সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ইরানি হামলায় ৫০ জন মার্কিন সেনা আহত হওয়ার কথা জানিয়েছে পেন্টাগন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::

ইরাকের আইন আল-আসাদ ঘাঁটিতে ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় আহত মার্কিন সেনাদের সংখ্যা আরেক দফা বাড়িয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগ পেন্টাগন। আগের ঘোষণার চেয়ে আরো ১৬ জন বাড়িয়ে এবার ৫০ জন আহত হওয়ার কথা জানিয়েছে পেন্টাগন।

পেন্টাগনের মুখপাত্র লে. কর্নেল থমাস ক্যাম্পবেল মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে বলেন, এ পর্যন্ত ৫০ জন মার্কিন সেনা মস্তিষ্কের আঘাত নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তিনি বলেন, এদের মধ্যে ৩১ জনকে ইরাকেই চিকিৎসা দেয়া হয়েছে এবং তারা কাজে ফিরে গেছেন। এই ৩১ জনের মধ্যে ১৫ জনকে অতি সম্প্রতি চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে গুরুতর ব্রেইন ইনজুরি নিয়ে ১৮ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য জার্মানিতে পাঠানো হয়েছে এবং বাকি একজনকে কুয়েতে নেয়া হয়েছে।এর আগে গত শুক্রবার তার আগের পরিসংখ্যানের চেয়ে তিনগুণ বেশি মার্কিন সেনার আহত হওয়ার কথা জানিয়েছিল পেন্টাগন।

ইরানের কুদস ফোর্সের সাবেক কমান্ডার লেঃ জেনারেল কাসেম সোলাইমানির শাহাদাতের প্রতিশোধ নিতে গত ৮ জানুয়ারি ইরাকে অবস্থিত মার্কিন সামরিক ঘাঁটি আইন আল-আসাদে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ওই ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর দাবি করেছিলেন কোনো মার্কিন সেনা আহত হয়নি।

এরপর ১১ মার্কিন সেনা মস্তিষ্কে ইনজুরি নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে বলে পেন্টাগন স্বীকার করার পর ট্রাম্প আবার দাবি করেন, এসব সেনার খানিকটা ‘মাথাব্যথা’ করছিল বলে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ট্রাম্প প্রশাসনের দাবি অনুযায়ী আহত সেনার সংখ্যা ১১ থেকে এক লাফে ৩৪ জন এবং তারপর আবার ৫০ জনে উন্নীত হওয়ায় পর্যবেক্ষকদের মনে এখন ওই হামলায় হতাহতের সংখ্যা সম্পর্কে ইরানের ঘোষণা বদ্ধমূল হতে শুরু করেছে।

ওই ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর পর ইরান বলেছিল, তাদের হামলায় ৮০ মার্কিন সেনা নিহত ও অপর ২০০ জন আহত হয়েছে। আহত সেনাদেরকে চিকিৎসা দিতে সি১৩০ বিমানে করে আইন আল-আসাদ ঘাঁটি থেকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়েছে বলেও ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর (আইআরজিসি) একজন কর্মকর্তা জানিয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের শুরুতে (গত ৩ জানুয়ারি) বাগদাদ বিমানবন্দরের কাছে বিমান হামলা চালিয়ে ইরানের কুদস ফোর্সের কমান্ডার লেঃ জেনারেল কাসেম সোলাইমানিসহ ইরান ও ইরাকের ১০ সেনা কমান্ডারকে হত্যা করে মার্কিন সেনারা। সোলেইমানি হত্যার প্রতিশোধ নিতেই ইরাকের মার্কিন বিমান ঘাঁটি আইন আল-আসাদে এক ডজনেরও বেশি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছিল ইরান।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: