহিক পাতা কুড়ির সম্পাদক ও মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সাবেক সম্পাদক বিশিষ্ট সাংবাদিক সৈয়দ এস এম উমেদ আলী, ও প্রাউড টু বি সিলেটি ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্ট ইউ কের সদস্য ফয়ছল মুরাদ সাজ্জাদ.সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

প্রসঙ্গত, বৃটেনে বসবাসরত বাংলাদেশিরা প্রাউড টুবি সিলেটি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট গঠন করেন। ‘প্রাউড টুবি সিলেটি উই বিলিভ ইন ইউনিটি’ এ স্লোগানকে ঘিরে সিলেট বিভাগের চারটি জেলায় এ সংগঠনটি গত তিন বছর ধরে দেশে আর্ত-মানবতার সেবায় কাজ করে আসছে। বিশেষ করে করোনার মহামারিতে বাংলাদেশের অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ায়। মৌলভীবাজার জেলার দুটি সংগঠনকে আর্থিক সহায়তা ছাড়াও করোনা সংক্রমণে নিহতদের দাফন-কাফনের কাজটিও করা হয় সংগঠনের পক্ষ থেকে। পাশাপাশি ইতিপূর্বে হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ সদরের বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে গুরুতর আহত তাসরীন আক্তার নদীকে ৫ লাখ টাকা মানবিক সহায়তা প্রদান করা হয়।

এ ছাড়াও সংগঠনটির পক্ষ থেকে সিলেট বিভাগের চার জেলায় বিভিন্ন মসজিদ, মাদ্রাসা এবং এতিমখানায় সাহায্য সহযোগিতা অব্যাহত রয়েছে। ইতিমধ্যে ১১টি প্রজেক্ট বাস্তবায়নের মাধ্যমে মানবতার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থপন করে চলছে প্রাউড টু বি সিলেটি ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্ট ইউকে।

সেই ধারাবাহিকতায় আজ মৌলভীবাজার জেলা সহ সিলেট বিভাগের ৪ টি জেলায় পর্যায়ক্রমে রামাদ্বান খাদ্য সামগ্রী  বিতরণ ও আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে।

২০২১সালের রামাদান প্রজেক্টে যে সব দানশীল ব্যাক্তিবর্গ অর্থ প্রদান করেছেন উনারা হচ্ছেন কমিউনিটি লিডার নুরুল ইসলাম মাহবুব. মোহাম্মদ রমজান. মসুদ আহমদ, আকলাকুল আলম সেবু. মোহাম্মদ মোশাহিদ.ছায়েম সৈয়দ. হাবিবুর রহমান রানা. হারুনুর রশিদ. মিছবাহ তরফদার. রেজাউল করিম শিপার. এ বি রুনেল. ফারুক আলী.নুনু মিয়া.সৈয়দ রুবেল.মীর গোলাম মোস্তফা.শিপন আহমদ.মোহাব্বত শেখ. কাজী মুহিদ. কদর উদ্দিন. শেখ শাহজাহান আহমদ তরফদার, হেলাল তফাদার. সৈয়দ আবু সাঈদ. আশরাফ মিয়া. সৈয়দ আব্দুল কাইয়ুম কায়সার. আলাউদ্দিন আহমেদ. জামাল হোসাইন. মোহাম্মদ বদরুল ইসলাম. আলাউর রহমান মোমেন. ফয়সল মুরাদ. আব্দুর রকিব সিকদার. নুরুল ইসলাম.গিয়াস উদ্দিন. আফছারুজ্জামান পারভেজ. ও মোহাম্মদ মকিস মনসুর প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: