সর্বশেষ আপডেট : ৭ ঘন্টা আগে
শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

হবিগঞ্জে ফেইসবুকে ভাইরালের পর মা বাবার কাছে ফিরল শিশু

ফেইসবুকে ভাই’রালের হওয়ায় ১৪ দিন পর মা বাবার কাছে সমাজসেবা অফিসের মাধ্যমে মা বাবার কাছে ফিরে গেলো ১২ বছরের শি’শু। হবিগঞ্জ জে’লার মাধবপুর উপজে’লার ছাতিয়াইন ইউনিয়নের সাংকুচাইল গ্রামের এস, এম জালাল মাহফুজের ছে’লে জামিল আহম’দ ইমন (১২) গত ১১ মা’র্চ বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়।

নিখোঁজের ৯ দিন পর পঞ্চগড় রেলস্টেশনে স্থানীয় লোকজন তাকে পেয়ে পঞ্চগড় থা’না পু’লিশের কাছে তুলে দেন। পঞ্চগড় সদর থা’নার উপ-পরিদর্শক রাসু বেগম শি’শুটিকে উ’দ্ধার করে পঞ্চগড় জে’লা সমাজসেবা অফিসের প্রবেশন অফিসার মোছা: লায়লা আরজুমানের মাধ্যমে শি’শু হেফাজত খানায় রাখা হয়। নিখোঁজ ছে’লেটি প্রথমে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজে’লার শমশেরনগর নানা বাড়ি বলে জানায়।

পরে কমলগঞ্জ উপজে’লা সমাজসেবা অফিসার প্রা’ণেশ বর্মা শি’শুর তথ্যটি যাচাই করে দেখতে পান এখানে তার নানার বাড়ি নেই। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মী আলমগীর হোসেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শি’শুটির ছবিসহ একটি পোস্ট দেন। এতে বিষয়টি ব্যাপকভাবে ভাই’রাল হওয়ার পর শি’শুটির পিতার নজরে আসে। অবশেষে গত ২৬ মা’র্চ শুক্রবার সাংবাদিক আলমগীর হোসেন এর সাখে ছে’লের বাবা যোগাযোগ করে পঞ্চগড় জে’লা সমাজসেবা অফিসের প্রবেশন অফিসার মোছা: লায়লা আরজুমান ও পঞ্চগড় সদর থা’নার উপ-পরিদর্শক রাসু বেগম এর মাধ্যমে নিখোঁজ ছে’লেটিকে তার পিতা এস, এম জালাল মাহফুজের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

পঞ্চগড় জে’লা সমাজসেবা অফিসের প্রবেশন অফিসার মোছা: লায়লা আরজুমান রোববার বিকেলে এ প্রতিনিধির কাছে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। নিখোঁজের ১৪ দিন পর ছে’লেটিকে ফিরে পেয়ে বাবা-মা ও পরিবারের সবাই আনন্দিত

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: