সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

বডি ব্যাগ নেই, বিছানার চাদরে মুড়িয়ে লা’শ নিতে হচ্ছে ব্রিটেনে

করোনাভাইরাসের ভয়াল থাবায় যে কটি দেশ সবচেয়ে বেশি জর্জরিত, তার মধ্যে ব্রিটেন অন্যতম। সেখানকার অবস্থা এতোই নাজুক যে, হাসপাতাল থেকে মরদেহ নিয়ে যাওয়ার জন্য জিপার্ড বডি ব্যাগও মিলছে না। সেজন্য বিছানার চাদর ব্যবহার করতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন অনেক স্বাস্থ্যকর্মী। বডি ব্যাগ সংকটের কথা অস্বীকার করছে না সরকারি প্রতিষ্ঠানও।

ওয়েস্ট লন্ডনের ওয়েস্ট মিডলসেক্স ইউনিভার্সিটি হসপিটালের নার্স স্যালি গুডরাইট সম্প্রতি এক ফেসবুক পোস্টে লেখেন, লাশের সারি বড় হচ্ছে আর আমরা বডি ব্যাগ সংকটে পড়েছি। তিনি বলেন, যেহেতু মরদেহগুলোতে ভাইরাসের সংক্রমণ থেকেই যায়, সেহেতু সেগুলো ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রীর (পিপিই) মতো করে বানানো বডি ব্যাগে নেয়া দরকার।

ওয়াটফোর্ড জেনারেল হসপিটালের আরেক কর্মী বলেন, (সৎকারসহ অন্যান্য প্রক্রিয়ার জন্য) মরদেহ মুড়িয়ে নিতে বিছানার চাদর ব্যবহার করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে শ্রমিক সংগঠন জিএমবি ইউনিয়নের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিছানার চাদরে মুড়িয়ে মরদেহ বহনের জন্য বাধ্য করা হচ্ছে স্বাস্থ্যকর্মীদের।

অবশ্য পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড এ বিষয়ে বলছে, বডি ব্যাগ বাস্তবিক কারণে ব্যবহার করা হয়। কোভিড-১৯ রোগী মারা গেলে যেহেতু তার শরীরে কোনো জীবাণু বেঁচে থাকতে পারে না, সেহেতু সেই মরদেহ বহনে বডি ব্যাগ বহনের কোনো কারণ নেই।

বডি ব্যাগ সংকটের কথা উঠে এসেছে ব্রিটেনের জাতীয় স্বাস্থ্য সংস্থাকে (এনএইচএস) সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান বারবার মেডিকেলের বক্তব্যেও। তারা সংবাদমাধ্যমকে বলেছে, জিপার্ড বডি ব্যাগ উৎপাদনে তাদের সমস্যায় পড়তে হচ্ছে, তবে পাতলা পলিথিনে হলেও বেশি বেশি বডি ব্যাগ বানানোর জন্য সংশ্লিষ্ট কারখানায় তাগিদ দেয়া হয়েছে। সূত্র : জাগো নিউজ

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: