সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ৯ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

রোবট বিলি করছে করোনায় আক্রান্ত রোগীদের খাবার


রোগ বিস্তাররোধ চেষ্টার অংশ হিসেবে লোকজনকে বিচ্ছিন্ন রাখতে একটি কোয়ারেনটাইন হোটেলে খাবার সরবরাহ করতে দেখা গেছে রোবটকে।

কোয়ারেনটাইন এলাকায় খাবার সরবরাহ করতে কক্ষের সামনে রোবটেরা থামছে, অতিথিদের বিনোদন দিতে গান গান পরিবেশন করছে। মেইল অনলাইনের একটি খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে, তা নিশ্চিত করতে পূর্ব চীনের হ্যাংজুতে একটি স্থানে দুই শতাধিক পর্যটককে বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছে।

তাদের মধ্যে বেশ কয়েকযাত্রী উহান থেকে এসেছেন। মূলত হুবাই প্রদেশের এই রাজধানীতেই মহামারীর উৎপত্তি বল ধারনা করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত এতে ১৩২ জনের মতো মারা গেছেন।

যাত্রীদের থেকে যাতে হোটেল কর্মীদের মধ্যে এই রোগের সংক্রমণ না ঘটে, সেজন্যই রোবট দিয়ে খাবার বিলি করা হচ্ছে।

রোববার এই ঘটনার ভিডিও করে রাখেন ওই হোটেলের এক অতিথি। তাতে দেখা গেছে, রোবট দরজার সামনে গিয়ে দাঁড়াচ্ছে। লোকজন বের হয়ে তাদের কাছ থেকে খাবার নিয়ে নিচ্ছে।

খাবার বিলির সময় সেখানে অতিথিদের জন্য একটি ঘোষণা প্রকাশ করা হয়েছে।

তাতে বলা হয়, হ্যালো, সবাইকে বলছি, আমি তোমাদের জন্য খাবার নিয়ে এসেছি। যদি তোমাদের কোনো খাবারের দরকার হয়, তবে উইচ্যাটের মাধ্যমে সেই বার্তা পাঠিয়ে দাও। কর্মীদের যে কোনো একজন তোমাদের সঙ্গে তখন যোগাযোগ করবেন। খাবার উপভোগ করুন, ধন্যবাদ।

হ্যাংজু স্কুল অব কমিউনিস্ট পার্টি অব চীনের এক মুখপাত্র বলেন, তারা ১৬টি রোবটকে প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। প্রতিটি ফ্লোরে একটি করে রোবট মোতায়েন করা হয়েছে। তারা রোবটের যাতায়াত পথ নির্ধারণ করে দিয়েছেন। কোথায় যেতে হবে, কোথায় গিয়ে থামতে হবে এবং দরজার সামনে গিয়ে ঘোষণা দিতে হবে।

অতিথিদের বিনোদন দিতে রোবট গানও পরিবেশন করছে বলে জানায় হোটেল কর্তৃপক্ষ।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: