সর্বশেষ আপডেট : ৩০ মিনিট ২৪ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

হাকালুকি হাওরে ধান ক্ষেতে বিষটোপ : সাড়ে ৫শ’হাঁসের মৃত্যু

বড়লেখা প্রতিনিধি :

হাকালুকি হাওরে অসাধু অতিথি পাখি শিকারী চক্র তৎপর। তাদের বিষটোপে দরিদ্র হাঁস খামারীর সাড়ে ৫শ’ হাঁস মারা গেছে। সোমবার রাতে নিরীহ খামারী ইসলাম উদ্দিন হাওরপারের চিহ্নিত ৬ জন পাখি শিকারীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন। মঙ্গলবার বিকেলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

জানা গেছে, শীত মৌসুমের শুরু থেকে হাকালুকি হাওরের প্রায় সবক’টি বিলে পাখি শিকারীরা তৎপর হয়ে উঠে। সংঘবদ্ধ শিকারী চক্র বিকেল বেলা হাওরের বিলগুলোতে বিষ জাতীয় দ্রব্য মিশ্রিত ধান ছিটিয়ে রাখে। রাতে অতিথি পাখিরা খাবারের সন্ধানে বিলের পারে এসে বিষ মিশ্রিত ধান খেয়ে মারা যায়। পরে শিকারীরা মৃত পাখি জবাই করে বিভিন্ন বাজারে বিক্রি করে। হাওরপারের ইসলামপুর, হাল্লা ও খুঁটাউরাসহ বিভিন্ন গ্রামের অসাধু শিকারীর বিষ মিশ্রিত ধান থেকে খামারিদের হাঁস মারা যাচ্ছে। ইসলামপুর গ্রামের ইসলাম উদ্দিন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে ৬০০ হাঁসের খামার দেন। হাঁসগুলো প্রতিদিন সকালে তিনি পলোভাঙ্গা বিলে ছেড়ে দেন এবং বিকেলে নিয়ে আসেন।

গত সোমবার বিকেলে হাঁসগুলো আনতে গিয়ে দেখেন মৃত অবস্থায় মাটিতে পড়ে আছে। তার মধ্যে গুটিকয়েক হাঁস জীবিত। স্থানীয় লোকজনসহ তিনি অনুসন্ধানে জানতে পারেন বড়লেখা উপজেলার ইসলামপুর গ্রামের রফিক উদ্দিন, মর্তোজ আলী, আনিছ মিয়া, নজু মিয়া, খুটাউরা গ্রামের তাজ উদ্দিন ও গোলাপগঞ্জ উপজেলার কালিকৃষ্ণপুর গ্রামের ইমান হোসেন অতিথি পাখি শিকারের জন্য পলোভাঙ্গা বিলে বিষ মিশ্রিত ধান ছিটিয়ে রাখে। এ ধান খেয়ে হাঁসগুলো মারা যায়।

বড়লেখা থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়ে ঘটনা তদন্তের জন্য মঙ্গলবার দুইজন এসআইকে ঘটনাস্থলে পাটিয়েছেন। তদন্ত সাপেক্ষে এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: