সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

কোরিয়ায় প্রবাসীর দেড় কোটি ওন আত্মসাৎ, বাংলাদেশির বি’রুদ্ধে মা’মলা

দক্ষিণ কোরিয়ায় এক বাংলাদেশি ইপিএস (এমপ্লয়মেন্ট পারমিট সিস্টেম) কর্মীর বি’রুদ্ধে সই জাল করে প্রতারণার মাধ্যমে প্রায় দেড় কোটি ওন (৭ লাখের বেশি টাকা) অর্থ আত্মসাৎ করার অ’ভিযোগ ওঠেছে।

এ বিষয়ে দেশটির রাজধানী সিউলে বাংলাদেশ দূতাবাসে লিখিত অ’ভিযোগ করেছেন আরেক ইপিএস কর্মী প্রয়াত শহীদুল ইস’লামের (৩০) স্ত্রী’ নাজমিন আক্তার। অ’ভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কোরিয়ায় থা’নায় মা’মলা দায়ের করা হয়েছে।

জানা গেছে, গত বছরের ২৫ জুন রাতে কোরিয়ায় মা’রা যান শহীদুল ইস’লাম। তার বাবার নাম আব্দুল বাসেত। তিনি ব্রেইন স্ট্রোকে আ’ক্রান্ত হয়ে দেশটির হোয়াসংসির মাদুমিয়োংয়ের একটি হাসপাতা’লের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তার দেশের বাড়ি টাঙ্গাইলের কালিয়াটি থা’নার পারকি ইউনিয়নের রোহা নামক গ্রামে।

অর্থ আত্মসাতের অ’ভিযোগে উল্লেখ করা হয়, মৃ’তের মামা আজিজুল হক দ. কোরিয়ার স্যামসাং বীমা কোম্পানিতে ভু’য়া পাওয়ার অব অ্যাটর্নি দাখিল করে ক্ষতিপূরণের অর্থ ও কৌশলে ব্যাংকে সঞ্চিত অর্থ আত্মসাৎ করেন।

আজিজুল হকের বি’রুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য শহীদুল ইস’লামের স্ত্রী’ নাজমিন আক্তার বাংলাদেশ দূতাবাসে আবেদন করেন।

সেখানে তিনি অ’ভিযোগ করেন, তার স্বামীর কোরিয়ান ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থেকে ১ কোটি ৫ লাখ ৯৯ হাজার ৫৫ কোরিয়ান ওন এবং স্যামসাং বীমা কোম্পানি থেকে ৪৬ লাখ ২ হাজার ৭৩০ কোরিয়ান ওন প্রতারণার মাধ্যমে তুলে নিয়ে আত্মসাৎ করেন আজিজুল হক।

অ’ভিযোগে আরও বলা হয়, প্রয়াত শহীদুল ইস’লামের ব্যাংকের গো’পন নম্বর, এটিএম কার্ড হস্তগত করেন আজিজুল হক। এরপর শহীদুলের স্ত্রী’র ছবি ব্যবহারসহ সই জাল করার মাধ্যমে আমমোক্তারনামা বীমা কোম্পানিতে উপস্থাপন করেন আজিজুল।

নিয়মানুযায়ী বীমা কোম্পানিতে উপস্থাপিত পাওয়ার অব অ্যাটর্নি সিউলের বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে সত্যায়িত করার প্রয়োজনীয়তা থাকলেও এক্ষেত্রে তা করেননি তিনি।

জানা গেছে, ক্ষতিপূরণ পরিশোধের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের একটি তালিকা পাঠিয়ে মৃ’তের পরিবারের সঙ্গে দূতাবাসের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু পরিবার সেগুলো না পাঠিয়ে কালক্ষেপণ করতে থাকে। পরবর্তীতে বীমা কোম্পানিতে যোগাযোগ করলে প্রকৃত ঘটনা বেরিয়ে আসে।

এদিকে বাংলাদেশ দূতাবাসের পক্ষ থেকে বীমা কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করে ক্ষতিপূরণের বাকি অংশ পরিশোধ প্রক্রিয়া সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে সিউলে বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব (শ্রম) মকিমা বেগম বলেন, অ’ভিযোগ পাওয়ার পর গত বছরের ২৮ ডিসেম্বর কোরিয়ার স্থানীয় সিহং থা’নায় আজিজুল হকের বি’রুদ্ধে একটি মা’মলা দায়ের করে বাংলাদেশ দূতাবাস। বর্তমানে মা’মলা’টি ত’দন্তাধীন রয়েছে।

এদিকে এই প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে ভুক্তভোগী নাজমিন আক্তার বাংলাদেশ দূতাবাস ও কোরিয়ান প্রশাসনের কাছে আত্মসাৎ করা অর্থ উ’দ্ধারসহ আজিজুল হকের দৃষ্টান্তমূলক শা’স্তি দাবি করেন। তিনি তার পাশে দাঁড়ানোর জন্য বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবিদা ইস’লামের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

অ’ভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে আজিজুল হক বলেন, আমা’র বি’রুদ্ধে আনিত অ’ভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। সত্য উদঘাটনের জন্য ইতোমধ্যেই আমি সমস্ত কাগজপত্র সংশ্লিষ্ট দফতরে পাঠিয়েছি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    7
    Shares

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: