fbpx

সর্বশেষ আপডেট : ২৫ মিনিট ৪৮ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ১ জুন ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

ইতালিতে একদিনে প্রানহানী ৫৫২ জন

চীনের উহান শহর থেকে শুরু হওয়া করোনাভাইরাসে মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে ইউরোপের দেশ ইতালি। মারাত্মক আকার ধারণ করা মহামারি করোনাভাইরাসে ইতালিতে আতঙ্কে হতাশায় দিন কাঁটাচ্ছে ইতালির ছয় কোটি মানুষ। জনগণকে সুরক্ষা দিতে ইতালি সরকার করোনা মোকাবিলায় সর্বোচ্চ চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। বুধবার আক্রান্ত তুলনামূলক কম হলেও মৃত্যুবরণ করেছে ৫৪২জন। এরমধ্যে একজন বাংলাদেশি রয়েছে।মঙ্গলবার দিবাগত রাতেমোঃসালাউদ্দিন ছৈয়াল প্রায়(৪৬) বেরগামোর হাসপাতালে মৃত্যু বরণ করেন। ২০ দিন পূর্বে অসুস্থ হয়ে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। এই নিয়ে ইতালিতে ৪ বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে মারা গেলেন।

শরিয়তপুরের নড়িয়ার পাটদলের সালাউদ্দিন ইতালির লোম্বারদিয়া অঞ্চলের মিলানের পাশের শহর বেরগামোতে স্ত্রী ও একমাত্র কন্যা সন্তান নিয়ে বসবাসরত ছিলেন । তিনি বেরগামো সেন্ট্রাল মসজিদের সভাপতি ছিলেন।

এ পর্যন্ত মোট মৃত্যুর সংখ্যা ১৭ হাজার ৬৬৯ জন। এর মধ্যে ৯৬ জন ডাক্তার রয়েছে এবং ২৬ জন নার্স রয়েছে। এদিন নতুন আক্রান্ত তিন হাজার ৮৩৬জন। দেশটিতে গুরুতর অসুস্থ রোগীর সংখ্যা কমতে শুরু করেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ২০৯৯জন। চিকিৎসাধীন ৯৫হাজার ২৬২জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা এক লাখ ৩৯হাজার ৪২২জন বলে জানিয়েছেন নাগরিক সুরক্ষা সংস্থার প্রধান অ্যাঞ্জেলো বোরেল্লি।

তিনি বলেন, জনগণকে সুরক্ষা দিতে সরকার করোনা মোকাবিলায় সর্বোচ্চ চেষ্টা চালাচ্ছে। ফলে এ পর্যন্ত চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ২৬হাজার ৪৯১জন।

ইতালির ২১ অঞ্চলের মধ্যে লোম্বারদিয়ায় করোনার সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত (মিলান, বেরগামো, ব্রেসিয়া, ক্রেমনাসহ) ১১টি প্রদেশ। আজ এ অঞ্চলে মারা গেছে ২৩৮ জন।যা গতকালের চেয়ে সংখ্যায় কম। গতকাল মঙ্গলবার এ সংখ্যা ছিলো ২৮২ জন। শুধু এ অঞ্চলেই মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে নয় হাজার ৭২২জনে দাঁড়িয়েছে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫৩ হাজার ৪১৮জন। আজ মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১০৮৯জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৬৪৯ জন ।লোম্বারদিয়া অঞ্চলে মোট এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ১৫ হাজার ১৪৭ জন।

প্রধানমন্ত্রী জোসেপ্পে কন্তে জনগণের সচেতনতা বৃদ্ধি করতে, জনগনের মনে সাহস জোগাতে প্রায় প্রতিদিনই সান্ত্বনা দিয়ে টেলিভিশনে ভাষণ দিচ্ছেন। কারো যেন মনোবল এখনই দুর্বল হয়ে না যায় সেই কারনে করোনা মোকাবিলায় জনগণের জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ অব্যাহত রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী। জোসেপ্পে কন্তে দেশজুড়ে জরুরি নয় এমন সব ধরনের ব্যবসা বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। এছাড়া বাড়ির বাইরে সবধরনের খেলাধুলা ও ব্যায়াম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পাশাপাশি ভেন্ডিং মেশিনের ব্যবহারও নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সুপার মার্কেট, ফার্মেসি, পোস্ট অফিস ও ব্যাংক খোলা থাকবে এবং গণপরিবহনও সচল থাকবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি আরও বলেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ইতালি বর্তমানে কঠিন সময় পার করছে। তবে দেশের এই কঠিনতম সময় সহসাই কাটিয়ে উঠার আশ্বাস দেন তিনি। এদিকে আগামী ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত দেশটিতে লকডাউন রয়েছে।এ সময় আরো বাড়তে পারে বলে তিনি ঈঙ্গিত দেন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: