সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
সোমবার, ২ অগাস্ট ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

প্রধানমন্ত্রীকে এসএমএস দিয়ে ঘর পেলো টেকনাফের কিশোর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মোবাইলফোনে খুদে বার্তা (এসএমএস) পাঠিয়ে জমিসহ টিনের ঘর উপহার পেয়েছে টেকনাফের কিশোর মো. মামুন। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন সোমবার (৭ ডিসেম্বর) টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের কেরুনতলীর মো. মামুনের বাবা রিকশাচালক রমজান আলীকে খাস জমি বন্দোবস্ত ও ঘর প্রদান করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আমিন আল পারভেজ, টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. সাইফুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবুল মনসুর, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল বশর, হোয়াইক্যং মডেল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মাওলানা নুর আহমদ আনোয়ারী, হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলি প্রমুখ।

ঘর পেয়ে কিশোর মামুন বলে, ‘অষ্টম শ্রেণি পাস করার পর টাকার অভাবে লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যায়। তবে লেখাপড়া করতে না পারলেও ডিজিটালের বদৌলতে মোবাইল-ফেসবুকের অনেক কিছুই জানা আছে। অভাবের চাপে সম্প্রতি ঘরবাড়ি চেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে খুদে বার্তা পাঠাই। পরে খুদে বার্তায় সাড়া দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে খোঁজ নেওয়া হয়। সোমবার আনুষ্ঠানিকভাবে জমিসহ ঘর হস্তান্তর করেন জেলা প্রশাসক।’

মামুন আরও বলে, অবিশ্বাস্যও হলে সত্য একটি খুদে বার্তায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের স্বপ্ন পূরণ করেছেন। এজন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ। তিনি শত বছর বেঁচে থাকুন এবং আজীবন যেন প্রধানমন্ত্রী থাকেন সে জন্য দোয়া করি।

জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন বলেন, কিশোর মামুনের বার্তা প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি এড়িয়ে যায়নি। এতে প্রমাণ হয় দেশের প্রধানন্ত্রী তৃণমূলের খোঁজ রাখেন এবং যত দূর সম্ভব দুঃখ লাঘবের জন্য কাজ করেন।

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী গৃহ-ভূমিহীন জনগোষ্ঠীর আশ্রয়ের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করছেন। ইতোমধ্যে বিভিন্ন এলাকায় শত শত পরিবারকে ভূমি এবং ঘর দিয়ে পুনর্বাসন করা হয়েছে। এ সময় মামুনের পরিবারের অসহায়ত্ব দূর করতে একটি ইজিবাইক (টমটম) উপহার দেওয়ার ঘোষণা দেন তিনি।’

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. সাইফুল ইসলাম জানান, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের নির্দেশে রিকশাচালক রমজান আলীকে স্থানীয় কেরুনতলী নামক এলাকায় ইজারা দেওয়া হয়েছে বিশ শতক সরকারি খাস জমি। ইতোমধ্যে রমজানের নামে জমির দলিল এবং খতিয়ানও সৃজন করা হয়েছে। সোমবার জেলা প্রশাসক রমজানকে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘরের চাবিসহ দলিল হস্তান্তর করেন। রমজান আলী কিশোর মো. মামুনের বাবা।

এছাড়া একই দিন মুজিববর্ষ উপলক্ষে সীমান্তে প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত ‘আশ্রয়ণ-২’ প্রকল্পের ২৮টি ঘর নির্মাণ কাজ, সীমান্ত সড়কসহ কর্মসৃজন প্রকল্প পরিদর্শন শেষে মানসিক রোগী ও অসহায় মানুষদের শীতবস্ত্র বিতরণ করেন জেলা প্রশাসক।সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: