সর্বশেষ আপডেট : ৮ ঘন্টা আগে
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

ভারত-আমেরিকায় রপ্তানি হবে ওয়ালটনের স্মার্টফোন-ফ্রিজ

দেশের প্রযুক্তি নির্মাণ প্রতিষ্ঠান ওয়ালটনের স্মার্টফোন ও এয়ারকন্ডিশনার রপ্তানি হতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের বাজারে। প্রতিষ্ঠানটি যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে রপ্তানি করবে স্মার্টফোন ও ভারতে রপ্তানি করবে এয়ার কন্ডিশনার।

রবিবার গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে মেইড ইন বাংলাদেশ ট্যাগযুক্ত এ সব পণ্যের উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। একইসঙ্গে প্রতিষ্ঠানটির দেশে তৈরি এলিভেটর ও লিফট উৎপাদন শুরুরও উদ্বোধন করেন মন্ত্রী।

এ সময় আগামী দিনে ওয়ালটনের মতো আরও প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠবে বলে আশা প্রকাশ করেন অর্থমন্ত্রী বলেন, ওয়ালটন উন্নতমানের পণ্য তৈরি করছে, যা আমাদের জন্য বিশ্বাস ও আস্থার জায়গা।

এ সময় ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক উপস্থিত ছিলেন।

ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজে অর্থমন্ত্রী বাংলাদেশের প্রথম এলিভেটর কারখানার উদ্বোধন করেন। একইসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে প্রথমবারের মতো মেইড ইন বাংলাদেশ ট্যাগযুক্ত স্মার্টফোন রপ্তানি, ভারতে বিপুল পরিমাণ এসি রপ্তানি, ওয়ালটন টিভির নিজস্ব অপারেটিং সিস্টেম আরওএস ও অল-ইন-ওয়ান ওয়ালটন পিসি উদ্বোধন করেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, মন্ত্রী হওয়ার আগে আমার ব্যবসা প্রতিাষ্ঠান ছিল। আমি ছোট পরিসরে হোম অ্যাপলাইন্সের পণ্য তৈরি শুরু করেছিলাম। ফ্রিজ ও এয়ার কন্ডিশনার , টেলিভিশহনসহ হোম অ্যাপলায়েন্স বানানো শুরু করেছিলাম কোরিয়ান একটি প্রতিষ্ঠানকে নিয়ে। যখন দেখলাম ওয়ালটন আমার চেয়ে আরও শতগুণ বেশি শক্তি নিয়ে এগিয়ে আসছে, তখন দেখলাম আমার এখানে থাকা উচিত নয়। আমি লস করবো। আমি এর পর এ ব্যবসা থেকে সরে আসলাম। এখন ওয়ালটনের মনোপুলি, ওয়ালটনের জয় জয়কার।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দেশ স্বাধীন হয়েছে। এই দেশের মানুষের অর্থনীতির মুক্তির জন্য যুদ্ধ করেছেন। তিনি চেয়েছিলেন একটি সুন্দর বাংলাদেশ। যেই দেশের কোন মানুষ না খেয়ে ক্ষুধার জ্বালা নিয়ে ঘুমাতে যাবে না। তাদের বচ্চাদের স্বাস্থ্য সেবা, আবাসন ব্যবস্থা, লেখাপড়ার ব্যবস্থা সকল কিছুর তিনি স্বপ্ন দেখেছিলেন। বঙ্গবন্ধু কাজ শুরু করেছিলেন। যুদ্ধবিদ্ধস্থ দেশ গড়ে তোলা শুরু করলেন। কিন্তু তিনি সেই কাজ করে যেতে পারেন নি। তার পর দির্ঘদিন পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে দেশে উন্নয়নের যাত্রা শুরু। জাতীর পিতার দেখানো পথে তিনি দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।

এ সময় ওয়ালটন কারখানাকে বেসরকারি হাই-টেক পার্ক হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়। এ বিষয়ে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ওয়ালটনের একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়। বর্তমানে এক লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে ওয়ালটন। এটাকে ১০ লাখে নিয়ে যাওয়ার জন্য কাজ করতে বলেছেন মন্ত্রী।

ওয়ালটনের গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান এস এম নুরুল আলম রিজভী বলেন, ওয়ালটন বিশ্ববাজারে শক্ত অবস্থান তৈরি করতে করেছে। ওয়ালটনে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ১ লাখ লোকের কর্মসংস্থান তৈরি করেছে। আগামীতে অর্থমন্ত্রীর চাওয়া অনুযায়ী ওয়ালটন ১০ লাখ লোকের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করার সর্বাত্মক চেষ্টা করবে।

উল্লেখ্য, গাজীপুরের চন্দ্রায় রেফ্রিজারেটর, কম্প্রেসর, টেলিভিশন, এয়ার কন্ডিশনার, মোবাইল ফোন, কম্পিউটার, ল্যাপটপ, হোম অ্যাপ্লায়েন্স, ইলেকট্রিক অ্যাপায়েন্স, ডাই মোল্ড ইত্যাদি কারখানা গড়ে তুলেছে ওয়ালটন। দেশের মানুষের চাহিদা মিটিয়ে যা রপ্তানি হচ্ছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: