সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

সিলেটে কোয়ারেন্টাইনের হোটেলেই বিয়ে সারলেন লন্ডন প্রবাসী

সিলেট নগরের একটি হোটেলে ৯ লন্ডন প্রবাসী উধাও হওয়ার ঘটনা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে এবার প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন ভেঙে হোটেলেই বিয়ে করেছেন এক লন্ডন প্রবাসী। এ খবরে নগরবাসীর মধ্যে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থা এই বিয়ের আয়োজনের সত্যতাও পেয়েছে।

পুলিশ ও হোটেল কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা ছাড়া এরকম বেআইনিভাবে এত বড় একটি আয়োজন করা সম্ভব নয় বলে মনে করছেন সংক্ষুব্ধ নাগরিকরা। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত প্রত্যেককেই আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, যুক্তরাজ্যফেরত এক প্রবাসী নগরের লামাবাজারের হোটেল লা-ভিস্তায় কোয়ারেন্টাইনে থাকা অবস্থায় গত ২০ মার্চ কোয়ারেন্টাইন নীতিমালা ভেঙে হোটেলের বলরুমেই ঘটা করে বিয়ের আয়োজন করেন। ওই প্রবাসীর নাম আব্দুল মুহিউদ্দিন (২৮)। তিনি সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার জাঙ্গাইল এলাকার বাসিন্দা। বিয়ের

অনুষ্ঠানে হোটেলের বাইরে থেকে অর্ধশতাধিক অতিথি অংশ নেন। সিলেট নগরের বাসিন্দা কনে বিয়ের পর ওই হোটেলেই স্বামীর সঙ্গে বসবাস করছেন। ওই হোটেলের ৬ নম্বর কক্ষে মুহিউদ্দিন কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন।

বিয়ের আগে ওই প্রবাসী পরিবার নগরের বিভিন্ন বিপণি-বিতান থেকে বিয়ের কেনাকাটাও করে। এর আগে ১৮ মার্চ যুক্তরাজ্য থেকে আসার পর ওই হোটেলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয় বিয়ে করা প্রবাসী ও তার মাকে।

জানা গেছে, যুক্তরাজ্য থেকে ফেরার দিনই হোটেলের ভেতরে তাদের আকদ অনুষ্ঠিত হয়। এতেও বাইরে থেকে অতিথিরা এসে অংশ নেন। দায়িত্বরত পুলিশ ও হোটেল কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় এমন ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। যদিও হোটেল কর্তৃপক্ষ তা অস্বীকার করেছে।

সংক্ষুব্ধ নাগরিক আন্দোলন সিলেটের সমন্বয়ক আবদুল করিম কিম বলেন, ‘যে মুহূর্তে যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসের নতুন ধরনের বিস্তার ঘটছে, সেই সময়টায় কোয়ারেন্টাইন ভেঙে এরকম একটা অপকর্ম সিলেটসহ সারাদেশের মানুষকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিয়েছে। হোটেল কর্তৃপক্ষ ও পুলিশের সহযোগিতা ছাড়া এতো বড় একটি বিয়ের আয়োজন সম্ভব নয়। তাই এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত প্রত্যেকের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হোক।’

সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) বিএম আশরাফ উল্লাহ তাহের বলেন, ‘প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন ভেঙে লা-ভিস্তা হোটেলে লন্ডন প্রবাসী বিয়ে করেছেন। হোটেল মালিকও এটি স্বীকার করেছেন। কারা কারা এতে উপস্থিত ছিলেন, আয়োজনে কারা সহযোগিতা করেছেন, তাদের তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। এরপর এ ঘটনায় জড়িত প্রত্যেককের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

একটি গোয়েন্দা সংস্থার সূত্রে জানা গেছে, ১৮ মার্চ যুক্তরাজ্য থেকে সিলেটে আসা যাত্রীদের মধ্যে ১১ জনকে হোটেল লা-ভিস্তায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। এদের মধ্যে দুজন সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলার জাঙ্গাইল এলাকার এক নারী (৪৮) ও তার ছেলে আব্দুল মুহিউদ্দিন (২৮)। হোটেলের ৪০১ নম্বর কক্ষে মা ও ৪০৬ নম্বর কক্ষে ছেলে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন।

কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম অনুযায়ী তাদের বাইরে বের হওয়া ও বাইরের কারো সঙ্গে সাক্ষাৎ করা নিষেধ। তবে এমন নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঘটা করে বিয়ে করেন মুহিউদ্দিন। এ বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দেন বাইরে থেকে আসা প্রায় ৫০ জন অতিথি। বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ভূরিভোজও হয় হোটেলের রেস্তোরাঁয়। ছেলের বিয়ে উপলক্ষে বাইরে বের হয়ে নগরের বিভিন্ন বিপণি-বিতান থেকে কেনাকাটাও করেছেন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকা প্রবাসী যুবকের মা।

তবে হোটেল কর্তৃপক্ষের সহযোগিতার অভিযোগ অস্বীকার করে হোটেল লা-ভিস্তার ব্যবস্থাপক তারেক আহমদ বলেন, ‘বিয়ের কোনো আনুষ্ঠানিকতা হয়নি। কেবল আকদ (বিবাহ রেজিস্ট্রি) হয়েছে। এতে কাজিসহ ৪-৫ জন মানুষ বাইরে থেকে এসে কেবল স্বাক্ষর নিয়েছেন। মানবিক দিক বিবেচনায় সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদেরকে এই সুযোগ দেয়া হয়েছে।’

এ বিষয়ে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আ ন ম বদরুদ্দোজা বলেন, ‘আমরা এসব বিষয়ে কঠোর হচ্ছি। কোয়ারেন্টাইন যাতে সঠিকভাবে মেনে চলা হয় তা নজরদারি করা হবে। কিন্তু সব কিছুর ঊর্ধ্বে দরকার সচেতনতা। এক্ষেত্রে প্রবাসীদের সহযোগিতা করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ব্রিটেনিয়া হোটেলের বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে আমরা পদক্ষেপ নিয়েছি। লা-ভিস্তায় বিয়ের বিষয়ে অবগত হয়েছি। তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

প্রসঙ্গত, যুক্তরাজ্যে নতুন ধরনের করোনাভাইরাস সংক্রমণের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১ জানুয়ারি থেকে যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক করে সরকার। এজন্য সিলেটের ১০টি হোটেলের সঙ্গে চুক্তি করে জেলা প্রশাসন। এরপর থেকে যুক্তরাজ্য থেকে আসা প্রবাসীদের সেনাবাহিনী ও পুলিশি পাহারায় সরকারি পরিবহনে করে হোটেলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হচ্ছে। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে হোটেলগুলোতে পুলিশও মোতায়েন করা হয়েছে। কিন্তু এতসবের মধ্যেও কোয়ারেন্টাইন মানছেন না প্রবাসীরা।

এর আগে ২১ মার্চ নগরের আম্বরখানা এলাকার হোটেল ব্রিটেনিয়ায় কোয়ারেন্টাইনে থাকা অবস্থায় উধাও হয়ে যায় যুক্তরাজ্যফেরত একই পরিবারের ৯ সদস্য। পরে রাতে তাদের ফিরিয়ে আনা হয়। তারা রোগী দেখতে জকিগঞ্জ উপজেলায় গ্রামের বাড়িতে গিয়েছিলেন বলে কর্তৃপক্ষকে জানান।

এরপর ওই ৯ জনের মধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক ছয়জনকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। আর ব্রিটেনিয়া হোটেলের সঙ্গে প্রবাসীদের কোয়ারেন্টাইনে রাখার চুক্তি বাতিল করে জেলা প্রশাসন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 26
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    26
    Shares

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: